• Home
  • »
  • News
  • »
  • national
  • »
  • KUNAL GHOSH BRATYA BASU DOLA SEN IN TRIPURA TO PROTEST AGAINST ATTACKED ON YOUTH LEADER DEBANGSHU BHATTACHARYA SUDIP RAHA JAYA DUTTA SB

Kunal Ghosh Bratya Basu Dola Sen: ত্রিপুরার 'জঙ্গলরাজে' ফের পা কুণাল-দোলাদের, মমতার সফর-জল্পনা ব্রাত্যর মুখে

ত্রিপুরা যাবেন মমতাও?

Kunal Ghosh Bratya Basu Dola Sen: ফের ত্রিপুরায় পা রাখছেন তৃণমূলের সর্বভারতীয় সাধারণ সম্পাদক অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়। যদিও তার আগেই ত্রিপুরা পৌঁছে গিয়েছেন কুণাল ঘোষ, ব্রাত্য বসু এবং দোলা সেন।

  • Share this:

    #আগরতলা: বিজেপি কর্মীরা তাঁদের উপর হামলা করেছে এই অভিযোগে শনিবার রাত থেকেই ত্রিপুরার খোয়াই থানায় অবস্থান বিক্ষোভ করছিলেন তৃণমূল কংগ্রেসের যুব নেতা দেবাংশু ভট্টাচার্য, সুদীপ রাহা, জয়া দত্তরা। আর রবিবার ভোরে তাদের গ্রেফতার করেছে পুলিশ। মহামারী আইন ভঙ্গ করা হয়েছে এই অভিযোগেই ১১ জন তৃণমূল নেতাকে গ্রেফতার করা হয়েছে। সূত্রের খবর, বেলা ১১টায় তাদের কোর্টে পেশ করা হবে। এই পরিস্থিতিতে ফের ত্রিপুরায় পা রাখছেন তৃণমূলের সর্বভারতীয় সাধারণ সম্পাদক অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়। যদিও তার আগেই ত্রিপুরা পৌঁছে গিয়েছেন কুণাল ঘোষ, ব্রাত্য বসু এবং দোলা সেন। এবারের সফরে নতুন মুখ দোলা। আসলে আন্দোলনের সুর চড়াতে দোলাকেও এবার ত্রিপুরায় কাজে লাগাতে চাইছে তৃণমূল।

    দোলার কথায়, 'ত্রিপুরায় আমাকেও অ্যারেস্ট করতে পারে। গণতান্ত্রিক দেশে সংবিধান ও মানুষই শেষ কথা বলে। ওরা যতই অত্যাচার করুক, ওরা শেষ কথা বলবে না। অত্যাচারীরা শেষ কথা বলে না। আমাদের কর্মীরা মার খেয়েছে আগে তাদের পাশে দাঁড়াতে হবে, পরে কর্মসূচি।'

    কুণালের অভিযোগ, 'ত্রিপুরার পরিস্থিতি খুব খারাপ আমাদের সহকর্মীরা কাল সারারাত অবরুদ্ধ ছিল, গুন্ডারা তাদের ফেরার রাস্তা অবরোধ করে রেখেছিল , আমাদের একাধিক পার্টি অফিস ভাঙা হয়েছে, ফ্লেক্স ব্যানার ছেড়া হয়েছে। আমরা যে হোটেলগুলোতে থাকি সেখানে গিয়ে হুমকি দেওয়া হয়েছে যাতে আমাদেরকে হোটেল না দেওয়া হয়। বেশি রাতে প্রত্যেকটি ট্রাভেল এজেন্সিকে হুমকি দেয়া হয়েছে যাতে গাড়ি না দেওয়া হয়, একটু আগে যা খবর পেয়েছি তাদেরকে অ্যারেস্ট করার চেষ্টা করছে। ত্রিপুরায় গণতন্ত্র বলে কিছু নেই। জঙ্গল রাজ চলছে। হেরে যাওয়ার ভয়ে বিজেপি এই পরিস্থিতি তৈরি করেছে।

    অপরদিকে, ব্রাত্য বসুরও অভিযোগ, 'কীভাবে ত্রিপুরায় বিরোধীদের ওপর জুলুমবাজি করা হচ্ছে, তা গোটা দেশ দেখতে পাচ্ছে। ত্রিপুরা রাজ্য বিজেপি ভয় পাচ্ছে। আমরা গণ আন্দোলন করা লোক। আমাদের মেরে ধরে ধমকিয়ে চমকিয়ে আটকানো যাবে না। এই জুলুম বাজি ত্রিপুরার মানুষ দেখছেন, বিরোধীদের কিভাবে কণ্ঠরোধ করা হচ্ছে। এটা একটা ভয়ঙ্কর ব্যাপার। আজ আমাদের নেতা অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় যাচ্ছেন, তেমন হলে আমাদের নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ও যাবেন। বিপ্লব দেবের দলবল জেনে রাখুক, এইভাবে কম বয়সী ছেলে-মেয়েদের মারধর করে, রক্তাক্ত করে আপনারা যে সারা দেশে কলঙ্ক স্থাপন করলেন তা মোছার নয়।'

    Published by:Suman Biswas
    First published: