corona virus btn
corona virus btn
Loading

‘আঞ্চলিক ভাষা ভারতের দুর্বলতা নয়’, অমিত শাহকে কটাক্ষ করে রাহুলের ট্যুইট

‘আঞ্চলিক ভাষা ভারতের দুর্বলতা নয়’, অমিত শাহকে কটাক্ষ করে রাহুলের ট্যুইট

কেন্দ্রের এই হিন্দি আগ্রাসনের বিরুদ্ধে সরব সোনিয়া পু্ত্র রাহুল গান্ধি ৷

  • Share this:

#নয়াদিল্লি: এবার কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহকে কটাক্ষ কংগ্রেস নেতা রাহুল গান্ধির ৷ ‘আঞ্চলিক ভাষা ভারতের দুর্বলতা নয়’ ৷ জাতীয় হিন্দি দিবসে যেভাবে হিন্দিকে গুরুত্ব দেওয়ার সওয়াল করেন খোদ কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী ৷ তাতে দেওয়াল লিখনটা স্পষ্ট বলে মনে করছেন অনেকেই। দাবিটা পুরনো। সেই জনসংঘের আমলের। এবার কী সেটাই কার্যকর করার পথে মোদি সরকার? কেন্দ্রের এই হিন্দি আগ্রাসনের বিরুদ্ধে সরব সোনিয়া পু্ত্র রাহুল গান্ধি ৷

হিন্দিকে তুলে ধরা নিয়ে কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর বার্তা আসার পরই বিক্ষোভ দক্ষিণ ভারতের বিভিন্ন শহরে। প্রশ্ন উঠছে, এবার কী তবে এক দেশ - এক ভাষার পথে মোদি সরকার? সেই সম্ভাবনাকেই কটাক্ষ করে ভারতীয় পতাকার সঙ্গে বাংলা, ওড়িয়া-সহ দেশের বিভিন্ন আঞ্চলিক ভাষার উল্লেখ করে ট্যুইট করেন রাহুল ৷ বলেন, আঞ্চলিক ভাষা দুর্বলতা নয় ৷

শনিবার অমিত শাহ বলেন, ‘দেশের স্বার্থেই অভিন্ন ভাষার প্রয়োজন ৷ উত্তর পূর্বেও বাধ্যতামূলক ভাবে হিন্দি শেখানো হবে ৷ সেখানকার প্রতিটি বাচ্চাও হিন্দিই বলবে ৷ কারোরই হিন্দিতে আপত্তি থাকা উচিত নয় ৷’ কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর হিন্দি সওয়ালের বিরোধিতায় শুধুমাত্র রাহুলই নয়, এককাট্টা বিরোধীরা। দেশের বিভিন্ন প্রান্তে প্রতিবাদের ঝড় ৷ মাতৃভাষা তামিলকে নিয়ে আন্দোলনে দক্ষিণীরা ৷ তাদের আন্দোলনকে আরও জোরদার করল কমল হাসানের ভিডিও বার্তা ৷

নিজের সোশ্যাল মিডিয়া হ্যান্ডেলে সরকারের উদ্দেশে হুঁশিয়ারি বার্তা কমল হাসানের ৷ বলেন, ‘কোনও শাহ, কোনও সম্রাট বা সুলতানের ক্ষমতা নেই, দেশ তৈরির সময় দেওয়া ঐক্যের প্রতিশ্রুতি ভঙ্গ করবে ৷ জাল্লিকাট্টু শুধুমাত্র একটা প্রতিবাদ ছিল ৷ নিজেদের মাতৃভাষার জন্য আন্দোলন তার চেয়েও অনেক বড় হবে ৷’

হিন্দিকে সর্বভারতীয় ভাষা হিসেবে তুলে ধরা নিয়ে কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর বার্তা আসার পরই বিক্ষোভ ভারতের বিভিন্ন অংশে। প্রশ্ন উঠছে, এবার কী তবে এক দেশ - এক ভাষার পথে মোদি সরকার? সেই মন্তব্যের প্রতিবাদে সরব হন ডিএমকে নেতা স্ট্যালিনও ৷ বলেন, ‘আমরা ইন্ডিয়ার নাগরিক। হিনদিয়ার নয়। আমরা বরাবর হিন্দি চাপিয়ে দেওয়ার বিরোধিতা করেছি। প্রধানমন্ত্রী এনিয়ে অবস্থান স্পষ্ট না করলে আন্দোলন হবে ৷’

ট্যুইটে তাৎপর্যপূর্ণ মন্তব্য মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের। তিনি লেখেন, ‘আমাদের উচিত সব ভাষা ও সংস্কৃতিকে সম্মান জানানো। আমরা অনেক ভাষাই শিখতে পারি, কিন্তু মাতৃভাষাকে কখনই ভোলা উচিত নয় ৷’

২০১৪ সালের পরই এক দেশ - এক ভাষা নিয়ে বিজেপির ওপর চাপ বাড়িয়েছে আরএসএসের মতো সংগঠন। এতে হিন্দি বলয়ে ভোটের অঙ্ক তো আছেই, সঙ্গে আছে ভাষা আবেগ নিয়ে সংঘের নিজস্ব সমীকরণ। তাই কী এবার নরেন্দ্র মোদি - অমিত শাহদের ভাষা মিশন?

পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर