• Home
  • »
  • News
  • »
  • local-18
  • »
  • পৃথক ঘটনায় সততার নজির, খুশি জলপাইগুড়িবাসী

পৃথক ঘটনায় সততার নজির, খুশি জলপাইগুড়িবাসী

পৃথক ঘটনায় সততার নজির, খুশি জলপাইগুড়িবাসী

পৃথক ঘটনায় সততার নজির, খুশি জলপাইগুড়িবাসী

সততার নজির গড়লেন এক বাস কন্ডাক্টরের স্ত্রী।

  • Share this:

    #জলপাইগুড়ি: করোনা অতিমারিতে যেমন অপরাধের পরিসংখ্যান বেড়েছে তেমনই পাল্লা দিয়ে বেড়েছে সততার নজির। কোথাও কেউ রাস্তায় পাওয়া সোনার চেইন ফিরিয়ে দিচ্ছেন, আবার কেউ নগদ পেয়েও সেটা ফিরিয়ে দিচ্ছেন। কাজ হারানো, দরিদ্র মানুষের মধ্যে সততা ও সচেতনতার সাবেকিয়ানা যেন বারবার আঙুল দিয়ে দেখিয়ে দিচ্ছে সমাজকে যে \'সমাজ তোর এখনও অনেক শিক্ষা বাকি!\'

    এমন পৃথক দুটি ঘটনার সাক্ষী থাকল জলপাইগুড়ি। সততার নজির গড়লেন এক বাস কন্ডাক্টরের স্ত্রী। রাস্তায় সোনার পাওয়া চেইন ফিরিয়ে দেবার উদ্যোগ নিলেন তিনি। বুধবার রাতে জলপাইগুড়ি ৪ নম্বর ঘুমটি এলাকায় একটি ছোট সোনার চেইন ও একটি চাবি কুড়িয়ে পেয়েছিলেন তিনি। অনেক খোঁজাখুঁজি করার পরও প্রকৃত সোনার চেইনের মালিক তিনি পাননি। বৃহস্পতিবার জলপাইগুড়ি চার নম্বর ঘুমটি এলাকার মরজিদের আমিনকে প্রকৃত মালিকের হাতে ফিরিয়ে দেবার জন্য তুলে দেন ওই বাস কন্ডাক্টরের স্ত্রী ও তাঁর স্বামী। আগামীতে যাতে  উপযুক্ত প্রমাণ দিয়ে সেই চেইনটি তার মালিক পেতে পারেন তাই এই উদ্যোগ বলে তিনি জানান।

    অন্যদিকে, অবসরপ্রাপ্ত এক প্রবীন স্বাস্থ্যকর্মীর হাতে পাঁচ হাজার টাকা কুড়িয়ে পেয়েও ফিরিয়ে দিয়ে সততার নজির গড়লেন জলপাইগুড়ি কোতয়ালী থানার কনস্টেবল বাবলু বাসফোর। এদিন জলপাইগুড়ি কংগ্রেস পাড়ায় ভ‍্যাকসিন সেন্টারে ডিউটি করছিলেন বাবলু বাসফোর। হঠাৎই দেখতে পান সেখানে কয়েকটি পাঁচশো টাকার নোট মাটিতে পড়ে আছে। গুনে দেখেন পাঁচ হাজার। তিনি চারপাশে খোঁজখবর করেও টাকা যার তাকে পাইনি।এরপর ঐ ভ‍্যাকসিন সেন্টারের এক ডাক্তারকে টাকাটা দিয়ে যান। এরপরই উপযুক্ত প্রাপক বিবেকানন্দ ভট্টাচার্য ছুটে আসেন। তিনি ব্যাঙ্কে টাকাটি জমা করবেন বলে এনেছিলেন। কিন্তু কোনও এক কারণে টাকা পড়ে যায় এখানে ভ‍্যাকসিন নিতে এসে। কনস্টেবল বাবলু বাসফোর এই পুরো টাকা এদিন ফিরিয়ে দেন বিবেকানন্দবাবু হাতে। কনস্টেবলের এই সততার পরিচয়ে বিবেকানন্দ বাবু সমেত খুশি গোটা শহরবাসী।

    Vaskar Chakraborty

    Published by:Ananya Chakraborty
    First published: