Home /News /national /
Nipah Virus: করোনার মধ্যে নতুন আতঙ্ক, মহাবালেশ্বরে বাদুড়ের শরীরে মিলল ভয়াবহ নিপা ভাইরাস

Nipah Virus: করোনার মধ্যে নতুন আতঙ্ক, মহাবালেশ্বরে বাদুড়ের শরীরে মিলল ভয়াবহ নিপা ভাইরাস

Nipah Virus Antibodies in Bats: বিশ্বের যে ১০ টি ভাইরাস মারাত্মক মহামারীর তৈরি করতে পারে বলে চিহ্নিত করেছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা, তার মধ্যে অন্যতম নিপা ভাইরাস (Nipah Virus in India)

  • Share this:

    #মহাবালেশ্বর: করোনা ভাইরাসের দ্বিতীয় ঢেউ সামলে সুস্থ হচ্ছে গোটা দেশ। ধীরে ধীরে কমতে শুরু করেছে আক্রান্ত ও মৃতের সংখ্যা। কিন্তু এরই মধ্যে হাজির আরও এক মারণ ভাইরাস। আর উৎস সেই বাদুড়। বিশ্বের সব থেকে মারাত্মক মহামারী তৈরি করা ভাইরাসগুলির তালিকা প্রথম দশে আছে এই নিপা ভাইরাস (Nipah virus) । মহারাষ্ট্রের সাতারা জেলার মহাবালেশ্বর গুহায় (Mahabaleshwar Cave) দুই বাদুড়ের (Bats) সন্ধান মিলেছে। আর এই বাদুড়ের শরীরে পাওয়া গিয়েছে নিপা ভাইরাসের হদিশ। পুনের ‘ন্যাশনাল ইনস্টিটিউট অফ ভাইরোলজি’-র (NIV), এক গবেষণায় সেই তথ্য প্রকাশিত হয়েছে। এখন পর্যন্ত আজ পর্যন্ত মোট চারবার নিপার সংক্রমণ দেখেছে ভারত। তবে মহারাষ্ট্রে এই প্রথম নিপা ভাইরাস এর সন্ধান মিলল। কোন ভ্যাক্সিন বা ওষুধ না হওয়ার কারণে নিপা ভাইরাসকে বেশি মারাত্মক বলা হয়। নিপাহ ভাইরাসে মৃত্যুর হার অনেক বেশি।

    ২০২০-তে মহাবালেশ্বরের একটি গুহায় দুই ধরনের প্রজাতির বাদুড় ধরেন গবেষকরা - Rousettus leschenaultii আর Pipistrellus pipistrellus। তাদের রক্ত, গলা লালারসের সংগ্রহ করা হয়। ল্যাব গবেষণার সময় ৩৩ leschenaultii আর ১ Pipistrellus-এর বাদুড়ের শরীরে নিপা ভাইরাসের উপস্থিতি লক্ষ্য করা যায়। NIV-র গবেষণা থেকে প্রাপ্ত ফলাফলগুলি ‘জার্নাল অফ ইনফেকশন অ্যান্ড পাবলিক হেল্থ’ নামক একটি জার্নালে এই গবেষণার তথ্য প্রকাশিত হয়েছে।

    টাইমস অফ ইন্ডিয়া-কে দেওয়া সাক্ষাৎকারে মুখ্য গবেষক ড. প্রজ্ঞা যাদব জানিয়েছেন, এর আগে মহারাষ্ট্রে কখনও নিপা ভাইরাস সংক্রামিত বাদুড় দেখা যায়নি। ভারতের বেশির ভাগ রাজ্যে সেখানে করোনায় মৃত্যুর হার এক থেকে দুই শতাংশ, সেখানে নিপাহ ভাইরাসে সংক্রমণের হার ৬৫ থেকে ১০০ শতাংশ।

    গত ২০ বছরে ভারতে চারবার নিপা ভাইরাসের (Nipah virus) প্রাদুর্ভাব ঘটেছে। পশ্চিমবঙ্গের শিলিগুড়িতে ২০০১ সালে প্রথমবার এই ভাইরাসের প্রাদুর্ভাব দেখা দিয়েছিল।রে নদিয়া জেলায় ২০০৭ সালে ফের একবার মেলে নিপা। রিপোর্ট অনুযায়ী, অসমের ময়নাগুড়ি, দুবড়ি কিংবা পশ্চিমবঙ্গের কোচবিহারে অনেক বাদুড়ের শরীরেই নিপা ভাইরাসের অ্যান্টিবডি পাওয়া গিয়েছিল। এই দুটি জায়গায়ই ভারত-বাংলাদেশ সীমান্তবর্তী এলাকা।

    এর পরে ২০১৮ সালে নিপা ভাইরাসের কারণে মৃত্যু হয় ১৮ জনের। আর ২০১৯ সালেও বেশ কয়েকটি রাজ্যে নিপা ভাইরাসের কেশ দেখা গিয়েছিল। ২০১৮ সালে একটি সমীক্ষায় দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ার বেশ কয়েকটি দেশকে NiV রোগের হটস্পট হিসাবে চিহ্নিত করা হয়েছিল। তার মধ্যে অনেক গুলি ভারতীয় রাজ্যের নামও ছিল।

    Published by:Ananya Chakraborty
    First published:

    Tags: Bats, Maharashtra, Nipah virus

    পরবর্তী খবর