• Home
  • »
  • News
  • »
  • national
  • »
  • অমিত শাহ ও হিন্দু ধর্ম নিয়ে অশ্লীল মন্তব্য! গ্রেফতার কৌতুক অভিনেতা

অমিত শাহ ও হিন্দু ধর্ম নিয়ে অশ্লীল মন্তব্য! গ্রেফতার কৌতুক অভিনেতা

হিন্দুদের ধর্মকে 'অপমান' এবং কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র মন্ত্রী অমিত শাহ সম্পর্কে 'অশ্লীল মন্তব্য' করার অভিযোগ উঠেছে মুসলিম কৌতুক অভিনেতার বিরুদ্ধে।

হিন্দুদের ধর্মকে 'অপমান' এবং কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র মন্ত্রী অমিত শাহ সম্পর্কে 'অশ্লীল মন্তব্য' করার অভিযোগ উঠেছে মুসলিম কৌতুক অভিনেতার বিরুদ্ধে।

হিন্দুদের ধর্মকে 'অপমান' এবং কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র মন্ত্রী অমিত শাহ সম্পর্কে 'অশ্লীল মন্তব্য' করার অভিযোগ উঠেছে মুসলিম কৌতুক অভিনেতার বিরুদ্ধে।

  • Share this:

    #ভোপাল: বর্ষবরণের দিন মুম্বইয়ের এক কৌতুক অভিনেতাকে (স্ট্যান্ডআপ কমেডিয়ান) শো চলাকালীন গ্রেফতার করেছে পুলিশ। হিন্দুদের ধর্মকে 'অপমান' এবং কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ সম্পর্কে 'অশ্লীল মন্তব্য' করার অভিযোগ উঠেছে তাঁর বিরুদ্ধে। ঘটনাটি ঘটেছে ইন্দোরের একটি ক্যাফেতে কমেডি শো চলাকালীন।

    নতুন বছরকে স্বাগত জানানোর উদ্দ্যেশে ইন্দোরের জনপ্রিয় ফাইভ ডি এলাকার একটি ক্যাফেতে কমেডি শো আয়োজন করা হয়েছিল। ওই অনুষ্ঠানের বিশেষ আকর্ষন ছিলেন মুনাওয়ার ফারুকী। ওই দিন রাতে স্পেশাল শো করার জন্য তাঁকে আমন্ত্রণ করা হয়েছিল। কিন্তু শো শুরুর কিছু ক্ষণের মধ্যেই বিজেপি দলের কিছু সদস্য অনুষ্ঠান বন্ধ করে দেয়। কেবল ফারুকী নয়, ওই শো-এর সঙ্গে যুক্ত আরও চার জন- প্রখর ভায়াস, প্রিয়ম ভায়াস, নলিন যাদব এবং শো-কোঅর্ডিনেটর এডউইন অ্যানথনিকে পুলিশের হাতে তুলে দেয় বিজেপি সংগঠনের নেতারা।

    হিন্দুরক্ষা সংঘের সদস্য এবং বিজেপি বিধায়ক মালিনী গৌরের ছেলে একলব্য গৌর ফারুকীর বিরুদ্ধে এই অভিযোগ এনেছেন। তিনি বলেছেন, "মুনাওয়ার ফারুকী একজন অপরাধী। অতীতে সে হামেশাই বিভিন্ন শো-তে হিন্দু ধর্মকে তুচ্ছ এবং ব্যঙ্গ করেছেন। আমরা যখন এই অনুষ্ঠানটি সম্পর্কে জানতে পারলাম তখন আমরাও শো-এর টিকিট কিনেছিলাম। শো চলাকালীন ফারুকী হিন্দু ধর্মকে টেনে নিয়ে শুধু ব্যঙ্গ করেননি, তিনি আমাদের কেন্দ্রের স্বরাষ্ট্র মন্ত্রী অমিত শাহ'কেও অপমান করেছে। আমরা ইভেন্টটি তৎক্ষনাৎ থামিয়ে দি। দর্শকদের বাইরে নিয়ে যাই। তারপরেই ফারুকী ও ইভেন্টের আয়োজকদের স্থানীয় থানায় নিয়ে গিয়েছিলাম। তাঁদের বিরুদ্ধে পুলিশের কাছে এফআইআর করি।’’

    গৌর কমেডি শো-এর একটি ভিডিও ফুটেজও জমা দিয়েছেন। ফারুকী এবং তাঁর চার বন্ধু এখন পুলিশ হেফাজতে রয়েছে। ঘটনাটির তদন্ত করছে পুলিশ।

    ইন্দোরের টুকোগঞ্জ থানার একজন কর্মকর্তা কলমেশ শর্মা বলেছেন, "অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে আইনি মামলা করা হয়েছে। এই বিষয়টিকে তাঁরা খতিয়ে দেখছে। কোভিড১৯-এর বিধি লঙ্ঘন করা এবং হিন্দুদের ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাত করার অভিযোগ করা হয়েছে"।

    Published by:Somosree Das
    First published: