ফেসবুক পোস্টে উস্কানি, বেঙ্গালুরু জুড়ে তাণ্ডব! মৃত বেড়ে ২, জারি ১৪৪ ধারা

ফেসবুক পোস্টে উস্কানি, বেঙ্গালুরু জুড়ে তাণ্ডব! মৃত বেড়ে ২, জারি ১৪৪ ধারা

Photo Courtesy: ANI

বেঙ্গালুরু জুড়ে শুরু হয়েছে অশান্তি৷ এসিপি সহ প্রায় ৬০জন পুলিশকর্মী আহত হয়েছেন৷ বিক্ষোভকারীরা বিভিন্ন জায়গায় আগুন ধরিয়ে দেয়৷

  • Share this:

    #বেঙ্গালুরু: একটি ফেসবুক পোস্ট৷ এবং সেটা ঘিরে রণক্ষেত্র বেঙ্গালুরু৷ কংগ্রেস বিধায়ক অখণ্ড শ্রীনিবাস মূর্তির ভাইপো ফেসবুকে হজরত মহম্মদকে নিয়ে কুরুচিকর মন্তব্য করেছিলেন বলে অভিযোগ৷ একই ভিত্তিতে রীতিমতো প্রতিবাদে সরব হন অনেকে৷ বেঙ্গালুরু জুড়ে শুরু হয় তাণ্ডব৷ প্রতিবাদকারীরা আগুন ধরিয়ে দেয় বিভিন্ন জায়গায়৷ কেজি হাল্লি এবং ডিজি হাল্লি থানায় মঙ্গলবার রাতে হামলা চালানো হয়৷ এসিপি পদ মর্যাদার এক পুলিশ আধিকারিক সহ ৬০জন পুলিশকর্মী জখম হয়েছেন এই ঘটনায়৷ বেঙ্গালুরুর কাভাল বাইসান্দ্রা এলাকায় কংগ্রেস নেতা শ্রীনিবাস মূর্তির বাড়ির সামনে চলে দফায় দফায় প্রতিবাদ৷ ছোড়া হয় পাথরও৷ পার্কিং-এ দাঁড়িয়ে থাকা গাড়িতে আগুন ধরিয়ে দেয় উত্তেজিত জনতা৷

    অন্যদিকে একদল উত্তেজিত জনতা কে জি হাল্লি থানার সামনে প্রতিবাদ দেখায় ও পুলিশ বাহিনীর ওপর হামলা চালায়৷

    এই ঘটনায় পুলিশ অভিযোগ দায়ের করতে চায়নি বলেই খবর৷ তবে তিনি নিজে এমন ফেসবুক পোস্ট করেননি বলে জানিয়েছেন নেতার ভাইপো৷ তার ফেসবুক হ্যাক হয়েছে এবং তার হয়ে অন্য কেউ এই কুরুচিকর ও উস্কানিমূলক পোস্ট করে বলে অভিযোগ৷ যদিও সেই পোস্টটি পরে ডিলিট করে দেওয়া হয়৷

    তবে শহর জুড়ে যখন তাণ্ডব শুরু হয়, তখন একের পর এক রাজনৈতিক নেতারা সোশ্যাল মিডিয়ায় শান্তি বার্তা দিতে থাকেন৷ এই ধরনের উত্তেজনা বন্ধ করার জন্য সোশ্যাল মিডিয়া মারফত তাঁরা অনুরোধ করতে থাকেন৷

    বিধায়ক অখণ্ড শ্রীনিবাসের বাড়ির ওপর হামলা হতেই বর্ষীয়ান কংগ্রেস নেতা দিনেশ গুন্ডু রাও ট্যুইট করেন, ভয়ঙ্কর পরিস্থিতি৷ তিনি আরও লেখেন, যাই উস্কানি থাকুক না কেন, নিজের হাতে আইন তুলে নেওয়া বা সরকারি সম্পত্তি নষ্ট করার অধিকার কারও নেই৷ পরস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনা প্রথম কাজ৷

    যারা প্রতিবাদের নামে অশান্তি করছিল, তাদের মধ্যে এই ঘটনায় ১১০ জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে৷ জানিয়েছেন জয়েন্ট কমিশানার (ক্রাইম) সন্দীপ পাটেল৷ কংগ্রেস বিধায়কের ভাইপোকেও গ্রেফতার করা হয়েছে৷

    Published by:Pooja Basu
    First published: