দেশ

corona virus btn
corona virus btn
Loading

মহিলারাই গাড়ি চালিয়ে নোংরা তুলতে যাচ্ছেন বাড়ি বাড়ি, ওড়িশার কোটপাড়ে অভিনব উদ্যোগ সরকারের

মহিলারাই গাড়ি চালিয়ে নোংরা তুলতে যাচ্ছেন বাড়ি বাড়ি, ওড়িশার কোটপাড়ে অভিনব উদ্যোগ সরকারের

এই বিষয়টি ট্যুইট করে জানায় কেন্দ্রীয় গৃহ ও নগর উন্নয়ন মন্ত্রক

  • Share this:

#কোটপাড়: রাস্তাঘাট পরিষ্কার রাখতে সকলের বাড়িতেই অনেক এলাকায় সকাল সকাল কর্পোরেশনের গাড়ি আসে নোংরা নিতে। প্রায় সব ক্ষেত্রেই গাড়ির চালকের আসনে দেখা যায় পুরুষদের। সহযোগী হিসেবে হয়তো মহিলারা থাকেন। কিন্তু ওড়িশার (Odisha) এই এলাকায় মহিলারাই যান নোংরা তুলতে। অবাক লাগলেও মহিলারাই কর্পোরেশনের গাড়িটিও চালান। এলাকার প্রায় সাড়ে চার হাজার বাড়িতে পৌঁছে যান তাঁরা।

ওড়িশার কোটপাড় (Kotpad) এলাকা মূলত শাড়িশিল্পের জন্য বিখ্যাত হলেও এখন থেকে এর পরিচিতি বাড়ল আরও এক ক্ষেত্রে। মহিলাদের উন্নয়ন ও বিকাশের জন্য কোটপাড় NAC (Kotpad NAC)-র তরফে সেল্ফ হেল্প গ্রুপের চার জন মহিলাকে ব্যাটারিচালিত গাড়ি চালানোর ট্রেনিং দেওয়া হয়। ট্রেনিং পাওয়ার পর তাঁদের বাড়ি বাড়ি গিয়ে আবর্জনা নিয়ে আসার এই কাজে যুক্ত করা হয়। আর এখান থেকেই শুরু হয় তাঁদের যাত্রা। বর্তমানে সাড়ে চার হাজার বাড়িতে গিয়ে গিয়ে তাঁরা নোংরা নিয়ে আসেন।

এ বিষয়ে কোটপাড় NAC (Kotpad NAC)-র তরফে জানানো হয়, মহিলাদের উন্নয়ন ও চাকরির উপরে অনেক দিক থেকেই নির্ভর করে নারী ক্ষমতায়ণের (Women Empowerment) বিষয়টি। ফলে এলাকার নারীদের কর্মসংস্থানের দিকে আগে নজর দেওয়া দরকার।

গতকাল পুরো বিষয়টি ট্যুইট করে জানায় কেন্দ্রীয় গৃহ ও নগর উন্নয়ন মন্ত্রক (Ministry Of Housing And Urban Affairs)।

ওড়িশার একদম শেষপ্রান্তে কোরাপুট জেলায় রয়েছে এই কোটপাড় অঞ্চল। পাশে রয়েছে ছত্তিসগড়ের (Chhattisgarh) জগদলপুর। ফলে এই এলাকা ওড়িশার ব্যবসা-বাণিজ্যের ক্ষেত্রেও একটি গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে। কেন্দ্রীয় গৃহ ও নগর উন্নয়ন মন্ত্রক ও প্রশাসনের তরফে এই উদ্যোগ আর তার চিন্তাভাবনা প্রসঙ্গে জানানো হয়, মহিলাদের আরও বেশি করে কাজে নিয়োগ করে, তাঁদের স্বনির্ভর করতে ও স্বচ্ছ ভারতের অধীনে এনে এলাকা পরিষ্কার রাখতে এই পদক্ষেপ করা হয়েছে।

বিষয়টি জানিয়ে গতকাল একটি ট্যুইট করে গ্রিন ক্লিন ইন্ডিয়াও (GreenCleanIndia)।

করোনার জেরে দেশের অন্যান্য রাজ্যের মতোই পরিস্থিতি ওড়িশারও। চাকরি চলে গিয়েছে বহু মানুষের। এই রাজ্যের মধ্যে অন্যতম ক্ষতিগ্রস্ত এই কোরাপুট (Koraput) জেলা। পাশাপাশি পরিযায়ী শ্রমিক সমস্যাও রয়েছে। মার্চের লকডাউনের পর বহু শ্রমিক ফিরে এসেছেন রাজ্যে। বিজনেস স্ট্যান্ডার্ডের রিপোর্ট অনুযায়ী, এই রাজ্যে ২.৫ মিলিয়নেরও বেশি পরিযায়ী শ্রমিক ফিরেছেন। যার ফলে কাজের চাহিদা বেড়েছে। অনেক মহিলাই রয়েছেন, যাঁদের স্বামীর কাজ নেই, তাঁদের রোজগারেই সংসার চলছে। তাই এই পরিস্থিতিতে নতুন করে কোনও কর্মসংস্থান হওয়া, বিশেষ করে মহিলাদের, অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ ও প্রশংসনীয় পদক্ষেপ বলে মনে করছেন অনেকে।

Published by: Ananya Chakraborty
First published: December 3, 2020, 12:13 AM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर