গণতন্ত্র থেকে মুখ ফিরিয়েছে ভোটাররা! ৫০ বছরে ভোট পড়ল সবথেকে কম

নির্বাচন কমিশনের চেষ্টা, সেলিব্রিটিদের আবেদন সত্ত্বেও ভোট দিতে তেমন আগ্রহ দেখালেন না মহারাষ্ট্র ও হরিয়ানার ভোটাররা।

Bangla Editor | News18 Bangla
Updated:Oct 21, 2019 09:37 PM IST
গণতন্ত্র থেকে মুখ ফিরিয়েছে ভোটাররা! ৫০ বছরে ভোট পড়ল সবথেকে কম
Bangla Editor | News18 Bangla
Updated:Oct 21, 2019 09:37 PM IST

#নয়াদিল্লি: মোদি সরকারের দ্বিতীয় ইনিংসে প্রথম নির্বাচন। আর্টিক্যাল ৩৭০ ধারা প্রত্যাহার, অর্থনীতি মন্দায় জর্জরিত দেশ অন্যদিকে সীমান্তে পাকিস্তানকে জবাব ৷ জাতীয় গরমাগরম বিভিন্ন ইস্যুতে সরকারের শক্তি পরীক্ষা ৷ সীমান্তে উত্তেজনার আবহেই ভোটগ্রহণ মহারাষ্ট্র ও হরিয়ানায় । টানটান উত্তেজক এমন আবহে গণতন্ত্রের উৎসবের মজুদ ছিল সব রসদই, কিন্তু সব আয়োজনই গেল ব্যর্থ ৷ ভোটবাক্সে বার্তা দিতে এলেন না প্রায়ই কেউই ৷ ৫০ বছরে নির্বাচনের ইতিহাসে এদিন সবথেকে কম ভোট পড়ল হরিয়ানায় ৷ ভোটের হারে লজ্জায় ফেলেছে মহারাষ্ট্রও ৷ গত ৩৯ বছরের মধ্যে এত কম ভোট পড়েছে এদিনই ৷ হায় রে গণতন্ত্র!

নির্বাচন কমিশনের চেষ্টা, সেলিব্রিটিদের আবেদন সত্ত্বেও ভোট দিতে তেমন আগ্রহ দেখালেন না মহারাষ্ট্র ও হরিয়ানার ভোটাররা। নির্বাচন কমিশনের রিপোর্টে ফের আরও একবার লজ্জায় মুখ ঢাকল গণতন্ত্র ৷ সকাল থেকে সন্ধে পর্যন্ত হরিয়ানায় ভোট পড়েছে মাত্র ৬৩.৫৫ শতাংশ ৷ অর্থাৎ ৩৬ শতাংশেরও বেশি মানুষ নিজেদের সবথেকে বড় নাগরিক কর্তব্য পালনে ব্যর্থ ৷ এর আগে ১৯৬৮ সালে ভোট পড়েছিল মাত্র ৫৭.২৬ শতাংশ  ৷

মহারাষ্ট্রের মতদানের সংখ্যাও যথেষ্ট উদ্বেগজনক ৷ ভোট দিতে এলেন না গোটা রাজ্যের প্রায় অর্ধেক নাগরিক ৷ অর্থাৎ মহারাষ্ট্রের ভাগ্য নির্ধারণ হবে অর্ধেক নাগরিকদের ভোটে ৷ অর্থাৎ ৫০ শতাংশ জনমত প্রভাব ফেলল না ভোটবাক্সে ৷ মহারাষ্ট্রে সন্ধে অবধি ভোট পড়েছে ৫৬.৬৫ শতাংশ ৷ এর আগে ১৯৮০ সালের নির্বাচনেও মহারাষ্ট্রে ভোটদানের হার ছিল ৫৩.৩ শতাংশ ৷

২০১৯ সালের লোকসভা নির্বাচনে হরিয়ানায় ভোটদানের হার ছিল ৭০.৩৪ শতাংশ এবং মহারাষ্ট্রে ৬১.০২ শতাংশ ৷

হরিয়ানায় নথিভুক্ত ভোটারের সংখ্যা ১,৮৩,৯০,৫২৫ এবং মহারাষ্ট্রে মতদানের অধিকার রয়েছে ৮,৯৫,৬২,৭০৬ জনের ৷ ২০১৪ বিধানসভা নির্বাচনের তুলনায় এবার হরিয়ানার ৯০টি আসনে ভোটগ্রহণের জন্য তৈরি ছিল ১৯,৪২৫ পোলিং স্টেশন, যা আগের থেকে ১৯.৬ শতাংশ বেশি ৷ একইভাবে এবছর মহারাষ্ট্রেও পোলিং স্টেশনের সংখ্যা আগের তেকে ৬.৬ শতাংশ বাড়ানো হয়েছিল ৷ ভোটারদের জন্য তৈরি করা হয়েছিল ৯০,৪০৩টি ভোটকেন্দ্র ৷ তাতেও বুথমুখো করা যায়নি ভোটারদের ৷ কোটি কোটি টাকা ব্যয়ে আয়োজিত গণতন্ত্রের উৎসব আসলে ব্যর্থ ৷ভোটদান আর এখন নাগরিক কর্তব্য নয, বাড়তি যন্ত্রণা, তার থেকে বরং একটা নির্মল ছুটির দিন উপভোগ অনেক ভাল, বর্তমান প্রজন্মের ভোটারদের মানসিকতা এমন বলেই মত ভোট বিশেষজ্ঞদের ৷

Loading...

দুই রাজ্যেই ভোট ঘিরে বড় কোনও গন্ডগোল হয়নি। বেদ ও ঝালনায় এনসিপি ও শিবসেনা সমর্থকের মধ্যে সংঘর্ষে ৬ জন আহত হয়েছেন। রাজ্যেও ক্ষমতা ধরে রাখার ব্যাপারে আশাবাদী বিজেপি।

First published: 09:37:32 PM Oct 21, 2019
পুরো খবর পড়ুন
Loading...
अगली ख़बर