• Home
  • »
  • News
  • »
  • national
  • »
  • দেবগৌড়ার ছেলে কংগ্রেসের রাতের ঘুম কেড়ে নিয়েছে :কর্ণাটক বিধানসভা নির্বাচন

দেবগৌড়ার ছেলে কংগ্রেসের রাতের ঘুম কেড়ে নিয়েছে :কর্ণাটক বিধানসভা নির্বাচন

Photo : Network 18

Photo : Network 18

কর্ণাটক বিধানসভা নির্বাচন ১২ মে । ভোট প্রচারে বিজেপি-কংগ্রেস দুপক্ষই মাথার ঘাম পায়ে ফেলে এক নাগারে প্রচার চালিয়ে যাচ্ছে ।

  • Share this:

    #বেঙ্গালুরু: কর্ণাটক বিধানসভা নির্বাচন ১২ মে । ভোট প্রচারে বিজেপি-কংগ্রেস দুপক্ষই মাথার ঘাম পায়ে ফেলে এক অক্লান্ত প্রচার চালিয়ে যাচ্ছে । কংগ্রেস সভাপতি রাহুল গান্ধি কর্ণাটকের দুমকুরে একটি রোড শো করেন ঠিক সেই সময়েই জেলার জেলা পরিষদ থেকে মাত্র ৬৯ কিলোমাটার দূরে রাজ্যের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী এইচডি দেবগৌড়ার ছেলে এইচ ডি কুমারস্বামী খটখটে রোদে একাই প্রাচার চালিয়ে যান ।

    জেডিএস এর কোনও নেতা তাঁর সাথে ছিলেন না । অন্যদিকে দ্বিতীয়বার ক্ষমতায় ফিরতে বদ্ধ পরিকর কংগ্রেস । কুমারস্বামী বলেন তাঁর সভায় কোন গ্ল্যামার বা প্রযুক্তি নেই ঠিকই । সাধারণত শাসকদল কংগ্রেস বা বিরোধী দল বিজেপি যা করে থাকে । এখানে তার থেকে আলাদা চিত্র । কুমারস্বামী বলেন যদি জনতার সমর্থন থাকে তো ষোলোকলাই পূর্ণ হয়, তখন আর অন্য কিছুর দরকার হয়না । কর্ণাটকের রাজনীতিতে কুমারস্বামী এমন এক ব্যক্তিত্ব যে একাই একশো যে কোনও নির্বাচন জেতার ক্ষেত্রে তাঁর কারোর থেকে সুযোগ সুবিধার প্রয়োজন হয়না । প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী এইচ ডি দেবগৌড়ার তৃতীয় পুত্র এইচডি কুমারস্বামী রাজনীতিতে কুমার আন্না নামে পরিচিত ।

    ২০০৬ পারিবারিক কলহের জেরে কংগ্রেসের সাথে সম্পর্ক শেষ করে বিজেপির সাথে গাঁটছড়া বেঁধে ২০ মাস কর্ণাটকের মুখ্যমন্ত্রী ছিলেন । পরিসংখ্যান বলছে বিগত ৪০ বছরে সব থেকে সুলভ মুখ্যমন্ত্রী বলে জানা যায় । ২ মাস আগেই শাসকদল কংগ্রেস ও বিরোধী বিজেপি বলেছিল জেডিএস বিশেষ প্রতিযোগিতায় ফেলতে পারবে না । কিন্তু এখন কুমারস্বামীকে জনপ্রিয়তা দিনের পর দিন বাড়ছে ।

    ২২৪ আসন বিশিষ্ট কর্ণাটক বিধানসভার এবারের পরিসংখ্যান বলছে ৭৫ টি আসনে সরাসরি প্রতিদ্বন্দ্বিতায় কংগ্রেস ও জেডিএস । বাকি আসনে কংগ্রেস-বিজেপির সরাসরি প্রতিদ্বন্দ্বিতা করবে । মূলত মাঈশোর, হাসান, দুমকুর এলাকায় কুমারস্বামীর ম্যাজিক কাজ করবে বলে মনে করা হচ্ছে  । প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রীর এক বন্ধু বলেছেন কুমারস্বামী এবারের কর্ণাটক নির্বাচনে বিশেষ প্রভাব ফেলতে পারে ।

    First published: