• Home
  • »
  • News
  • »
  • national
  • »
  • OVER 10 LAKH CORONA VACCINE TO RIL EMPLOYEES AND THEIR FAMILIES UNDER RELIANCE FOUNDATION VACCINATION MISSION PBD

Reliance Foundation Vaccination Mission: ১০ লক্ষেরও বেশি RIL কর্মী ও তাদের পরিবারের টিকাকরণ পরিচালনা করেছে রিলায়েন্স ফাউন্ডেশন

Reliance Foundation

ইতিমধ্যেই প্রায় ৯৮ শতাংশ কর্মীর টিকাকরণ সম্পন্ন হয়েছে৷

  • Share this:

    #মুম্বই: করোনা কালে কর্মীদের সুরক্ষা ব্যবস্থায় এগিয়ে এসেছে রিলায়েন্স ফাউন্ডেশন৷ রিলায়েন্স ফাউন্ডেশন ভ্যাক্সিনেশন মিশনের আওতায় ১০ লক্ষেরও বেশি RIL কর্মী ও তাদের পরিবারের টিকাকরণ পরিচালনা করেছে রিলায়েন্স ফাউন্ডেশন৷ শুধুমাত্র কর্মীদের সুরক্ষার কথা ভেবেই নয়, সংস্থার সামাজিক দায়িত্ব হিসেবে মিশন ভ্যাকসিন সুরক্ষার উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে এপ্রিল মাসে৷ এতে কর্মীদের পরিবার সহ সাধারণ মানুষের জন্যও রয়েছে বিনামূল্যে টিকাকরণের সুযোগ৷

    দেশে করোনার যা পরিস্থিতি তাতে গণ টিকাকরণই একমাত্র পথ৷ জানাচ্ছেন চিকিৎসকরা৷ সরকার ও চিকিৎসকদের মতামতকে গুরুত্ব দিয়ে টিকাকরণের পথে হেঁটেছে রিলায়েন্স ফাউন্ডেশন৷ সংস্থার সমস্ত কর্মী ও তাদের পরিবারের সদস্যদের বিনামূল্য টিকার ব্যবস্থা করেছে সংস্থা৷

    গত মাসে বার্ষিক সাধারণ সভায়(Annual General Meeting) রিলায়েন্স ফাউন্ডেশনের চেয়ারপার্সেন শ্রীমতী নীতা আম্বানি জানান যে, দেশের মানুষকে টিকাকরণের দায়িত্ব রয়েছে৷ বিপুল জনসংখ্যায় টিকাকরণ খুবই কঠিন কাজ, তবে দেশের মানুষের প্রতি তাঁরা দায়বদ্ধ বলে জানিয়েছেন তিনি৷ একসঙ্গে এই লড়াই করেই আসবে জয়, মত নীতা আম্বানির৷

    ইতিমধ্যেই প্রায় ৯৮ শতাংশ কর্মীর টিকাকরণ সম্পন্ন হয়েছে৷ প্রথম ডোজ পেয়ে গিয়েছেন সকলেই৷ মিশন ভ্যাকসিন সুরক্ষা উদ্যোগে ১০ লক্ষেরও বেশি টিকাকরণ হয়েছে৷ যার মধ্যে কর্মী ও তাদের পরিবার রয়েছে৷ ১৭১টি ভ্যাকসিন সেন্টার তৈরি হয়েছে দেশের বিভিন্ন প্রান্তে যেখান থেকে কর্মীরা পাচ্ছেন কোভিড ১৯ ভ্যাকসিন৷ রিলায়েন্সের সহকারী সংস্থার কর্মীরা যেমন পাচ্ছেন এই সুযোগ তেমন অবসরপ্রাপ্ত কর্মীরাও রয়েছেন এই তালিকায়৷

    এছাড়াও বিভিন্ন এনজিওর মাধ্যমে করোনা টিকাকরণের পদক্ষেপ নিয়েছে রিলায়েন্স ফাউন্ডেশন৷ এর জন্য ১০ লক্ষ ডোজ ইতিমধ্যে সরবরাহ করা হয়েছে৷ এরফলে সংস্থার কর্মী এবং সংস্থার বাইরেও সাধারণ মানুষের জন্য এগিয়ে এসেছে রিলায়েন্স ফাউন্ডেশন৷

    এই উদ্যোগে খুবই গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা নিয়েছে শ্রী এইচ এন রিলায়েন্স ফাউন্ডেশন হাসপাতাল৷ সরকারি নির্দেশিকা মেনে চলেছে টিকাকরণ পদ্ধতি৷ জিও হেল্থ হাব ডিজিটাল হেল্থ প্ল্যাটফর্মের মাধ্যমে ভ্যাকসিনের স্লট বুকিং এবং সার্টিফিকেট মিলেছে পুরোপুরি ডিজিটাল পদ্ধতিতে৷

    সরকার বেসরকারি সংস্থাকে টিকাকরণের অনুমতি দেওয়ার পরই শুরু হয়েছে কাজ৷ দ্রুত এবং ব্যাপক হারে টিকাকরণের ফলে কর্মীদের সুরক্ষার বিষয়টি যেমন নিশ্চিত করা গিয়েছে তেমনই সরকারি স্বাস্থ্য ব্যবস্থার উপরও চাপ কিছুটা কমানো গিয়েছে৷ এভাবেই দেশে করোনা মোকাবিলায় গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা নিয়েছে রিলায়েন্স ফাউন্ডেশন৷ তবে শুধু টিকাকরণের ব্যবস্থা নয়, বিনামূল্যে অক্সিজেন, ২হাজারের উপর কোভিড কেয়ার বেড, সাড়ে সাত কোটি দুঃস্থ মানুষের খাবার এবং ১ কোটিরও বেশি মাস্ক বিলির মাধ্যমে তাদের সামাজিক দায়িত্ব পালন করে চলেছে এই সংস্থা৷ ২০১৯-২০তে দেশের মোট সিএসআর-এর ৪ শতাংশ অবদান রয়েছে রিলায়েন্স ফাউন্ডেশনের৷ এরফেল আগামিদিনে করোনার সঙ্গে চ্যালেঞ্জের জন্য প্রস্তুতিতে রিলায়েন্স ফাউন্ডেশনের অবদান অনস্বীকার্য৷

    Published by:Pooja Basu
    First published: