Home /News /national /
Marathi-Gujarati Debate: "ক'জন মারাঠি বড়লোক হয়েছেন?" মারোয়াড়ি-গুজরাতি বিতর্কে রাজ্যপালের পাশে বিজেপি নেতা!

Marathi-Gujarati Debate: "ক'জন মারাঠি বড়লোক হয়েছেন?" মারোয়াড়ি-গুজরাতি বিতর্কে রাজ্যপালের পাশে বিজেপি নেতা!

Maharashtra Governor BS Koshyari

Maharashtra Governor BS Koshyari

Maharashtra Governor BS Koshyari: মহারাষ্ট্র থেকে যদি রাজস্থানি এবং গুজরাতিদের সরিয়ে দেওয়া হয়, তাহলে মুম্বই আর ভারতের আর্থিক রাজধানী থাকবে না, মন্তব্য মহারাষ্ট্রের গভর্নর ভগত সিং কোশিয়ারির

  • Share this:

    #মুম্বই: মহারাষ্ট্র থেকে যদি রাজস্থানি এবং গুজরাতিদের সরিয়ে দেওয়া হয়, তাহলে মুম্বই আর ভারতের আর্থিক রাজধানী থাকবে না। সম্প্রতি এমনই মন্তব্য করে বিতর্কে জড়িয়েছেন মহারাষ্ট্রের রাজ্যপাল ভগত সিং কোশিয়ারি। শিবসেনা, কংগ্রেস এবং জাতীয়তাবাদী কংগ্রেস দল সর্বসম্মতভাবে বিবৃতিটির নিন্দা করেছে। শিবসেনা জানিয়েছে, মহারাষ্ট্রের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী উদ্ধব ঠাকরে এই বিষয়ে একটি সাংবাদিক সম্মেলনে বক্তব্য রাখবেন।

    বিজেপি নেতা নীতেশ রানে বিতর্কে ইন্ধন যোগ করে জানিয়েছেন, রাজ্যপালের মন্তব্য অপমানজনক ছিল না। মাড়োয়ারিদের অবদানের কৃতিত্বের জন্যই এই কথা বলেছেন তিনি। “কতজন মারাঠিরা রাজ্যকে বড় করেছে বা বড়লোক হয়েছে? কতজন মারাঠি যুবক BMC চুক্তি পেয়েছে?,” বলেন বিজেপি নেতা। মুম্বইয়ের একটি অস্থায়ী কোভিড কেন্দ্রের একটি সংবাদ প্রতিবেদন শেয়ার করে বিজেপি নেতা প্রশ্ন করেন, “কেন এটি একজন মারাঠি ব্যবসায়ীকে দেওয়া হয়নি?”

    আরও পড়ুন- “ক্যামাক স্ট্রিট বসার জায়গা নয়": টেট চাকরি প্রার্থীদের উদ্দেশ্য কুণাল ঘোষ

    জাতীয়তাবাদী কংগ্রেস পার্টির নেতা সুপ্রিয়া সুলে জানিয়েছেন, মুম্বইয়ে প্রথম অধিকার সেই মারাঠিদেরই যারা শহরটি তৈরি করেছেন এবং অখণ্ড মহারাষ্ট্রের লক্ষ্যে সংগ্রামে রক্তপাত করেছেন। “একজন মারাঠি হিসাবে” রাজ্যপালের বক্তব্যের নিন্দা জানিয়ে ট্যুইট করে সুপ্রিয়া সুলে বলেন, “রাজ্যপালের এই বিবৃতি সেই শহিদদের অপমান করেছে যাঁরা তাঁদের শ্রম দিয়ে শহরটি তৈরি করেছেন। মুম্বইয়ে প্রথম অধিকার রয়েছে তাঁদের সবারই যাঁরা এই মাটিতে জন্মগ্রহণ করেছেন এবং শহরকে ভালবাসেন, তাঁদের জন্য এটি আমচি মুম্বই।”

    মারাঠাদের গর্বকে ‘আহত’ করার জন্য রাজ্যপালের ক্ষমা চাওয়ার দাবি জানিয়েছে শিবসেনা। দলটি মুখ্যমন্ত্রী একনাথ শিন্ডের নিন্দাও দাবি করেছে। “মুখ্যমন্ত্রী শিন্ডে অন্তত রাজ্যপালের নিন্দা করুন। এটি কঠোর পরিশ্রমী মারাঠি মানুষের অপমান,” বলেন সঞ্জয় রাউত।

    আরও পড়ুন- সোমবার SSC নিয়োগ নিয়ে সিদ্ধান্ত? মন্ত্রিসভার বৈঠকের আগেই সভা ডাকলেন ব্রাত্য বসু

    রাজ্যপাল মুম্বইয়ের আন্ধেরিতে প্রয়াত শান্তিদেবী চম্পালালজি কোঠারির নামে একটি চকের উদ্বোধন করার সময় এই মন্তব্য করেছিলেন। অনুষ্ঠানে বক্তৃতাকালে, রাজ্যপাল মারোয়াড়ি গুজরাতি সম্প্রদায়ের প্রশংসা করেন এবং জানান তাঁরা যেখানেই যান, হাসপাতাল, স্কুল ইত্যাদি তৈরি করে জায়গাটির উন্নয়নে অবদান রাখেন।

    Published by:Madhurima Dutta
    First published:

    Tags: Gujrat, Maharashtra

    পরবর্তী খবর