Home /News /national /
EXCLUSIVE: অরুণাচলে চিনা বাহিনীকে আটকে রাখল ভারতীয় সেনা, অনুপ্রবেশে কড়া পদক্ষেপ ভারতের

EXCLUSIVE: অরুণাচলে চিনা বাহিনীকে আটকে রাখল ভারতীয় সেনা, অনুপ্রবেশে কড়া পদক্ষেপ ভারতের

অরুণাচল প্রদেশের তাওয়াংয়ে অনুপ্রবেশ চিনা সেনার৷ Photo-PTI

অরুণাচল প্রদেশের তাওয়াংয়ে অনুপ্রবেশ চিনা সেনার৷ Photo-PTI

গত সপ্তাহে অরুণাচল প্রদেশের তাওয়াংয়ের বুম লা এবং ইয়াংটসের মধ্যে এই ঘটনা ঘটেছে৷ তিব্বতের দিক থেকে প্রকৃত নিয়ন্ত্রণরেখা পেরিয়ে ভারতীয় ভূখণ্ডে ঢুকে পড়ে প্রায় দুশো চিনা সেনা (Indian forces detain Chinese army in Arunachal Pradesh)৷

আরও পড়ুন...
  • Share this:

    AMRITA NAYAK DUTTA

    #দিল্লি: অরুণাচল প্রদেশে ফের প্রকৃত নিয়ন্ত্রণরেখা পেরিয়ে ভারতীয় ভূখণ্ডে অনুপ্রবেশ করল চিনা সেনা৷ তবে এবার বেশ কিছু চিনা সেনাকে আটক করে রাখল ভারতীয় বাহিনীও৷ ভারত সরকারের শীর্ষ সূত্রে খবর এমনই (Indian forces detain Chinese army in Arunachal Pradesh)৷

    ওই সূত্রের দাবি অনুযায়ী, গত সপ্তাহে অরুণাচল প্রদেশের (Arunachal Pradesh) তাওয়াংয়ের বুম লা এবং ইয়াংটসের মধ্যে এই ঘটনা ঘটেছে৷ তিব্বতের দিক থেকে প্রকৃত নিয়ন্ত্রণরেখা পেরিয়ে ভারতীয় ভূখণ্ডে ঢুকে পড়ে প্রায় দুশো চিনা সেনা (Chinese Incursion in India)৷

    জানা গিয়েছে, ভারতীয় ভূখণ্ডে ঢুকে ফাঁকা পড়ে থাকা বেশ কিছু বাঙ্কারের দখল নেয় চিনা সেনারা৷ খবর পেয়েই দ্রুত ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে তাদের প্রতিরোধ করে ভারতীয় বাহিনী৷ কড়া প্রতিরোধের মুখে পড়তে হয় চিনাদের৷ ভারতীয় সীমানায় ঢুকে পড়া বেশ কিছু চিনা সেনাকে দীর্ঘক্ষণ আটকেও রাখা হয় (Indian forces detain Chinese army in Arunachal Pradesh) ৷ তবে দুই দেশের সেনা কর্তাদের মধ্যে স্থানীয় স্তরে আলোচনার পরই আটক চিনা সেনাদের ছেড়ে দেওয়া হয়৷

    আরও পড়ুন: চিনা বাহিনীর সঙ্গে কাজ করছে পাক সেনার অফিসাররা! কড়া নজর রাখছে দিল্লি

    এই ঘটনা নিয়ে ভারতীয় সেনাবাহিনীর পক্ষ থেকে এখনও কোনও বিবৃতি দেওয়া হয়নি৷ তবে প্রতিরক্ষা মন্ত্রকের সূত্র অনুযায়ী, এই ঘটনায় ভারতীয় বাহিনী বা নিরাপত্তা ব্যবস্থার কোনও ক্ষয়ক্ষতি হয়নি৷

    কেন্দ্রীয় সরকাররের ওই শীর্ষ সূত্রের দাবি, 'ভারত এবং চিনের মধ্যে সরকারি ভাবে কোনও সীমানা নির্ধারণ করা নেই৷ ফলে দুই দেশই প্রকৃত নিয়ন্ত্রণরেখা মেনে চলে৷ দুই দেশ সীমান্তে যে প্রোটোকল মেনে আসছে, তার উপরই শান্তি এবং স্থিতাবস্থা বজায় থাকে৷' ওই সূত্র আরও জানাচ্ছে, সীমান্তে টহলদারির সময় দুই দেশের বাহিনীই প্রকৃত নিয়ন্ত্রণরেখা মেনে চলে৷

    সাম্প্রতিক কালে ভারতে চিনা আগ্রাসন

    অরুণাচল প্রদেশের ওই অংশে চিনা আগ্রাসন নতুন কিছু নয়৷ ২০১৬ সালেও দুশোর বেশি চিনা সেনা ইয়াংগটসেতে প্রকৃত নিয়ন্ত্রণরেখা পেরিয়ে ভারতীয় সীমানায় ঢুকে পড়েছিল৷ বেশ কিছুক্ষণ পরে তারা অবশ্য ফিরেও যায়৷

    ২০১১ সালেও ওই এলাকায় চিনা বাহিনী প্রকৃত নিয়ন্ত্রণরেখার ভারতীয় ভূখণ্ডের দিকে প্রায় আড়াইশো মিটার দীর্ঘ একটি পাচিল তোলার চেষ্টা করে৷ বিষয়টি নিয়ে দিল্লি বেজিংয়ের কাছে প্রতিবাদও জানায়৷ মাত্র মাস খানেক আগেই উত্তরাখণ্ডের বরাহোতি সেক্টরে প্রকৃত নিয়ন্ত্রণরেখা পেরিয়ে চিনা বাহিনী অনুপ্রবেশ করে বলে অভিযোগ৷ কয়েক ঘণ্টা ভারতীয় সীমানায় থাকার পর তারা ফিরে যায়৷ লাদাখ সীমান্তে গত বছরের তুলনায় ভারতীয় এবং চিনা সেনার মধ্যে উত্তেজনা অনেকটা কমলেও এখনও সেখানে বিশাল সংখ্যক বাহিনী মোতায়েন করে রেখেছে দুই দেশই৷

    তাওয়াংয়ে কেন নজর চিনের?

    তাওয়াং নিয়ে ভারত চিন সংঘাতের ইতিহাস দীর্ঘ দিনের৷ ১৯৬২ সালের যুদ্ধের সময় প্রথম বার তাওয়াং দখল করে চিন৷ তাওয়াংকে বৃহত্তর তিব্বতের অংশ বলে দাবি করেছিল চিন৷

    তাওয়াং ষষ্ঠ দলাই লামার জন্মস্থান৷ সেই কারণেই এই এলাকার আলাদা ঐতিহাসিক তাৎপর্য রয়েছে৷ পাশাপাশি তাওয়াং দিয়েই সবথেকে কম সময়ে ব্রহ্মপুত্র লাগোয়া সমতলভূমি এবং অসমের তেজপুরে পৌঁছনো সম্ভব৷ সেই কারণেই তাওয়াংয়ে নজর রয়েছে চিনের৷

    এক সেনা কর্তার কথায়, তাওয়াং থেকে সরাসরি গুয়াহাটি পর্যন্ত যোগাযোগের ব্যবস্থা রয়েছে৷ যেখান থেকে সহজেই শিলিগুড়ি করিডরে পৌঁছনো সম্ভব৷ ফলে সামরিক দৃষ্টিভঙ্গি থেকেও তাওয়াং অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ৷

    Published by:Debamoy Ghosh
    First published:

    Tags: Arunachal Pradesh, China, India

    পরবর্তী খবর