পরিবারের অমতে বিয়ে করায় দম্পতিকে অর্ধনগ্ন করে মার, খাওয়ানো হল প্রস্রাব

পরিবারের অমতে বিয়ে করায় দম্পতিকে অর্ধনগ্ন করে মার, খাওয়ানো হল প্রস্রাব
Representative Image

অপরাধ বলতে শুধু এটুই, ভালবেসে বিয়ে ৷ পরিবারের অমতে বিয়ে করায় চরম লাঞ্ছনার শিকার নবদম্পতি।

  • Share this:

#ভোপাল: অপরাধ বলতে শুধু এটুই, ভালবেসে বিয়ে ৷ পরিবারের অমতে বিয়ে করায় চরম লাঞ্ছনার শিকার নবদম্পতি। নতুন জামাইকে বেঁধে বেধড়ক মার শ্বশুরবাড়ির লোকেদের। রেয়াত করা হল না ঘরের মেয়েকেও। প্রকাশ্যেই তাঁর শাড়ি খুলে কাটা হল চুল। দুজনকেই খাওয়ানো হল প্রস্রাব। এমনই নৃশংস ঘটনা ঘটেথে মধ্যপ্রদেশে ৷ ঘটনায় দুজনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। বাকি চার অভিযুক্তের খোঁজে তল্লাশি চলছে।

একই গ্রামের ছেলের সঙ্গে প্রেম। বাড়ির অমতে পালিয়ে বিয়ে। স্রেফ এই কারণেই নবদম্পতির উপর অকথ্য অত্যাচার শুরু করে মেয়ের বাড়ির লোকজনেরা। প্রথমে নবদম্পতিকে জোর করে তুলে আনা হয় বাড়ি থেকে তুলে আনেন মেয়ের বাড়ির লোকেরা। এরপর জামাইকে বেঁধে শুরু হয় মার। একইসঙ্গে, মেয়েকে অর্ধনগ্ন করে কেটে দেওয়া হয় তাঁর চুল। এতেই শেষ নয়, দুজনকেই জোর করে খাওয়ানো হয় প্রস্রাব। পুরো ঘটনাটি ভিডিও করেও তুলে রাখে অভিযুক্তরা ৷

আরও পড়ুন 

অসম NRC: বাদ পড়া ৪০ লাখ মানুষের কাছে ফের নাম তোলার ‘সুযোগ’!

৩১ জুলাই সোশাল নেটওয়ার্কে এই ঘটনা চাউর হতেই নড়েচড়ে বসে পুলিশ। নববধূর বাবা ও কাকা সহ ছ’জনের বিরুদ্ধে দায়ের হয় অভিযোগ। মধ্যপ্রদেশের এই এলাকা আদিবাসী অধ্যুষিত। বিয়ের পর কনেপণ দেওয়াটাই এখানকার নিয়ম। আক্রান্ত নবদম্পতির দাবি, প্রথা মেনে কনের পরিবারকে ৭০ হাজার টাকা ও দুটি ছাগল পণ হিসাবে দেয় বরপক্ষ। তারপরও এমন ঘটনায় বিধ্বস্ত ওই যুগল।

আরও পড়ুন 

‘যৌনতায় সক্ষম’, প্রমাণ করতে এই যুবক যা করলেন জানলে চমকে উঠবেন

First published: 09:42:52 AM Aug 02, 2018
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर