Lottery: ভাগ্যের চাকা ঘুরল, লটারিতে ১ কোটি টাকা পেলেন পঞ্জাবের হতদরিদ্র আশা রানি !

Lottery: ভাগ্যের চাকা ঘুরল, লটারিতে ১ কোটি টাকা পেলেন পঞ্জাবের হতদরিদ্র আশা রানি !

Punjab State Dear 100 Monthly Lottery (Asha Rani)

দেশের কোটিপতিদের তালিকায় নাম উঠল পঞ্জাবের এই সংগ্রামী রমণীর!

  • Share this:

#চণ্ডীগড়: স্বামীর রয়েছে একটা ভাঙাচোরার জিনিস বিক্রি করার সংসার। লোকের বাড়ি থেকে সের দরে পুরনো জিনিস এনে তা বিক্রি করে কোনও মতে চলত সংসার। এই ভাবেই জীবন চালিয়েছেন চণ্ডীগড়ের বাগাপুরানার আশা রানি। বড় করেছেন দুই ছেলেকে। কিন্তু পরিবারের দারিদ্র্য দূর হয়নি। এই দেশে যেখানে লেগে রয়েছে কর্মসংস্থানের একটানা অভাব, সেখানে দারিদ্র্যের সঙ্গে পাল্লা দিয়ে পথ প্রশস্ত করতে পারেননি ছেলেরা। জীবনভর শুধু লক্ষ্মীর আরাধনাই করেছে এই পরিবার, তবে সৌভাগ্যের মুখ দেখেনি। কিন্তু ওই, ধনদেবী কখন কার প্রতি প্রসন্ন হবেন, তা মানুষের হিসেবে মেলে না! ফলে এত দিনে আর্থিক কষ্ট কিছুটা হলেও ঘুচে গেল আশা রানি এবং তাঁর পরিবারের। দেশের কোটিপতিদের তালিকায় নাম উঠল পঞ্জাবের এই সংগ্রামী রমণীর!

জানা গিয়েছে যে আশা রানি পঞ্জাব স্টেট ডিয়ার ১০০ মান্থলি লটারির (Punjab State Dear 100 Monthly Lottery) একটা টিকিট কেটেছিলেন। বুধবার তাঁর প্রতি লক্ষ্মী মুখ তুলে চেয়েছেন, তিনি জিতে নিয়েছেন প্রথম পুরস্কারের ১ কোটি টাকা। সূত্রে খবর, দেরি না করে আশা রানি এবং তাঁর পরিবার পঞ্জাব স্টেট ডিয়ার ১০০ মান্থলি লটারি কর্তৃপক্ষের কাছে টিকিট এবং পুরস্কারের আর্থিক অঙ্ক দাবি করার জন্য যা যা নথি প্রয়োজন ছিল, সে সব জমা করে দিয়েছেন।

স্বাভাবিক ভাবেই বৃদ্ধ বয়সে এই বিশাল অর্থপ্রাপ্তিতে প্রথমটায় রীতিমতো বিহ্বল বোধ করছিলেন আশা রানি। তিনি জানিয়েছেন যে শুরুর দিকে তাঁর এ সবের কিছুই বিশ্বাস হচ্ছিল না। আর পাঁচজনে যেমন লটারির টিকিট কাটেন সৌভাগ্যের আশায়, তিনিও তাই করেছিলেন। সেই আশা যে পূর্ণ হবে, তা তিনি স্বপ্নেও কল্পনা করে উঠতে পারেননি। তবে এখন তাঁর মনে জেগেছে নতুন আশা। তিনি বুঝতে পেরেছেন যে সংসারের হাল এবার ফিরবে। যদিও বাস্তব থেকে বিচ্যুত হননি তিনি। জানিয়েছেন যে এই টাকার কিছুটা দিয়ে তাঁরা একটা বাড়ি করবেন। পুরনো বাড়িতে ঘরের অভাব, তাই ঠেসাঠেসি করে সবাইকে থাকতে হয়। তাই এবার একটু পরিবারের সদস্যদের জন্য স্বাচ্ছন্দ্যের ব্যবস্থা করতে চান তিনি। আর যে টাকাটা বাড়ি তৈরি করার পরে হাতে পড়ে থাকবে, তা ব্যবসার উন্নতির স্বার্থে ব্যয় করা হবে বলে জানিয়েছেন তিনি।

পঞ্জাব স্টেট ডিয়ার ১০০ মান্থলি লটারির তরফে এক কর্তাব্যক্তি জানিয়েছেন যে প্রয়োজনীয় সব কাগজ তাঁরা আশা রানি এবং তাঁর পরিবারের কাছ থেকে পেয়ে গিয়েছেন, এঁদের টিকিটের নম্বর ছিল C-74263। খুব তাড়াতাড়ি আশা রানির ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্টে টাকা জমা করে দেওয়া হবে বলে প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন তিনি।

Published by:Piya Banerjee
First published:

লেটেস্ট খবর