Home /News /malda /
Maldah: মালদহের বন্যা ও ভাঙন মোকাবিলায় প্রস্তুত প্রশাসন

Maldah: মালদহের বন্যা ও ভাঙন মোকাবিলায় প্রস্তুত প্রশাসন

title=

উত্তরবঙ্গে ব্যাপক হারে বৃষ্টির জেরে মালদহের নদীগুলিতে জলস্তর বাড়তে শুরু করেছে।জেলার মূল তিনটি নদী গঙ্গা,ফুলহার ও মহানন্দা নদীর জলস্তর বিপদসীমা না ছুঁলেও জল বাড়তে শুরু করেছে।

  • Share this:

    মালদহ: উত্তরবঙ্গে ব্যাপক হারে বৃষ্টির জেরে মালদহের নদীগুলিতে জলস্তর বাড়তে শুরু করেছে।জেলার মূল তিনটি নদী গঙ্গা,ফুলহার ও মহানন্দা নদীর জলস্তর বিপদসীমা না ছুঁলেও জল বাড়তে শুরু করেছে। রতুয়া মানিকচক ব্লকের ফুলহার ও গঙ্গা নদীর ভাঙন শুরু হয়েছে। রতুয়া এক নম্বর ব্লকের মহানন্দাটোলা বিলাইমারি পঞ্চায়েতের বিস্তৃণ এলাকায় ফুলহার নদীতে ভাঙন শুরু হয়েছে। উত্তরবঙ্গে বৃষ্টিপাতের জেরে মালদহে এই বছর আগাম বন্যা পরিস্থিতির সম্ভবনা তৈরি হয়েছে। জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে ও শুরু হয়েছে তৎপরতা।বন্যা মোকাবিলায় এখন থেকেই সমস্ত রকম প্রস্তুতি শুরু হয়েছে। মালদহ জেলা সেচ দফতরের পক্ষ থেকে তৎপরতা শুরু হয়েছে।জেলার বিভিন্ন নদীর একাধিক বাঁধ মেরামতির কাজ শুরু করা হয়েছে। সেসমস্ত নদী বাঁধ সংস্কারের প্রয়োজন সেগুলির কাজ শুরু হয়েছে।

    নদীর স্যুইচ গেট গুলিও সংস্কার করা হচ্ছে। পাশাপাশি জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে বিভিন্ন এলাকা পরিদর্শন করে সাধারণ মানুষের সমস্যার কথা শুনছেন। শনিবার মালদহ জেলা শাসক নীতিন সিংঘানীয়া সহ এক প্রতিনিধি দল রতুয়া ও মানিকচক ব্লকের ভাঙন ও বন্যা কবলিত এলাকাগুলি পরিদর্শন করেন। বন্যা পরিস্থিতিতে আপদকালীন ত্রাণ শিবির খোলা থেকে ত্রাণ সামগ্রী মজুত করার প্রক্রিয়া শুরু হয়েছে।

    আরও পড়ুনঃ পরিস্রুত পানীয় জল পেল না ইংরেজবাজারের ২৫ নম্বর ওয়ার্ডের বাসিন্দারা

    ফি বছর মালদহে গঙ্গা ও ফুলহার নদীর ভাঙনে জেরে ঘর ছাড়া হয়ে পড়েন বহু পরিবার। প্রতিবছর ফুলহার গঙ্গার জলে প্লাবিত হয়ে পড়ে রতুয়া এক নম্বর ব্লকের বিস্তীর্ণ এলাকা। বন্যার হাত থেকে নদীর তীরবর্তী বাসিন্দাদের কিছুটা হলেও রক্ষা করতে ইতিমধ্যে উদ্যোগ গ্রহণ করতে চলেছে প্রশাসন।

    আরও পড়ুনঃ অঙ্গন‌ওয়াড়ি কেন্দ্রে হল শিশুদের অন্নপ্রাশন! উদ্দেশ্য মায়ের ‌ও শিশুর স্বাস্থ্য সচেতনতা

    নতুন বাঁধ নির্মাণ থেকে অধিক পরিমাণে ফ্লাট সেন্টার তৈরীর পরিকল্পনা নিয়েছে সরকার। তবে এবছর বন্যা পরিস্থিতি মোকাবিলায় ইতিমধ্যে তৎপর ভূমিকা পালন করতে দেখা যাচ্ছে জেলা প্রশাসনকে।

    Harashit Singha
    First published:

    Tags: Malda, River erosion

    পরবর্তী খবর