• Home
  • »
  • News
  • »
  • national
  • »
  • HERES WHY MAMATA BANERJEE WAS UNHAPPY AT KUMARASWAMYS SWEARING IN CEREMONY

কেন কুমারস্বামীর শপথ গ্রহণ অনুষ্ঠানে গিয়ে রেগে গেলেন মমতা ?

মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় সঙ্গে সমাজবাদী পার্টির অখিলেশ যাদব (Photo: PTI)

গতকাল কর্ণাটকের মুখ্যমন্ত্রী পদে শপথ গ্রহণ করেন জেডিএস প্রধান কুমারস্বামী ৷ মুখে হাসি নিয়ে কুমারস্বামীকে শপথবাক্য পাঠ করালেন রাজ্যপাল বাজুভাই বালা ৷

  • Share this:

    #বেঙ্গালুরু: গতকাল কর্ণাটকের মুখ্যমন্ত্রী পদে শপথ গ্রহণ করেন জেডিএস প্রধান কুমারস্বামী ৷ মুখে হাসি নিয়ে কুমারস্বামীকে শপথবাক্য পাঠ করালেন রাজ্যপাল বাজুভাই বালা ৷ কে ছিলেন না সেই মঞ্চে ? সনিয়া এবং রাহুল গান্ধি থেকে শুরু করে সীতারাম ইয়েচুরি, মায়াবতী, অখিলেশ যাদব, শরদ পাওয়ার, চন্দ্রবাবু নাইডু, তেজস্বী যাদব ৷ সকলেই উপস্থিত ছিলেন এদিনের মঞ্চে ৷ কিন্তু সেই শপথবাক্য পাঠের মঞ্চে সবথেকে বেশি সক্রিয় ছিলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ৷ গোটা স্টেজের উপরে হেঁটে বেরালেন তিনি ৷ এমনকী, সকল নেতাদের সঙ্গেই সৌজন্য বিনিময় করতেও ভোলেননি মুখ্যমন্ত্রী ৷ কিন্তু এই সমস্ত বিষয়কে টেক্কা দিয়েই কর্ণাটক পুলিশ চিফ নীলামনি রাজুর কাছে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের অভিযোগই নজর কেড়েছে প্রত্যক্ষদর্শীদের ৷ কর্ণাটক পুলিশের দায়িত্ব কর্তব্য নিয়েও রীতিমত নিয়ে চূড়ান্ত অসন্তোষ প্রকাশ করলেন মুখ্যমন্ত্রী ৷

    বুধবার সকাল থেকেই কর্ণাটকের রাজধানী জুড়ে সাজো সাজো রব ৷ ভিভিআইপি-দের সামাল দিতে রাস্তায় নামানো হয়েছিল অতিরিক্ত ফোর্স ৷ যার জেরে শহরবাসী তো নাকানি চোবানি খেয়েছেনই ৷ সেই তালিকাতেই নাম জুড়েছে বাংলার মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়েরও ৷ শপথ বাক্য পাঠের মঞ্চে আসার সময়ে ট্রাফিক জ্যামে আটকে পড়েন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ও ৷ এমনকী, অনুষ্ঠান মঞ্চের গেটে পৌঁছানোর আগেই কর্ণাটকের পুলিশের ডিরেক্টর জেনারেল তাঁকে গাড়ি থেকে নেমে হেঁটে মঞ্চ অবধি যাওয়ার অনুরোধ করেন তিনি ৷ যা দেখে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় তো বটেই ৷ প্রত্যক্ষদর্শীরাও হতবাক হয়ে যান ৷ ভিভিআইপি-দের গাড়ির অতিরিক্ত ভিড়েই যানজটে আটকে পড়ে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের গাড়ি ৷ আর এদিকে অনুষ্ঠানের সময় এগিয়ে আসায় বিপাকে পড়েন পুলিশ কর্মীরা ৷ যার জেরে মুখ্যমন্ত্রীকে গাড়ি থেকে নেমে হেঁটে মঞ্চে যাওয়ার পরামর্শ দেন কর্ণাটকের পুলিশের ডিরেক্টর জেনারেল ৷

    এরপরই বেজায় ক্ষুব্ধ হয়ে পড়েন মমতা ৷ তিনি গোটা ঘটনাটি কর্ণাটক পুলিশ চিফ নীলামনি রাজুকে জানান ৷ একইসঙ্গে জেডিএস সুপ্রিমো দেবেগৌড়া এবং তাঁর ছেলে কুমারস্বামীকেও জানান তিনি ঘটনাটি ৷

    এই ঘটনা প্রসঙ্গে কর্ণাটক পুলিশের এক উচ্চপদস্থ কর্মী আধিকারিক জানিয়েছেন, এদিনের অনুষ্ঠানে ভিভিআইপি হিসেবে ১৮ থেকে ২০টি গাড়ি আসার কথা ছিল ৷ যা সামাল দিতে হিমশিম খেয়ে যায় তারা ৷ একইসঙ্গে রাজ্যপাল এবং হবু মুখ্যমন্ত্রীর গাড়ি ছাড়া বাকি গাড়ি গুলির জন্য জিরো ট্রাফিকেরও কোনও ব্যবস্থা ছিল না ৷ এমনকী, বিভিন্ন দিক থেকে গাড়িগুলি আসার জন্য সেই গাড়িগুলিকে কন্ট্রোল করাও যাচ্ছিল না বলে জানিয়েছেন তিনি ৷ কিছু কিছু গাড়ি ট্রাফিক সিগনালে দীর্ঘক্ষণ দাঁড়িয়ে থাকে বলে জানিয়ে নিজেদের ব্যর্থতা স্বীকার করে নিয়েছেন তিনি ৷

    একইসঙ্গে তিনি আরও জানিয়েছেন, শুধুমাত্র মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের গাড়িই নয় ৷ অন্ধ্রপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী চন্দ্রবাবু নাইডু, বহুজন সমাজবাদী পার্টির প্রধান মায়াবতীর গাড়িও ট্রাফিকে আটকে পড়ে ৷

    First published: