হোম /খবর /দেশ /
পরমাণু ডুবো জাহাজ থেকে মিসাইল পরীক্ষা সফল, চিনকে যুঝতে ভারতের হাতে মোক্ষম অস্ত্র

INS Arihant Missile Test Fire: পরমাণু ডুবো জাহাজ আরিহান্ত থেকে মিসাইল পরীক্ষা সফল, চিনকে টক্কর দিতে ভারতের হাতে মোক্ষম অস্ত্র

আইএনএস আরিহান্ত৷ ফাইল ছবি- রয়টার্স

আইএনএস আরিহান্ত৷ ফাইল ছবি- রয়টার্স

ভারতে তৈরি পরমাণু শক্তিচালিত আইএনএস আরিহান্ত ডুবো জাহাজগুলি যে সবদিক দিয়েই শত্রু পক্ষের মোকাবিলা করতে তৈরি, এ দিনের পরীক্ষার পর তা নিয়ে কোনও সংশয় থাকল না৷

  • Last Updated :
  • Share this:

#দিল্লি: পরীক্ষামূলক ভাবে পরমাণু ডুবো জাহাজ আইএনএস আরিহান্ত থেকে নির্দিষ্টি লক্ষ্যে ব্যালিস্টিক মিসাইল ছুড়ল ভারত৷ প্রতিরক্ষা মন্ত্রকের তরফে জানানো হয়েছে, বঙ্গোপসাগরে পূর্ব নির্ধারিত লক্ষ্যে সফল ভাবে আঘাত হানতে সক্ষম হয়েছে আইএনএস আরিহান্ত৷ এই প্রথমবার কোনও ডুবো জাহাজ থেকে সফল ভাবে এমন পরীক্ষা করল ভারত৷

এই পরীক্ষায় ফলে ভারতীয় নৌবাহিনীর পরমাণু অস্ত্র প্রতিরোধ করার ক্ষমতাও ঝালিয়ে নেওয়া গেল৷ পাশাপাশি, সমুদ্রের নীচ থেকে চিন এবং পাকিস্তানের নির্দিষ্ট লক্ষ্যেও যে ভারতীয় নৌসেনা আঘাত হানতে সক্ষম, তাও প্রমাণিত হল৷

আরও পড়ুন: হিমাচলে ভোটের নির্ঘণ্ট ঘোষণা, গুজরাতে নয় কেন? কারণ জানালেন মুখ্য নির্বাচন কমিশনার

ভারতে তৈরি পরমাণু শক্তিচালিত আইএনএস আরিহান্ত ডুবো জাহাজগুলি যে সবদিক দিয়েই শত্রু পক্ষের মোকাবিলা করতে তৈরি, এ দিনের পরীক্ষার পর তা নিয়ে কোনও সংশয় থাকল না৷ এই মিসাইল সিস্টেমের সবদিকই আজকের পরীক্ষায় খতিয়ে দেখা হয়েছে বলে প্রতিরক্ষা মন্ত্রকের বিবৃতিতে জানানো হয়েছে৷

প্রতিরক্ষা মন্ত্রকের বিবৃতিতে আরও জানানো হয়েছে, ভারত সর্বদাই প্রথমে পারমাণবিক অস্ত্র ব্যবহার না করার নীতি মেনে চলবে৷ কিন্তু তার সঙ্গে পারমাণবিক হামলা রুখে প্রত্যাঘাতের জন্য ন্যূনতম শক্তিশালী প্রতিরোধ ব্যবস্থার প্রয়োজন৷

এই মুহূর্তে ভারতীয় নৌসেনার হাতে দেশে তৈরি তিনটি ব্যালিস্টিক মিসাইল সাবমেরিন রয়েছে৷ এ ছাড়াও সাবমেরিন থেকে উৎক্ষেপণ যোগ্য দু'টি সারফেস টু সারফেস মিসাইল ভারতের হাতে রয়েছে৷ যেগুলির নাম কে-১৫ এবং কে-৪৷ এর মধ্যে দ্বিতীয় মিসাইলটি চিন পরমাণু অস্ত্র প্রয়োগ করলে তা রুখে দেওয়ার ক্ষেত্রে কার্যকরী হবে৷

ভারত সহ পৃথিবীর ছ'টি দেশের হাতে পরমাণু শক্তি চালিত সাবমেরিন রয়েছে যেগুলি থেকে ব্যালিস্টিক মিসাইল ছোড়া সম্ভব৷ এই তালিকায় এতদিন আমেরিকা, রাশিয়া, যুক্তরাজ্য, ফ্রান্স এবং চিন ছিল৷ শুক্রবারের পর তার সঙ্গে যুক্ত হল ভারতও৷

Published by:Debamoy Ghosh
First published:

Tags: China, Indian Navy, INS Arihant