• Home
  • »
  • News
  • »
  • local-18
  • »
  • WEST BARDHAMAN BUS STOP SHELTERS TURNED INTO A COW SHED IN PASCHIM BARDHAMAN PB

ছিল যাত্রী প্রতীক্ষালয়, হল খাটাল ! মানুষ নয় সেখানে এখন গরুর ঠাঁই

যাত্রী প্রতীক্ষালয় এখন খাটাল

যাত্রী প্রতীক্ষালয় এখন গরুদের আস্তানা। মানুষজনকে অপেক্ষা করতে হচ্ছে রাস্তার ওপরেই।

  • Share this:

    #পশ্চিম বর্ধমান: তৈরি হয়েছিল রাস্তায় বেরোনো মানুষের অপেক্ষার জন্য। তবে সেই যাত্রী প্রতীক্ষালয় এখন গরুদের আস্তানা। পাশেই তৈরি হয়েছে খাটাল। মানুষজনকে অপেক্ষা করতে হচ্ছে রাস্তার ওপরেই। প্রখর রোদ, হঠাৎ বৃষ্টি থেকে বাঁচতে নয় নম্বর রাজ্য সড়কের পাশে বেশ কয়েকটি যাত্রী প্রতীক্ষালয় তৈরি হয়েছে। তবে সেই যাত্রী প্রতীক্ষালয়গুলির মধ্যে একটির করুণ দশা। বর্তমানে খাটাল মালিকের দখলে চলে গিয়েছে ওই যাত্রী প্রতিক্ষালয়। সেখানে মজুত রয়েছে গরুর খাবার, থেকে শুরু করে অন্যান্য জিনিস। বাঁধা রয়েছে গরু। দুর্গাপুরের সগরভাঙার তেতুলতলা মোড়ে অবস্থিত যাত্রী প্রতীক্ষালয়টির অবস্থা এমনই। হুঁশ নেই প্রশাসনের।

    যদিও খবর পাওয়ার পরে,  চেয়ারম্যান আশ্বাস দিয়েছেন, শীঘ্রই ওই খাটালটি যাত্রীদের প্রতীক্ষার জন্য উপযুক্ত করে তোলা হবে। খাটাল মালিকের থেকে দখলমুক্ত করা হবে ওই যাত্রী প্রতীক্ষালয়টি।দুর্গাপুরের মুচিপাড়া থেকে বাঁকুড়া যাওয়ার নয় নম্বর রাজ্য সড়ক, দীর্ঘ দিন ধরে সমপ্রসারণের দাবি উঠেছিল। সেই দাবি মেনে নয় নম্বর রাজ্য সড়ক সম্প্রসারণ হয়েছে। যদিও বেশ কিছু জায়গায় কাজ এখনও বাকি। রাস্তা সম্প্রসারনের পাশাপাশি সেখানে তৈরি হয়েছিল বেশ কয়েকটি যাত্রী প্রতীক্ষালয়। যার মধ্যে একটি বর্তমানে যাত্রীদের ব্যবহারের অযোগ্য। নিজের সুবিধার জন্য এক খাটাল মালিক, যাত্রী প্রতীক্ষালয়টিকে নিজের ইচ্ছামত ব্যবহার করছেন। রাস্তায় বেরোনো মানুষজন সমস্যায় পড়ছেন এই কারণে। রাস্তার ওপরে দাঁড়িয়ে তাদের অপেক্ষা করতে হচ্ছে। প্রখর রোদ হোক বা হঠাৎ বৃষ্টি, যাত্রী প্রতীক্ষালয়ে যেতে পারছেন না তারা। তা ছাড়াও এই রাজ্য সড়কে গাড়ি চলাচল বেশি। ফলে রাস্তায় দাঁড়িয়ে অপেক্ষা করা আশঙ্কাজনক হয়ে উঠছে। যে কোনও সময় দুর্ঘটনার কবলে পড়তে পারেন রাস্তায় বেরোনো মানুষজন।

    পুরো বিষয়টি নিয়ে ক্ষোভ জন্ম নিয়েছে স্থানীয়দের মনে। রাজ্য সরকারের অধীনে থাকা এই প্রতীক্ষালয়ের এমন করুণ দশা কেন, তার উত্তর খোঁজার চেষ্টা করছেন অনেকে।যদিও এই বিষয়ে চার নম্বর বোরো চেয়ারম্যান সুনীল চ্যাটার্জী বলেছেন, রাস্তা সম্প্রসারনের কাজ এখনও বাকি রয়েছে। সে কারণেই প্রতীক্ষালয়টি রাস্তা থেকে কিছুটা দূরে অবস্থিত। ফলে সেখানে যাত্রীদের আনাগোনা অপেক্ষাকৃত কম ছিল। সেই সুযোগ কাজে লাগিয়ে খাটাল মালিক সেটিকে নিজের সুবিধার্থে ব্যবহার করছে। তবে অতিসত্বর প্রশাসনের তরফে ব্যবস্থা নেওয়া হবে। প্রতীক্ষালয়টিকে যাত্রীদের ব্যবহারের উপযুক্ত করে তোলা হবে। পথচলতি মানুষজনও প্রশাসনের পদক্ষেপের অপেক্ষায় রয়েছেন।

    Nayan Ghosh

    Published by:Piya Banerjee
    First published: