Home /News /national /
Angada Kanhar | Odisha: এ যেন 'পঞ্চায়েত থ্রি'! বয়সকে তুড়ি মেরে বোর্ড পরীক্ষায় ৫৮-র বিধায়ক! পেলেন দুর্দান্ত নম্বর!

Angada Kanhar | Odisha: এ যেন 'পঞ্চায়েত থ্রি'! বয়সকে তুড়ি মেরে বোর্ড পরীক্ষায় ৫৮-র বিধায়ক! পেলেন দুর্দান্ত নম্বর!

বয়স শুধুই সংখ্যা...

বয়স শুধুই সংখ্যা...

Angada Kanhar | Odisha: ১৯৭৮ সালে পড়াশোনা ছাড়তে হয়েছিল অঙ্গদ কানহারকে। ৪০ বছর পর পরীক্ষার হলে ওড়িশার ফুলবনির বিজু জনতা দলের (BJD) বিধায়ক...

  • Share this:

    #ফুলবনি: একদিন মাঝপথেই ছেড়েছিলেন পড়াশোনা। ৪০ বছর পর ফের মাধ্যমিকে বসলেন ওড়িশার বিধায়ক (Angada Kanhar|Odisha)। শুধু বসলেনই না। ৭২ শতাংশ নম্বর নিয়ে পরীক্ষায় সসম্মানে কৃতকার্য হলেন ওড়িশার ফুলবনির (Phulbani) ৫৮ বছরের বিজু জনতা দলের (BJD) বিধায়ক অঙ্গদ কানহার। পারিবারিক কারণে বেশিদূর পড়াশোনা করা হয়নি। তারপর রাজনীতিতে যোগ দিয়ে আজ তিনি বিধায়ক। ৪০ বছর পর তিনিই বসলেন মাধ্যমিক পরীক্ষায় (Class 10th Exam)। আর প্রমাণ করে দেখালেন শেখার জন্য বয়স কোনও বাধা নয়।"

    ওড়িশা মধ্যশিক্ষা বোর্ডের ম্যাট্রিক পরীক্ষায় পাশ করলেন ৫৮ বছর বয়সি অঙ্গদ। এক বন্ধুর সঙ্গে কানহার রুজঙ্গি উচ্চ বিদ্যালয়ে ইংরেজি ভাষার পরীক্ষায় বসেছিলেন অঙ্গদ কানহার। পারিবারিক কারণে ১৯৭৮ সালে পড়াশোনা ছাড়তে হয়েছিল অঙ্গদ কানহারকে (Angada Kanhar|Odisha)।

    ৪০ বছর পর পরীক্ষার হলে প্রবেশের আগে কানহার বলেছিলেন, "আমি ১৯৭৮ সালে আমার ক্লাস টেনে ছিলাম, কিন্তু কিছু পারিবারিক সমস্যার কারণে পরীক্ষা দিতে পারিনি। সম্প্রতি, আমাকে বলা হয়েছিল যে ৫০ বা তার বেশি বয়সের অনেকে পরীক্ষায় অংশ নিচ্ছে। তাই আমিও বোর্ডের পরীক্ষায় বসার সিদ্ধান্ত নিয়েছি। পরীক্ষায় বসতে বা শিক্ষিত হতে বয়সের কোনও বাধা নেই।"

    আরও পড়ুন : 'সবচেয়ে বিশিষ্ট বাম নেতা' জ্যোতি বসুর জন্মদিন, আজ থেকেই 'বড়' কাজ শুরু CPIM-এর!

    আরও পড়ুন : 'টোপ' ফেলে প্রতারক পাকড়াও! খাস কলকাতায় সরকারি অফিসেই রমরমিয়ে জালিয়াতি চক্র? সতর্ক থাকুন!

    কানহার (MLA Angada Kanhar) একমাত্র রাজনীতিবিদ নন, তাঁরই সঙ্গে পরীক্ষায় বসেন তাঁর এক বন্ধুও। যিনি আবার পঞ্চায়েত প্রধান। মোট ৬৩ জন বয়স্ক ব্যক্তি এই পরীক্ষায় বসেন। পরীক্ষার ফল প্রকাশ হতে দেখা গেল অঙ্গদ কানহার রীতিমত ভালো ফল করেছেন বোর্ড পরীক্ষায়। ফুলবনির বিধায়ক অঙ্গদা কানহার ৭২% নম্বর নিয়ে দশম শ্রেণীর বোর্ড পরীক্ষা উত্তীর্ণ হয়েছেন। তিনি বলেন, "আমি খুশি যে আমি দশমের পরীক্ষায় ভালো নম্বর নিয়ে পাস করেছি। শিক্ষা অর্জনের বা নতুন কিছু শেখার কোনও বয়স নেই।"

    Published by:Sanjukta Sarkar
    First published:

    Tags: BJD, MLA, Odisha

    পরবর্তী খবর