• Home
  • »
  • News
  • »
  • national
  • »
  • HERES A TIMELINE OF EVERYTHING THAT HAS HAPPENED IN THE UTTAR PRADESH EDITION OF THE SAMAJWADI PARTY MAHABHARATA

গত তিনমাসে কী ঘটেছে সমাজবাদী পার্টির অন্দরে ? একনজরে দেখে নিন

উত্তরপ্রদেশে সমাজবাদীর পার্টির অন্দরে চলছে কোন্দল ৷ চলছে মন্ত্রী বহিষ্কারের পালা৷ তবে এই ঘটনা হঠাৎ নয় ৷ ইঙ্গিত ছিল গত

উত্তরপ্রদেশে সমাজবাদীর পার্টির অন্দরে চলছে কোন্দল ৷ চলছে মন্ত্রী বহিষ্কারের পালা৷ তবে এই ঘটনা হঠাৎ নয় ৷ ইঙ্গিত ছিল গত

  • Pradesh18
  • Last Updated :
  • Share this:

    #লখনউ: উত্তরপ্রদেশে সমাজবাদীর পার্টির অন্দরে চলছে কোন্দল ৷ চলছে মন্ত্রী বহিষ্কারের পালা৷ তবে এই ঘটনা হঠাৎ নয় ৷ ইঙ্গিত ছিল গত কয়েকমাসে আগে থেকেই ৷

    ১৫ অগস্ট: কাওমি একতা দল (কিউএডি) কোমর বেঁধে নেমে পড়েন সমাজবাদী পার্টি সঙ্গে যোগসূত্র তৈরি করতে ৷ অখিলেশ যাদব প্রথমে এই যোগসূত্র মেনে নেননি ৷ এই দলের নেতৃত্ব গ্যাংস্টার-রাজনীতিক মুখতার আনসারির সঙ্গে অখিলেশ যাদব বৈঠক তিনদিন পর অখিলেশ সিদ্ধান্ত পরিবর্তন করে ৷ এর ফলে মুলায়ম সিং যাদব পার্টি থেকে সরে যাওয়ার কথা বলেন৷ যা এই নির্বাচনের পরিবেশে সমালোচনার ঝড় বয়ে নিয়ে যায় ৷

    ১৩ সেপ্টেম্বর: শিবপাল যাদবের আধিকারিক দীপক সিংহলকে বহিষ্কার করে, মাত্র ২মাস কাজ করার পরেই ৷ এই ঘটনায় রীতিমতো ক্ষোভে ফেটে পড়েন শিবপাল যাদব ৷ সমাজবাদী পার্টির প্রধান নেতৃত্ব থেকে অখিলেশ যাদব সরে আসেন ৷ পার্টির সভাপতিত্বের দায়িত্ব নেন শিবপাল যাদব ৷ এর আগে পার্টি ছেড়ে দেওয়ার হুমকি দিয়েছিলেন শিবপাল যাদব ৷ মুলায়ম সিং জানিয়েছিলেন, শিবপালের পদত্যাগ আটকানোর জন্যই এই সিদ্ধান্ত ৷

    ১৪ সেপ্টেম্বর: রাজনৈতিক মহলে সমালোচনার ঝড় ওঠে রাজনীতি নিয়ে যাদব পরিবারে অশান্তি ৷ কিন্তু উত্তর প্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী অখিলেশ যাদব সংবাদ মাধ্যমকে জানান, কোনও পারিবারিক ঝামেলা নেই ৷ যা হচ্ছে তা একেবারে সরকারি ৷ যদিও পরিবারের বাইরের লোকেরা সরকারের কাজে হস্তক্ষেপ করে, তাহলে তো বচসা হবেই !

    ১৫ সেপ্টেম্বর: মুলায়ম সিংয়ের আরেক ভাই রামগোপাল যাদব জানান, যিনি সমাজবাদী পার্টির জেনারেল সেক্রেটারি, তিনি বলেন পার্টির মধ্যে কোনওধরণের সঙ্কট নেই ৷ যে ছোটখাটো সমস্যা রয়েছে তা খুব সহজেই সমাধান করা যেতে পারে ৷

    ১৫ সেপ্টেম্বর: অখিলেশ যাদব আসন্ন উত্তর প্রদেশ নির্বাচনে সমাজবাদী পার্টির প্রার্থী ৷ সমাজবাদী পার্টির নেতা নরেশ আগরওয়ালের কথায়, ‘যদি সরকারি কাজে বাইরের কোনও লোক হস্তক্ষেপ করে, তাহলে তাঁর থামা উচিত ৷’

    ১৫ সেপ্টেম্বর: শিবপাল সিং যাদব পদত্যাগ করেন উত্তর প্রদেশের মন্ত্রীসভা থেকে ৷ এমনকী, ছেড়ে দেন সমাজবাদী পার্টির সভাপতিত্বের পদও ৷

    ১৭ সেপ্টেম্বর: উত্তর প্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী অখিলেশ যাদব জানান, তাঁর কাকা শিবপাল যাদব সমাজবাদী পার্টির সভাপতির পদে বলবৎ থাকতে পারেন ৷

    ১৮ সেপ্টেম্বর: জমি দখলের ঘটনায় শিবপাল যাদব নিজের ভাই রামগোপাল যাদব ও অন্য এক দলীয় নেতাকে তিরষ্কার করেন ৷

    ১৯ সেপ্টেম্বর: পার্টি সুপ্রিমো মুলায়ম সিং যাদবের সম্পর্কে অশোভন মন্তব্য করার জন্য অখিলেশ যাদবের অনুরাগী কয়েকজন নতুন প্রজন্মের দলীয় নেতাকে বহিষ্কার করেন শিবপাল৷

    ২০ সেপ্টেম্বর : সমাজবাদী পার্টিতে প্রত্যাবর্তন ঘটেছে অমর সিং–এর। অনেকে বলছেন ফিরে এসেই যে মাস্টারস্ট্রোক দিয়েছেন তাতে দিশাহারা যাদব পরিবার। তাঁর প্রত্যাবর্তন মেনে নিতে পারছেন না উত্তরপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী অখিলেশ যাদব।

    ৩ অক্টোবর: আসন্ন নির্বাচনের প্রার্থী তালিকা নিয়ে কিছুটা দোটানা দেখা যায় অখিলেশ যাদবের কথায় ৷ তিনি জানান, ‘আমি পার্টির প্রার্থী তালিকা সম্পর্কে কোনওরকম খবরের কথা জানি না৷’

    ১৪ অক্টোবর: মুলায়ম সিং যাদব অখিলেশ যাদবকে একহাত নেন ৷ প্রার্থী তালিকা নিয়ে স্পষ্টই তিনি জানান, ‘প্রার্থী তালিকা বা মন্ত্রীসভায় কী ঘটবে, সেটা অখিলেশরই জানা উচিত ৷ এই কাজ সংবাদ মাধ্যমের নয় ৷’

    ১৬ অক্টোবর : শিবপাল যাদব, মন্ত্রীসভার বৈঠকে, স্পষ্টই জানান, ২০১৭ সালের ভোট যদি সমাজবাদী পার্টি ক্ষমতায় আসে, তাহলে মুখ্যমন্ত্রী হোক অখিলেশ যাদবই !

    ১৭ অক্টোবর: আপত্তি থাকলেও, ২০১৭ নির্বাচনে মুখ্যমন্ত্রী হিসেবে লড়াই করার জন্য নিজের ছেলে অখিলেশ যাদবকেই সঙ্গ দিতে শুরু করেন ৷

    ২১ অক্টোবর: নির্বাচনের প্ল্যানিংয়ের জন্য একট বিশেষ বৈঠক ডাকার সিদ্ধান্ত নেন শিবপাল যাদব৷ সেই বৈঠকে হাজির হন না মুখ্যমন্ত্রী অখিলেশ যাদব ৷

    ২৩ অক্টোবর: ফের প্রকাশ্যে এল সমাজবাদী পার্টি অন্তর্দ্বন্দ্ব ৷ অখিলেশ ঘনিষ্ঠ উদয়বীর সিং নামে এক দলীয় বিধান পরিষদ সদস্যকে ৬ বছরের জন্য বরখাস্ত করল সপা ৷ দিন কয়েক আগেই দলের শীর্ষ নেতৃত্বকে চিঠি দিয়ে দলীয় সভাপতি অখিলেশ যাদবকে দলের জাতীয় সভাপতি করার আর্জি জানান এই উদয়বীর ৷ তাঁর এই প্রস্তাবকে শনিবার দলবিরোধী, শৃঙ্খলাবিরোধী ও অসম্মানজনক আখ্যা দিয়ে তাকে বহিষ্কার করে শীর্ষ নেতৃত্ব ৷

    ২৩ অক্টোবর: তবে অন্তর্দ্বন্দ্ব চলছেই ৷ একের পর এক মন্ত্রীকে করা হচ্ছে দল থেকে বহিষ্কার৷ শিবপাল যাদব সহ ৪ মন্ত্রীকে বহিষ্কার ৷ বহিষ্কৃত সাদাব ফতিমা,গায়ত্রী প্রজাপতি ৷ বহিষ্কৃত মদন চৌহান, নারদ রায় ৷ জয়া প্রদাকেও বহিষ্কার করলেন অখিলেশ ৷ চলচ্চিত্র বিকাশ পরিষদের প্রধান পদ থেকে বহিষ্কার ৷

    ২৩ অক্টোবর: সমাজবাদী পার্টির অন্তর্দ্বন্দ্ব চলছেই ৷ শনিবার অখিলেশ ঘনিষ্ঠ উদয়বীর সিং নামে এক দলীয় বিধান পরিষদ সদস্যকে ৬ বছরের জন্য বহিষ্কার করার পর, রবিবার মুলায়ম সিং যাদব পার্টি সদস্য রামগোপাল যাদবকে সমাজবাদী পার্টি থেকে ৬ বছরের জন্য বহিষ্কার করল ৷

    ২৩ অক্টোবর: সমাজবাদী পার্টির উত্তর প্রদেশের অধ্যক্ষ শিবাপাল যাদব সাংবাদিক বৈঠকে সরাসরি আক্রমণ করে বসেন রামগোপাল যাদবকে ৷ সাংবাদিক বৈঠকে শিবপাল বলেন, ‘রামগোপাল তিনবার পার্টি বিরোধী কাজ করেছেন ৷ বিজেপি-র এক বড় নেতার সঙ্গে নিয়মিত যোগাযোগ রাখতেন রামগোপাল ৷ আসলে রামগোপাল বিজেপির এজেন্ট ৷’

    First published: