দু’দশক পর কাশ্মীরের বুকে ফিরে এল সেই রক্তাক্ত স্মৃতি...

দু’দশক পর কাশ্মীরের বুকে ফিরে এল সেই রক্তাক্ত স্মৃতি...
  • Share this:

#কাশ্মীর:  দিনটা ছিল ১৪ ফেব্রুয়ারি ৷ পুলওয়ামাতে জঙ্গি হামলার জেরে রক্তাক্ত হয়েছিল ভূস্বর্গ ৷ তার বদলা নিতে সার্জিকাল স্ট্রাইক করে ভারতের বায়ুসেনা ৷ এরপর ফের নিয়ন্ত্রণরেখা পেরিয়ে সংঘর্ষবিরতি চুক্তি লঙ্ঘন পাকিস্তান ৷ শহিদ হন একাধিক সিআরপিএফ জওয়ান ৷ সবমিলিয়ে উপত্যকার পরিস্থিতি এই মুহূর্তে ভয়াবহ ৷

২০০০ সালে জইশ-এ-মহম্মদ তৈরি করেন মৌলানা মাসুদ আজাহার পরের বছরেই দুটি বড়সড় হামলা। প্রথমে ২০০১ সালের ১ অক্টোবর। শ্রীনগরে জম্মু-কাশ্মীরের বিধানসভা ভবনে হামলা চালায় জইশের জঙ্গিরা। আত্মঘাতী বিস্ফোরণে কেঁপে ওঠে ভূস্বর্গ। প্রাণ হারান ৩৮জন। এর কিছু দিন পরেই, ১৩ ডিসেম্বর আবার কাশ্মীরকে রক্তাক্ত করে পাক মদতপুষ্ট জঙ্গিরা। জম্মু-কাশ্মীর বিধানসভার পরে এবার হামলা একেবারে রাজধানীর বুকে, সংসদে। সংসদ হামলারও অন্যতম প্রধান চক্রী ছিলেন জইশের মাথা মৌলানা মাসুদ আজহার। প্রায় দু’দশক পর ভূস্বর্গে আবারও ফিরে এল সেই রক্তাক্ত স্মৃতি ৷ ফেব্রুয়ারি মাসে চারটি এনকাউন্টারে একাধিক জঙ্গিকে খতম করেছে ভারতীয় সেনাবাহিনী ৷ শহিদ হয়েছেন প্রায় ৭ জন সিআরপিএফ জওয়ান ৷ আহত হয়েছেন একাধিক সিআরপিএফ জওয়ান ৷ মৃত্যু হয়েছে বেশ কয়েকজন স্থানীয় বাসিন্দারাও ৷ এছাড়াও রন্তিপোড়, রাজৌরি সেক্টরে জঙ্গি হামলা প্রাণ কেড়েছে সেনা জওয়ানদের ৷

j&k

গত দু’মাসে ভূস্বর্গে গুলির লড়াইয়ে প্রাণ হারিয়েছেন কমপক্ষে ৫১ জন ৷ যেখানে জানুয়ারি মাসে প্রাণ হারিয়েছিলেন মাত্র ২ জন সিআরপিএফ জওয়ান ৷ পরিসংখ্যানের দিকে নজর রাখলে দেখা যাবে ২০১৮ সালে ৯৫ জন সেনা জওয়ান শহিদ হয়েছিলেন ৷ ২০১৪ সালে শহিদ হয়েছিলেন ৪১জন জওয়ান এবং ২০১৫ সালে ৪৭ জন সেনা জওয়ানের মৃত্যু হয়েছে ৷ তবে, এবার চলতি বছরে শুধু ফেব্রুয়ারি মাসেই মৃত্যু হয়েছে ৪৯ জন সেনা জওয়ানের ৷

First published: 09:50:28 AM Mar 05, 2019
পুরো খবর পড়ুন
Loading...
अगली ख़बर
Listen to the latest songs, only on JioSaavn.com