দেশ

corona virus btn
corona virus btn
Loading

বয়স ৯০ বছর, মেকানিক্যাল ইঞ্জিনিয়ার হয়েও রাস্তায় ‘ভিক্ষা’ করছেন সুরেন্দ্র !

বয়স ৯০ বছর, মেকানিক্যাল ইঞ্জিনিয়ার হয়েও রাস্তায় ‘ভিক্ষা’ করছেন সুরেন্দ্র !

গাড়ি ঘোড়া তো দূরের কথা, যদি দু’বেলা দুমুঠো খাবার না জোটে? দারুণ নম্বরে ভরা মার্কশিট যদি শুধুমাত্র কাগজের রূপ নয় !

  • Share this:

#গোয়ালিয়র: ছোট থেকে শুনে আসা এক প্রবাদ ৷ পড়াশুনো করে যে, গাড়ি ঘোড়া চড়ে সে ! এই প্রবাদের ওপর বিশ্বাস করেই মাথা ঝুঁকিয়ে দিনরাত পড়াশুনো, পরীক্ষায় ভাল ফল, সেই ফলের জোরে ভাল চাকরি প্রাপ্তি ! সব মিলিয়ে যোগফোল ভাল জীবন ! শান্তির ৷ আর যদি এই প্রবাদ সত্যি না হয়? গাড়ি ঘোড়া তো দূরের কথা, যদি দু’বেলা দুমুঠো খাবার না জোটে? দারুণ নম্বরে ভরা মার্কশিট যদি শুধুমাত্র কাগজের রূপ নয় ! হ্যাঁ, এই প্রবাদের ঠিক উল্টো চিত্রই যেন ধরা পড়ল গোয়ালিয়রের রাস্তায় ৷ যেখানে এক বৃদ্ধকে দেখা গেল রাজপথে বসে ভিক্ষাবৃত্তি করতে ! তবে চমক এখানে নয়, চমকে উঠতে হয়, যখন জানতে পারা যায় এই বৃদ্ধ আইআইটি কানপুরের মেকানিক্যাল ইঞ্জিনিয়ার ! আসুন, পুরো গল্পটা শোনা যাক ৷ গোয়ালিয়ের এক স্বেচ্ছাসেবক সংস্থা রাস্তা থেকে উদ্ধার করেছেন এক ৯০ বছরের বৃদ্ধকে ৷ যার নাম সুরেন্দ্র বশিষ্ঠ ! এই ৯০ বছরের সুরেন্দ্র বশিষ্ঠই হলেন কানপুর আইআইটি থেকে পাশ করা মেকানিক্যাল ইঞ্জিনিয়ার ৷

গোয়ালিয়রের স্বেচ্ছাসেবক সংস্থা, যারা এই বৃদ্ধকে উদ্ধার করেছেন তাঁদের তরফ থেকে জানানো হয়েছে, ‘বহুদিন ধরেই এই বৃদ্ধকে রাস্তায় ভিক্ষাবৃত্তি করতে দেখেছি ৷ তাঁর শারীরিক অবস্থা মোটেই ভাল নয় ৷ খোঁজ খবর নিতেই দেখা যায়, তিনি মেকানিক্যাল ইঞ্জিনিয়ার এবং ১৯৬৯ সালে আইআইটি কানপুর থেকে পাশ করেন  ৷ চাকরিও করতেন জেসি মিল নামক এক সংস্থায় ৷ সেই মিল বন্ধ হওয়ার পর থেকেই অর্থনৈতিক কষ্টে ভুগতে শুরু করেন সুরেন্দ্র৷ ’ স্বেচ্ছাসেবক সংস্থার কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, ‘নিজের জীবনের কথা ঝরঝরে ইংরেজিতে বলে যান বৃদ্ধা ৷ এবং তিনি নিজে থেকেই তাঁর এই অবণতির কথা বলতে থাকেন ৷ ’ জানা গিয়েছে, তাঁর আত্মীয়স্বজ্জনের সঙ্গে যোগাযোগ করার চেষ্টা চালানো হচ্ছে ৷

Published by: Akash Misra
First published: December 9, 2020, 1:19 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर