corona virus btn
corona virus btn
Loading

নীতিশ কুমারের সঙ্গে জোট অটুট রাখতেই কি বিহার সফরে অমিত শাহ ?

নীতিশ কুমারের সঙ্গে জোট অটুট রাখতেই কি বিহার সফরে অমিত শাহ ?

ফের বিহার সফরে যাচ্ছেন বিজেপির সর্বভারতীয় সভাপতি অমিত শাহ ৷ এবারের লক্ষ্য ২০১৯ লোকসভা নির্বাচন ৷ সেই নির্বাচনেই আসন নিয়ে বিজেপির উপর ক্রমশ চাপ বাড়াচ্ছে জেডি(ইউ) ৷

  • Share this:

#পটনা: ফের বিহার সফরে যাচ্ছেন বিজেপির সর্বভারতীয় সভাপতি অমিত শাহ ৷ এবারের লক্ষ্য ২০১৯ লোকসভা নির্বাচন ৷ সেই নির্বাচনেই আসন নিয়ে বিজেপির উপর ক্রমশ চাপ বাড়াচ্ছে জেডি(ইউ) ৷ সেই আসন নিয়েই জেডি(ইউ)-র সঙ্গে সমঝোতা করতে ১২ জুলাই বিহার যাচ্ছেন অমিত ৷

রাজ্য বিজেপি দফতরের তরফে অমিত শাহের বিহার সফর নিয়ে একটি বিজ্ঞপ্তিও পেশ করা হয়েছে ৷ সেই বিজ্ঞপ্তিতেই অমিতের বিহার সফরসূচি সম্পর্কে বিস্তারিত তথ্য দেওয়া রয়েছে ৷ আগামিকাল সকাল ১০টায় পটনা বিমানবন্দরে নামবেন অমিত ৷ এরপর নীতিশ কুমারের সঙ্গে স্টেট গেস্ট হাউসে প্রাত:রাশ সারবেন তিনি ৷ সেখানে জেডি(ইউ) দলের অন্যান্য নেতারাও উপস্থিত থাকবেন ৷ সেখানেই আসন সমঝোতা নিয়ে আদৌ কি কোনও সমাধান সূত্র বেরোবে ? সেই নিয়েই আপাতত জল্পনা তুঙ্গে ৷

আসন্ন লোকসভা নির্বাচনে জেডি(ইউ) অন্ততপক্ষে ১৫টি আসন চাইছে ৷ কিন্তু গতবার মাত্র ২টি আসনে জিতেছিল নীতিশ কুমারের নেতৃত্বাধীন জেডি(ইউ) ৷ বিজেপির নেতৃত্বাধীন এনডিএ জিতেছিল ৩১টি আসনে ৷ এদের মধ্যে বিজেপির পুরোনো শরিক অর্থাৎ বিজেপি, এলজিপি এবং আরএলএসপি জিতেছিল যথাক্রমে ২২,৬ এবং ৩টি আসনে ৷ সেক্ষেত্রে সমস্ত শরিক দলগুলি যদি নিজেদের জেতা আসনেই লড়ে ৷ তাহলে জেডি(ইউ) ৯টির বেশি আসন পাবে না ৷ এই আসন সমঝোতা নিয়েই বিজেপির উপরে ক্রমশ স্নায়ুর চাপ বাড়াচ্ছে জেডি(ইউ) ৷ পাশাপাশি রয়েছে শরিক উপেন্দ্র কুশওয়াহাও ৷ একদিকে, আসন নিয়ে চাপ বাড়াচ্ছে এই শরিক দল ৷ এদিকে, শরিকদের আসন বেশি সংখ্যায় দিতে গেলে নিজেদের জেতা আসন ছেড়ে দিতে হবে বিজেপিকে ৷

ঘটনা হল, লোকসভা নির্বাচনে ক্ষমতা নিজেদের দখলে রাখতে এনডিএ জোট অটুট রাখতে বদ্ধপরিকর বিজেপি ৷ অন্যদিকে, বিজেপির উপর চাপ বাড়াচ্ছে নীতিশ কুমার ৷ এহেন অবস্থায় আগামী বৃহস্পতিবার অমিত শাহের বিহার সফর যে, যথেষ্ট গুরুত্বপূর্ণ হতে চলেছে তা বলাই বাহুল্য ৷

অন্যদিকে, শুধুমাত্র জেডি(ইউ) নেতাদের সঙ্গেই নয় ৷ বিহারে বিজেপি কর্মীদের সঙ্গেও বৈঠক করবেন অমিত শাহ ৷ দলের প্রচারের জন্য সোশ্যাল মিডিয়ার উপর আরও জোর দেওয়ার বিষয়টি নিয়েই আলোচনা করা হবে বলে দলীয় সূত্রে খবর ৷

First published: July 11, 2018, 1:55 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर