কলেজ ও বিশ্ববিদ্যালয়ের পড়ুয়াদের এবার থেকে পড়তে হবে আরও একটি নতুন বিষয়

কলেজ ও বিশ্ববিদ্যালয়ের পড়ুয়াদের এবার থেকে পড়তে হবে আরও একটি নতুন বিষয়
File Photo

এবার পাঠ্যক্রমে অন্তর্ভুক্ত হতে চলেছে বিপর্যয় মোকাবিলা । কলেজ ও বিশ্ববিদ্যালয়ের পড়ুয়াদের জন্য নয়া এই পাঠ্যক্রমের নির্দেশ দিয়েছে ইউজিসি।

  • Share this:

#নয়াদিল্লি: এবার বিপর্যয় মোকাবিলার পাঠ নিতে হতে পারে পড়ুয়াদের। কলেজ ও বিশ্ববিদ্যালয়ের পাঠ্যক্রমে নয়া এই বিষয় অন্তর্ভক্তির জন্য বিজ্ঞপ্তি জারি করছে ইউজিসি। বাধ্যতামূলক হিসেবেই পাঠ্যক্রমে বিপর্যয় মোকাবিলা অন্তর্ভূক্ত করার কথা বলা হয়েছে। বোমাতঙ্ক, ভূমিকম্প, সন্ত্রাসবাদী হামলা, ক্যাম্পাসে গুলিকাণ্ড, আর্থিক জরুরি অবস্থা-সহ বিভিন্ন বিষয়ের পাঠ দেওয়া হবে পড়ুয়াদের। উপাচার্যদের ইতিমধ্যেই বিজ্ঞপ্তি দিয়ে এ কথা জানিয়ে দিয়েছে ইউনিভার্সিটি গ্রান্টস কমিশন। যদিও এখনও এই নিয়ে সিদ্ধান্ত নেয়নি রাজ্য।

কলেজ, বিশ্ববিদ্যালয়ের পাঠ্যক্রমে এবার সম্ভবত অন্তর্ভুক্ত হতে চলেছে বিপর্যয় মোকাবিলা। ইতিমধ্যেই রাজ্যের বিশ্ববিদ্যালয়গুলির উপাচার্যদের বিজ্ঞপ্তি দিয়ে এ কথা জানিয়ে দিয়েছে ইউজিসি। উচ্চশিক্ষা প্রতিষ্ঠান ও পড়ুয়াদের নিরাপত্তার জন্যই এই পাঠ্যক্রম বাধ্যতামূলক করতে চাইছে ইউজিসি।

পাঠ্যক্রমে সম্ভাব্য বিষয়

----ভূমিকম্প,বোমাতঙ্ক, বিস্ফোরণ

---ক্যাম্পাস শুটিং বা কলেজ-বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে বন্দুকবাজের হামলা

-- সন্ত্রাসবাদী হামলা, আর্থিক জরুরি অবস্থার মোকাবিলা

---স্বাস্থ্যজনিত জরুরি অবস্থার মত বিষয়গুলি মোকাবিলা নিয়ে প্রশিক্ষণ ও সচেতনতা

এই ধরণের বিপর্যয় মোকাবিলায় পড়ুয়াদের সচেতন করতে চাইছে কেন্দ্র। সাম্প্রতিককালে বিশ্বের নানা প্রান্তে স্কুল, কলেজ, বিশ্ববিদ্যালয়ে বন্দুকবাজের হামলা বাড়িয়েছে আতঙ্ক। দেশে এই ধরণের ঘটনা ঘটলে ক্ষয়ক্ষতি রোধে পড়ুয়াদের সতর্ক ও প্রশিক্ষণ দিতেই নয়া এই পাঠ্যসূচির ভাবনা । দাবি ইউজিসির। তবে এর আগে বহুবারই ইউজিসির নির্দেশ নিয়ে বিতর্ক দানা বেধেছে। এ রাজ্যের সরকারও ইউজিসির সিদ্ধান্তের প্রতি বিরূপ মনোভাব প্রকাশ করেছে। এক্ষেত্রেও ইউজিসির মনোভাব নিয়েই প্রশ্ন তুলেছেন শিক্ষামন্ত্রী।

ইতিমধ্যেই বিপর্যয় মোকাবিলা নিয়ে সচেতনতা বাড়াতে স্কুল, কলেজ, বিশ্ববি দ্যালয়ে কর্মশালা করছে রাজ্য সরকার। ইউজিসির এই বিজ্ঞপ্তি না মানার ইঙ্গিত দিলেও, বিষয়টি নিয়ে মুখ্যমন্ত্রীর সঙ্গে কথা বলার পরই সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে বলে জানিয়েছেন শিক্ষামন্ত্রী।

First published: 12:10:56 PM Oct 05, 2017
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर