JNU-র ঘটনার তীব্র নিন্দায় নেতা থেকে সেলেবরা

JNU-র ঘটনার তীব্র নিন্দায় নেতা থেকে সেলেবরা

জেএনইউয়ে হামলার ঘটনায় দেশ জুড়ে সমালোচনার ঝড় উঠেছে। মমতা-রাহুল-ইয়েচুরি-কেজরিওয়াল, প্রত্যেকেই ঘটনার তীব্র নিন্দা করে ট্যুইট করেছেন।

  • Share this:

#নয়াদিল্লি: ছাত্র সংঘর্ষে উত্তাল জেএনইউ। গার্লস হস্টেলে ঢুকে মুখ ঢাকা দৃষ্কৃতীদের তাণ্ডব। মাথা ফাটল ছাত্র সংসদের সভানেত্রী ঐশী ঘোষের। আক্রান্ত অধ্যাপক সুচরিতা সেনও। হামলার অভিযোগ এবিভিপির বিরুদ্ধে। যা তারা মানতে নারাজ। তাদের পাল্টা অভিযোগ বাম ছাত্রসংগঠনের দিকে। ফি বৃদ্ধির প্রতিবাদে, গত প্রায় ২ মাস ধরে আন্দোলনে জেএনইউয়ের পড়ুয়ারা। রবিবার সেই আন্দোলনকারীদের উপরই হামলার অভিযোগ।

জেএনইউয়ে হামলার ঘটনায় দেশ জুড়ে সমালোচনার ঝড় উঠেছে। মমতা-রাহুল-ইয়েচুরি-কেজরিওয়াল, প্রত্যেকেই ঘটনার তীব্র নিন্দা করে ট্যুইট করেছেন। সমালোচনায় কেন্দ্রও। কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী, বিদেশমন্ত্রীর পাশাপাশি মানবসম্পদ উন্নয়ন মন্ত্রকও হামলার নিন্দায়। ঘরে-বাইরে সমালোচনার মধ্যে দিল্লি পুলিশের থেকে রিপোর্ট তলব কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহের। রাজনৈতিক মহল থেকে সেলিব্রটিরা সকলেই ঘটনার তীব্র নিন্দা করেছেন ৷

JNU-তে তাণ্ডবের নিন্দায় সরব রূপম ইসলাম। ফেসবুকে পুরনো গান শেয়ার করে প্রতিবাদ। ছাত্রদের পাশে দাঁড়ানোর বার্তা সংগীত শিল্পীর।

শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে হামলার ঘটনায় প্রতিবাদের ভাষা নেই। অন্তর থেকে এই ঘটনার নিন্দা জানান। টুইট অভিনেতা-সাংসদ মিমি চক্রবর্তীর।

JNU-র ছাত্রছাত্রীদের সমর্থনে গেটওয়ে অফ ইন্ডিয়ায় স্বতস্ফূর্ত ও শান্তিপূর্ণ প্রতিবাদ হয়েছে। জেএনইউ নিয়ে টুইট অভিনেতা- পরিচালক নন্দিতা দাসের।

হীরক রাজার সেনারা একের পর এক পাঠশালা আক্রমণ করে যাবে, মগজ ধোলাই মেশিন চলছে, চলবে...উদয়ন মাস্টার, কোথায় আপনি? আর লুকিয়ে থাকবেন না! আপনাকে, গুপি, আর বাঘাকে খুব দরকার! টুইট অভিনেতা পরমব্রত চট্টোপাধ্যায়ের।

আর কতদিন চলবে এই ধরনের ঘটনা? আর কতদিন চোখ বন্ধ করে রাখবে? কতদিন অরক্ষিতদের উপর রাজনীতি ও ধর্মের নামে আক্রমণ হবে? যথেষ্ট হয়েছে। JNU- ঘটনা নিয়ে টুইটে ক্ষোভ অভিনেতা দিয়া মির্জার।

জাতীয় নিরাপত্তার নামে ভারতে নয়া ফ্যাসিবাদ এসেছে। নীরবতা ভেঙে সকলে এক সুরে প্রতিবাদ করার সময় এসেছে। JNU-র ঘটনার প্রতিবাদে টুইটে ক্ষোভ পরিচালক মহেশ ভাটের।

শুধুমাত্র ছাত্রছাত্রীরা যা বলে, করে কিংবা বিশ্বাস করে, তার জন্য তাদের উপর পরিকল্পিত হামলা হবে? কবে থেকে নিজস্ব অভিমত, অপরাধ হিসেবে গণ্য হচ্ছে আধুনিক ভারতে? টুইটে ক্ষোভ উগড়ে দিলেন পরিচালক অনুরাগ বসু।

JNU-তে মুখ-ঢাকা দুষ্কৃতীরা কারা? ওরা কি আরএসএস সমর্থিত এবিভিপির সদস্য? যদি বলা হয়, জানা নেই। তাহলেও প্রশ্ন থেকে যায়। কিভাবে বিশ্ববিদ্যালয়গুলিতে হামলা হয় ? দিল্লি পুলিশ কী করছে? এটা কি গুন্ডারাজ চলছে? টুইটে প্রশ্ন অপর্ণা সেনের।

বিশ্ববিদ্যালয়ের উপর এই ধরনের হামলা দেশের আত্মিক বৈশিষ্টের বিরুদ্ধে। চিন্তাধারা যাই হোক না কেন, পড়ুয়াদের এভাবে টার্গেট করা উচিত নয়। যারা বিশ্ববিদ্যালয়ে ঢুকে এই ধরনের ঘটনা ঘটিয়েছে, তাদের কঠিনতম শাস্তি হওয়া উচিত। টুইটে দাবি বিজেপি সাংসদ গৌতম গম্ভীরের।

দেশের আসল ' টুকরে টুকরে গ্যাং ' হল বিজেপি ও এবিভিপি। আর এই 'টুকরে টুকরে গ্যাং'-র নেতা হলেন অমিত শাহ ও নরেন্দ্র মোদি। এটা পাথরে খোদাই করা হোক। এঁরাই দেশে বিভাজন তৈরি করছেন। টুইটে ক্ষোভ পরিচালক অনুরাগ কাশ্যপের।

তদন্তের আগে জেএনইউ নিয়ে মন্তব্য করতে রাজি নন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী স্মৃতি ইরানি। তবে তাঁর আশ্বাস, রাজনীতির স্বার্থে পড়ুয়াদের ব্যবহার করা হবে না। শিক্ষাক্ষেত্রে রাজনীতি না হওয়াই উচিত। এতে পড়ুয়াদের জীবনেও প্রভাব পড়ে। মন্তব্য স্মৃতি ইরানির।

মানুষের রায়ে ভয় পেয়েছে। লজ্জাজনক আক্রমণ। JNUয়ে পড়ুয়াদের উপর আক্রমণ নিয়ে টুইট শোভা দে-র।

JNU হামলার ঘটনা উদ্বেগের। ওরা ভারতীয় কলেজে পড়া পড়ুয়া। কোনও ভারতীয় কলেজে হামলা করা উচিত নয়। AMU, JNU কিংবা JAMIA... যাই হোক না কেন। এটা করে দেশকে ধ্বংস করা হচ্ছে। জেএনইউ নিয়ে নিন্দায় সরব লেখক চেতন ভগত।

JNUতে যা ঘটেছে তা ভয়াবহ ও লজ্জাজনক। এই ঘটনায় যারা জড়িত, তাদের শাস্তি হওয়া উচিত।টুইটে নিন্দা অভিনেতা রাজকুমার রাওয়ের।

JNU-র ঘটনায় নিন্দা সাহিত্যিক শীর্ষেন্দু মুখোপাধ্যায়ের। জেএনইউ-এর ঘটনায় উপচার্যের পদত্যাগ দাবি। দাবি তুললেন শিক্ষাবিদ পবিত্র সরকার।

জেএনইউ এর ঘটনার তীব্র নিন্দা করলেন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী প্রকাশ জাভরেকর। কংগ্রেস, আপ, বাম পন্থী দল গুলি দেশজুড়ে, বিশেষত বিশ্ববিদ্য়ালয়ে হিংসার পরিবেশ তৈরি করছে। সঠিক তদন্তের প্রয়োজন বললেন কেন্দ্রীয় পরিবেশ মন্ত্রী।

First published: 12:51:59 PM Jan 06, 2020
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर