দেশ

corona virus btn
corona virus btn
Loading

একটানা চতুর্থবার মুখ্যমন্ত্রী হিসেবে শপথ নিতে চলেছেন নীতীশ কুমার, মন্ত্রীসভায় থাকছে অন্য চমক

একটানা চতুর্থবার মুখ্যমন্ত্রী হিসেবে শপথ নিতে চলেছেন নীতীশ কুমার, মন্ত্রীসভায় থাকছে অন্য চমক
ফের মুখ্যমন্ত্রীর পদে বসতে চলেছেন নীতিশ কুমার।

তবে নীতীশ কুমারের মন্ত্রীসভায় থাকছে অন্য চমক।

  • Share this:

 #পটনা: আর কিছুক্ষণ পরেই বিহারে মুখ্যমন্ত্রী হিসেবে শপথ নিতে চলেছেন নীতীশ কুমার। বিকেল সাড়ে চারটে নাগাদ শপথ নেবেন তিনি। শপথ অনুষ্ঠানে হাজির থাকার কথা স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ ও বিজেপি সর্বভারতীয় সভাপতি জে পি নাড্ডার। তবে নীতীশ কুমারের মন্ত্রীসভায় থাকছে অন্য চমক।

সূত্রের খবর, এই মন্ত্রীসভায় থাকছে দু'জন উপমুখ্যমন্ত্রী। এবার বিজেপি নেতা সুশীল মোদী নীতীশের মন্ত্রীসভায় থাকছেন না। পরিবর্তে থাকছেন দুই বিজেপির তরফে উপমুখ্যমন্ত্রী। সূত্রের খবর, কাটিহারের বিধায়ক তারকিশোর প্রসাদ ও রেণু দেবী হতে চলেছেন উপমুখ্যমন্ত্রী। রাজনৈতিক মহলের মতে বিজেপির তরফ থেকে ক্রমশ চাপ বজায় রাখা হচ্ছে নীতীশের ওপরে৷ তাই এবার দু'জন উপমুখ্যমন্ত্রী। এছাড়া বিজেপির বিধায়ক নন্দ কিশোর যাদব হতে চলেছেন বিহার বিধানসভার স্পিকার৷ নীতীশ ঘনিষ্ঠ জেডিইউ'য়ের বিজয় চৌধুরী পেতে চলেছেন গুরুত্বপূর্ণ পদ।

সূত্রের খবর, অপর দুই শরিক দল হ্যাম এবং ভি আই পি'র একজন করে মন্ত্রীসভায় আসতে চলেছেন। সব মিলিয়ে বিজেপির ২২ জন, জেডিইউ'য়ের ১২ জন এবং হ্যাম ও ভি আই পি'র একজন করে বিধায়ক থাকবেন মন্ত্রীসভায়। বিজেন্দ্র যাদব, অশোক চৌধুরী, মেওয়ালাল চৌধুরী, শীলা কুমারী হতে চলেছেন মন্ত্রী। কিন্তু দু'জন উপমুখ্যমন্ত্রী কেন? রাজনৈতিক মহলের মতে, আসন সংখ্যার হিসেবে বিজেপি অনেক এগিয়ে থাকলেও বাংলার গুরুত্বপূর্ণ ভোটের আগে আর একটা ‘মহারাষ্ট্র’ হতে দিতে চান না নরেন্দ্র মোদী-অমিত শাহেরা। সে কারণেই জোটের ছোট শরিকে পরিণত হওয়া নীতীশ কুমারকেই আরও এক বার বিহারের গদিতে বসার সুযোগ করে দিল বিজেপি। যার জেরে আজকে টানা চতুর্থ বার মুখ্যমন্ত্রী হিসেবে শপথ নিতে চলেছেন জেডিইউ-প্রধান।

রবিবার পটনায় নীতীশের বাসভবনে এনডিএ নেতৃত্বের বৈঠকে তাঁকে মুখ্যমন্ত্রী হিসাবে বেছে নেওয়া হয়। যদিও উপ-মুখ্যমন্ত্রী থাকা সুশীল মোদীকে কেন্দ্রীয় মন্ত্রিসভায় আনার কথা ভাবছে বিজেপি। মহারাষ্ট্র-পর্ব থেকে শিক্ষা নিয়ে নির্বাচনের আগেই নীতীশকে মুখ্যমন্ত্রী পদপ্রার্থী হিসেবে ঘোষণা করেছিল বিজেপি। কিন্তু ছোট শরিক হয়ে তিনি মুখ্যমন্ত্রী পদে বসবেন কি না, তা নিয়ে সংশয় ছিল জেডিইউয়ের অন্দরে। এমনকি বিজেপির তরফ থেকেও একটা অংশ দাবি করা আসছিল, নীতীশ নয় বিজেপি থেকে হোক মুখ্যমন্ত্রী।

গতকালই নীতীশের বাড়িতে বৈঠকে বসেন এনডিএ নেতারা। দিল্লি থেকে পর্যবেক্ষক হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বিজেপি নেতা রাজনাথ সিংহ। সেখানে মুখ্যমন্ত্রী হিসেবে নীতীশকেই বেছে নেওয়া হয়। বৈঠক শেষে নীতীশ জানিয়েছিলেন, “আমি চেয়েছিলাম বিজেপি থেকে কেউ মুখ্যমন্ত্রী হোন। কিন্তু সব বিজেপি নেতার নিরন্তর চাপে পড়ে বিহারের দায়িত্ব নিতে রাজি হয়েছি।’’ রাজ্য বিজেপির একাংশ গোড়া থেকেই নিজেদের দলের কাউকে মুখ্যমন্ত্রী করার পক্ষপাতী ছিল। কিন্তু কেন্দ্রীয় নেতৃত্বের চাপে শেষ অবধি  নীতীশকে মানতে হয়েছে গিরিরাজ সিংহদের।

বিজেপির সুশীল মোদীর পরিবর্তে দলের বিধানসভার নেতা নির্বাচিত করা হয়েছে কাটিহারের বিজেপি বিধায়ক তারকিশোর প্রসাদকে। বিজেপি সূত্রের মতে, সুশীলের পরিবর্তে উপ-মুখ্যমন্ত্রী হতে চলেছেন তারকিশোর। এই মুহূর্তে জেডিইউ-বিজেপির সমস্যা হল, এনডিএ-র বাকি দুই শরিক জিতনরাম মাঁঝির দল হাম ও মুকেশ সহানির ভিআইপি দলের পক্ষ থেকে আলাদা করে উপ-মুখ্যমন্ত্রী পদ দাবি করা হয়েছে। এ বারের সরকার গঠনে ওই দুই শরিকই গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা নিয়েছে। দু’দল চারটি করে মোট আটটি আসন পেয়েছে।

বিহারে সরকার গড়ার ম্যাজিক সংখ্যা ১২২। নির্বাচনে ১২৫ আসন পেয়েছে এনডিএ। ফলে একটি দলও জোট থেকে বেরিয়ে গেলে সরকার পড়ে যাওয়ার সম্ভাবনা। এই পরিস্থিতিতে দুই দলই উপ-মুখ্যমন্ত্রিত্ব দাবি করায় সমস্যা বাড়ছে। সূত্রের খবর, দুই দলকে বোঝানোর চেষ্টা চলছে। দুই দলকে একটি করে মন্ত্রী ও প্রতিমন্ত্রীর পদ দেওয়া নিয়ে আলোচনা চলছে।

ABIR GHOSAL

Published by: Elina Datta
First published: November 16, 2020, 6:49 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर