হোম /খবর /মালদহ /
মিষ্টির নাম নাকি 'লেউড়ি'! চিনির রসে ভরপুর স্বাদ! জিভে দিলেই গলে জল! জানুন

Malda News: 'লেউড়ি' খেয়েছেন? চিনির রসে ভরপুর স্বাদ! জিভে দিলেই গলে জল! রইল খোঁজ

X
 চিনির [object Object]

Malda News: এমন মিষ্টির নাম শোনেননি তো? আম তো অনেক খেলেন, এবার মালদহের 'লেউড়ি' খেয়ে দেখুন!

  • Hyperlocal
  • Last Updated :
  • Share this:

#মালদহ: এই মিষ্টান্ন আর অন্য কোথাও পাওয়া যায় না। শুধু তাই নয়, যে কোন সময়ে চাইলেও আপনি খুঁজে পাবেন না চিনি দিয়ে তৈরি বিশেষ এই মিষ্টান্ন। বছরে এক দিন মূলাষষ্ঠী উপলক্ষে এই মিষ্টির চাহিদা বাড়ে। শুধু তাই নয় শুধুমাত্র চিনি দিয়ে তৈরি এই মিষ্টি পুরাতন মালদহের মোকাতিপুর বেহুলা নদীর তীরের মুলাষষ্ঠীর মেলায় পাওয়া যায়। মূলাষষ্ঠীর পুজোর মূল ভোগ এই লেউড়ি। তাই সকাল পুজো দিতে আসা ভক্তরা প্রথমে লেউড়ি কিনেন । তারপর পুজো দিতে যান। প্রাচীন কাল থেকেই এই রীতি মেনে পুজো হয়ে আসছে এখানে। মেলায় ঘুরতে আসা সাধারণ দর্শকেরাও এই মিষ্টি কিনে নিয়ে যায়। ব্যাপক বিক্রি হয় এই মেলার লেউড়ির।এই বছর ২০০ টাকা কেজি দরে বিক্রি হচ্ছে লেউড়ি।

চাহিদাও ছিল ব্যাপক। শুধু মাত্র চিনি দিয়ে তৈরি এই মিষ্টি বিশেষ পদ্ধতিতে তৈরি করা হয়। চিনির পাক তৈরি করা হয়। আগুনে একটি নির্দিষ্ট তাপমাত্রা দেওয়ার পর চিনি গলে পাক তৈরি হয়। সেই পাক কেটে কেটে ছোট ছোট মিষ্টি তৈরি হয়। এই মিষ্টি দেখতে চকচকে হয়।এক সময় পুরাতন মালদহের অনেক কারিগর ছিলেন। যারা এই মিষ্টি তৈরিতে পারদর্শী ছিলেন।

আরও পড়ুন: দামোদরের মাছ গেল কই! মাছ ধরতে এসে কী পাচ্ছেন মৎস্যজীবীরা? জানলে অবাক হবেন

কিন্তু এখন কারিগরের সংখ্যা কমে এসেছে। বর্তমানের কারিগরেরা আর ভাল তৈরি করতে পারেন না। এক মিষ্টি বিক্রেতা বলেন আমরা তৈরি করতে পারি না। পুরাতন মালদহে একজন কারিগর রয়েছেন যিনি ভাল তৈরি করেন। আমরা তার থেকেই কিনে এনে বিক্রি করছি। তবে সবসময় বিক্রি হয় না। এই মেলাতেই বিক্রি হয়।পুরাতন মালদহের মুলাষষ্ঠীর মেলায় এই মিষ্টির চাহিদা থাকার মূল কারণ পুজোর প্রধান ভোগ এই মিষ্টি। তবে মেলায় আসা প্রত্যেকেই এই মিষ্টির টানে মেলায় আসেন।

হরষিত সিংহ

Published by:Piya Banerjee
First published:

Tags: Malda News, Viral sweet