• Home
  • »
  • News
  • »
  • national
  • »
  • 5 CORONO VIRUS SUSPECTED ADMITTED TO NORTH BENGAL MEDICAL COLLEGE AM

উত্তরবঙ্গ মেডিক্যাল কলেজে করোনা সন্দেহে ভর্তি ৫ জন !

দেশ জুড়েই কড়া সতর্কতা করোনা নিয়ে। বিশ্বজুড়ে মৃত্যু মিছিল অব্যাহত।

দেশ জুড়েই কড়া সতর্কতা করোনা নিয়ে। বিশ্বজুড়ে মৃত্যু মিছিল অব্যাহত।

  • Share this:

#শিলিগুড়ি: দেশ জুড়েই কড়া সতর্কতা করোনা নিয়ে। বিশ্বজুড়ে মৃত্যু মিছিল অব্যাহত। ক্রমেই এক দেশ থেকে অন্য দেশে ছড়িয়ে পড়ছে। করোনা সতর্কতায় এবারে শিলিগুড়ির পথে নামলেন ট্র‍্যাফিক পুলিশ কর্মীরা। পুলিশ কর্মী নিজেরাও পড়লেন মাস্ক। সঙ্গে শহরের একাধিক জনবহুল মোড়ে সাধারন মানুষদের মধ্যে বিলি করলেন মেডিকেটেড মাস্ক। রাজ্য স্বাস্থ্য দপ্তরের নির্দেশিকা মেনেই সচেতনতায় জোর ট্র‍্যাফিক পুলিশের।

শিলিগুড়ির মহাত্মা গান্ধী মোড়, হাসমি চকে চলে মাস্ক বিলি। পথ চলতি মানুষদের দাঁড় করিয়ে মাস্ক বিলি করা হয়। বিশেষ করে বয়স্ক মানুষদের দাঁড় করিয়ে মুখে মাস্ক বেঁধে দেন ট্র‍্যাফিক পুলিশ কর্মীরা। সাধারণ শহরবাসীর পাশাপাশি রিক্সাওয়ালা, টোটো এবং সিটি অটো চালকদেরও মাস্ক বিলি করা হয়। অর্থাৎ যারা সরাসরি মানুষদের সঙ্গে মেলামেশা করছেন তাদেরকেই মাস্ক বিলি করার উদ্যোগ নিয়েছে ট্র‍্যাফিক পুলিশ কর্মীরা।

আগামী আরও কয়েক দিন ধরে চলবে এই মাস্ক বিলি। শিলিগুড়ি লায়ন্স ক্লাব অব শিলিগুড়ি ইউনিটির সহযোগিতায় যৌথভাবে চলছে এই প্রক্রিয়া। এদিকে দেশে বাড়ছে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা। রাজ্যেও এক আক্রান্তের খোঁজ মিলেছে। তার জেরে কলকাতাতেও কড়া সতর্কতা জারি। এদিকে উত্তরবঙ্গ মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালে এই মূহূর্তে তিন মহিলা সহ পাঁচ জন আইশোলেশন ওয়ার্ডে চিকিৎসাধীন। যদিও এখোনো কারোরই নমুনা রিপোর্ট এসে পৌঁছয়নি। এদের মধ্যে এক জন শিলিগুড়ির বাসিন্দা। আজই দু'জন করোনা সন্দেহে ভর্তি হয়। আর তাই সতর্ক জেলা স্বাস্থ্য দপ্তরও। আজই উত্তরবঙ্গ মেডিকেলে আইশোলেশন ওয়ার্ডে বাড়ানো হয়েছে বেডের সংখ্যাও। ৬ থেকে সংখ্যাটা বাড়িয়ে ১৫ বেড করা হয়েছে। তৈরি গৃহ পর্যবেক্ষণ কেন্দ্রও। প্রয়োজনে মেডিকেলের বাইরে অন্যত্র আইসোলেশন ওয়ার্ড চালুর কথাও ভাবছে জেলা স্বাস্থ্য দপ্তর। সদা সতর্ক স্বাস্থ্য দপ্তর। জেলার মুখ্য স্বাস্থ্য আধিকারীক প্রলয় আচার্য্য নিজেই মনিটরিং করছেন পুরো বিষয়টি। জেলা, সদর হাসপাতালের পাশাপাশি গ্রামীন স্বাস্থ্য কেন্দ্রগুলোকেও তৈরী থাকতে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

Published by:Akash Misra
First published: