Home /News /nadia /
Nadia News: প্রাকৃতিক দুর্যোগের জেরে ফের গঙ্গা ভাঙন! উদ্বিগ্নে শান্তিপুরবাসী, পরিদর্শনে বিধায়ক

Nadia News: প্রাকৃতিক দুর্যোগের জেরে ফের গঙ্গা ভাঙন! উদ্বিগ্নে শান্তিপুরবাসী, পরিদর্শনে বিধায়ক

পায়ে

পায়ে হেঁটে গঙ্গার ভাঙন পরিদর্শনে বিধায়ক নিজেই

ঘটনার খবর পাওয়া মাত্রই ঘটনাস্থল পরিদর্শনে যান শান্তিপুরের তৃণমূল কংগ্রেসের বিধায়ক ব্রজকিশোর গোস্বামী নিজেই

  • Share this:

    #নদিয়াসেচ দফতরের আধিকারিকদের নিয়ে শান্তিপুরের বিধায়ক নিজেই গঙ্গা ভাঙন পরিদর্শন করতে এলেন। বেশ কয়েকদিন ধরেই নদিয়া জেলা সহ রাজ্যের বিভিন্ন জেলায় প্রাকৃতিক দুর্যোগের কারণে চলছিল ভারী বৃষ্টিপাত। স্বাভাবিকভাবেই নদিয়ার শান্তিপুরেও দফায় দফায় ভারী বৃষ্টিপাত হয়েছে। এর ফলেই নতুন করে আতঙ্কের সৃষ্টি হয়েছে শান্তিপুর ১৬ নম্বর ওয়ার্ডের গঙ্গার তীরবর্তী এলাকায়।

    কয়েকদিন আগেই প্রাকৃতিক দুর্যোগের কারণে ভারী বৃষ্টিপাত হয়। এই বৃষ্টিপাতের ফলে শান্তিপুর ১৬ নম্বর ওয়ার্ডের স্টিমার ঘাট এলাকার জল প্রকল্পের নীচে দেখা দেয় এক গভীর ফাটল। ঘটনার খবর পাওয়া মাত্রই ঘটনাস্থল পরিদর্শনে যান শান্তিপুরের তৃণমূল কংগ্রেসের বিধায়ক ব্রজকিশোর গোস্বামী নিজেই।

    এদিন বিধায়কের সাথে ঘটনাস্থল পরিদর্শনে যান ইরিগেশন দফতরের আধিকারিকেরাও। কাঠের সেতু পেরিয়ে এবং স্টিমারে করে সম্পূর্ণ ঘটনাস্থল এবং ঘটনাস্থলের চারপাশ পরিদর্শন করেন বিধায়ক এবং ইরিগেশন দফতরের আধিকারিকেরা। ঘটনাস্থল পরিদর্শনের পর বিধায়ক ব্রজকিশোর গোস্বামী আশ্বাস দেন সমস্যার দ্রুত সমাধানের জন্য।

    পরিদর্শনের পর বিধায়ক বলেন, "শান্তিপুরের ১৬ নম্বর ওয়ার্ডের অন্তর্গত গঙ্গার তীরবর্তী চর সাগর এলাকার একটি বড় সমস্যা হল গঙ্গা ভাঙনের। আমরা চাইছি চারটি স্তরে গঙ্গার পাড় বাঁধিয়ে যাতে গঙ্গা ভাঙনের প্রতি মুখটা বদলানো যায়। পরে একটি মোটা অংকের টাকা অ্যালটমেন্ট হলে স্থায়ীভাবে গঙ্গার পাড় বাঁধানো হবে।"

    প্রসঙ্গত, একের পর এক প্রাকৃতিক দুর্যোগের কারণে গঙ্গার তীরবর্তী এলাকার বিঘা বিঘা চাষের জমি তলিয়ে গিয়েছে গঙ্গাবক্ষে। এর আগেও ঘরছাড়া হয়েছেন একাধিক মানুষ। বসতবাড়ি, ভিটেমাটি, চাষের জমি ইত্যাদি তলিয়ে গিয়েছে ভাঙনের কবলে।

    একাধিকবার রাজনৈতিক নেতারা এসে পরিদর্শন করে গেলেও স্থায়ীভাবে সমস্যা সমাধান করা হয়নি বলে অভিযোগ। বিধায়ক প্রতিশ্রুতি দেওয়ার পর এখন দেখার, কত দিনে এই সমস্যার সমাধান হয়।

    Mainak Debnath
    First published:

    Tags: Ganga erosion, Nadia, Santipur

    পরবর্তী খবর