Home /News /national /
গণধর্ষণের পর গোপনাঙ্গে ধারাল অস্ত্র ঢুকিয়ে, মাথা থেঁতলে খুন

গণধর্ষণের পর গোপনাঙ্গে ধারাল অস্ত্র ঢুকিয়ে, মাথা থেঁতলে খুন

ফিরে এল নির্ভয়াকাণ্ডের বর্বরতার স্মৃতি

  • Share this:

    #রোহতক: নির্ভয়াকাণ্ডের ছায়া এবার হরিয়ানায়। রোহতকে তরুণীকে তুলে নিয়ে গিয়ে গণধর্ষণ করে খুন করল দুষ্কৃতীরা। শুধু তাই নয়, গোপনাঙ্গে ঢুকিয়ে দেওয়া হয় ধারাল অস্ত্র। পরিচয় গোপন করতে প্রথমে পাথর দিয়ে থেঁতলে দেওয়া হয় মুখ। পরে, গাড়ির চাকা দিয়ে গুঁড়িয়ে দেওয়া হয় মাথা। দুষ্কৃতীদের নৃশংসতা দেখে শিউরে উঠছে দেশ। ঘটনায় ধৃত প্রতিবেশী-সহ দুই।

    পাঁচ বছরে পরেও নির্ভয়াকাণ্ডের ছাপ এখনও মোছেনি। ২০১২ সালের ১৬ ডিসেম্বরের ওই ঘটনায় ফাঁসির সাজা থেকে ছাড় পেতে সুপ্রিম কোর্টে আবেদন করে দোষীরা। কিন্তু, অপরাধের নৃশংসতার কথা মাথায় রেখে চার জনের ফাঁসির সাজাই বহাল রাখে সুপ্রিম কোর্ট।

    এবার নির্ভয়াকাণ্ডের ছায়া হরিয়ানার রোহতকে।

    - গত ৯ মে সোনিপত এলাকায় অফিসের বাইরে থেকে অপহরণ করা হয় এক তরুণীকে - তাঁকে নির্জন একটি জায়গায় নিয়ে চলে যায় দুষ্কৃতীরা - মেয়ের খোঁজ না পেয়ে পুলিশের কাছে অভিযোগ দায়ের করেন বাবা-মা - ১১ মে রোহতকের ইন্ডাসট্রিয়াল টাউনশিপ এলাকা থেকে উদ্ধায় হয় ওই তরুণীর ক্ষতবিক্ষত দেহ

    বীভৎসতার দিক থেকে নির্ভয়াকাণ্ডকেও ছাপিয়ে গিয়েছে রোহতকের ঘটনা।

    - ফরেনসিক বিশেষজ্ঞদের মতে, তরুণীকে মাদক খাইয়ে অন্তত ৭ জন তাঁকে ধর্ষণ করে - এরপর, ধারাল অস্ত্র ঢুকিয়ে দেওয়া হয় গোপনাঙ্গে - পরিচয় গোপন করতে প্রথমে নিহতের মুখ ইট ও পাথর দিয়ে থেঁতলে দেওয়া হয় - এরপর, গাড়ির চাকা দিয়ে পিষে গুঁড়িয়ে দেওয়া হয় মাথা - দেহটি রাস্তায় ফেলে দেয় দুষ্কৃতীরা - তরুণীর মুখের বেশ কিছু অংশ কুকুরে খুবলেও নেয় - স্থানীয় বাসিন্দারা প্রথমে দেহটি দেখতে পান - মুখ বিকৃত হয়ে যাওয়ায় পরিচয় নিয়ে ধন্দে পড়ে পুলিশ - পরে বাবা-মা দেহটি সনাক্ত করেন

    জানা গিয়েছে, সুমিত নামে তরুণীর এক প্রতিবেশী তাঁকে বিয়ের প্রস্তাব দেন। কিন্তু, তরুণী তা নাকচ করে দেন। তার জেরেই কি খুন হতে হল? সন্দেহের কারণে সুমিতকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। ঘটনার বীভৎসতা ফের শিউরে উঠছে গোটা দেশ ৷

    First published:

    Tags: Gangrape murder case, Mutilated body, Nirbhaya gang rape, Rohtak, Rohtak gang rape

    পরবর্তী খবর