• Home
  • »
  • News
  • »
  • local-18
  • »
  • করোনাকে ছাপিয়ে বাড়ছে জেলায় ডায়রিয়ায় আক্রান্তের সংখ্যা

করোনাকে ছাপিয়ে বাড়ছে জেলায় ডায়রিয়ায় আক্রান্তের সংখ্যা

কামারহাটি হাসপাতালের ছবি।

কামারহাটি হাসপাতালের ছবি।

উত্তর ২৪ পরগনা জেলার কামারহাটিতে ১,২,৩,৪, এবং ৫ নং ওয়ার্ডে ডায়রিয়াতে আক্রান্ত ৩০ জনেরও বেশি।

  • Share this:

    রাতুল ব্যানার্জি, উত্তর ২৪ পরগনা: করোনার দ্বিতীয় ঢেউয়ের যে ভাবে বিপর্যস্ত হয়ে পড়েছিল গোটা দেশ তথা রাজ্য সেখানে দাঁড়িয়ে এখন আপাতত অনেকটাই নিম্নমুখী করোনার গ্রাফ। জোর কদমে চলছে টিকাকরণ। করোনার দ্বিতীয় ঢেউয়ে দেশ তথা রাজ্যের স্বাস্থ্যব্যবস্থার পরিকাঠামোর হাল তা মানুষের মাঝে ফুটে উঠেছিল ঠিকই, সেই পরিপ্রেক্ষিতে কেন্দ্রীয় সরকার এবং রাজ্য সরকারের উদ্যোগে ঢেলে সাজানো হয়েছে স্বাস্থ্যব্যবস্থাকে। জেলার বিভিন্ন হাসপাতালকে করোনা হাসপাতাল রূপান্তরিত করা হয়। এছাড়াও বিভিন্ন হাসপাতালে তৈরি করা হয় অক্সিজেন প্লান্ট। যার ফলে যে অক্সিজেনের অভাব দ্বিতীয় ঢেউয়ে দেখা গিয়েছিল তার থেকে অনেকটাই কমবে বলে আশা বিশেষজ্ঞদের।

    দোরগোড়ায় করোনার তৃতীয় ঢেউ। বিশেষজ্ঞদের মতে, সেপ্টেম্বর-অক্টোবরের শুরুতেই রাজ্যে আছড়ে পড়তে পারে করোনার তৃতীয় ঢেউ। তাই কোনও ঢিলেমি না দিয়ে ধীরে ধীরে রাজ্য সরকারের পক্ষ থেকে তোলা হচ্ছে বিধিনিষেধ। এখনও বন্ধ রয়েছে লোকাল ট্রেন থেকে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান। তবে পুজোর পর স্কুল খোলার ভাবনা রয়েছে পশ্চিমবঙ্গ সরকারের। সামনে পুজো। আর তাই কোভিডবিধি মেনেই দুর্গা পুজোর আয়োজন এর নির্দেশ সরকারের। কিন্তু এরই মাঝে দেখা দিয়েছে অন্য আরেক রোগ।

    যখন করোনাকে নিয়ে তৎপর সরকার তারই মাঝে দেখা গেল ডায়রিয়া রোগের প্রকোপ। করোনাকে ছাপিয়ে বাড়ছে ডায়রিয়া। ইতিমধ্যে আক্রান্ত প্রচুর। উত্তর ২৪ পরগনা জেলার কামারহাটিতে ১,২,৩,৪, এবং ৫ নং ওয়ার্ডে ডায়রিয়াতে আক্রান্ত ৩০ জনেরও বেশি। এর মধ্যে শিশু আছে পাঁচ জন। পৌরসভার জল থেকে এই সংক্রমণ ছড়িয়েছে বলে সুত্রের খবর। এই পাঁচ ওয়ার্ডে পৌরসভার সরবরাহ জল ব্যবহার করতে নিষেধ করেছে পৌরসভা। জলের নমুনা পাঠানো হয়েছে ল্যাবরেটরিতে। আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে মোট ৬৮ জন।

    ইতিমধ্যেই হাসপাতাল সূত্রে জানা যাচ্ছে, দু'জনের মৃত্যুর কথা। রাজ্যের বিভিন্ন পৌরসভার উদ্যোগে জল-সরবরাহ করা হয় সাধারণ মানুষের উদ্দেশ্যে। নিয়ম মেনে প্রতিদিন তিন বেলা করে জল সরবরাহ করা হয় জেলার বিভিন্ন পৌরসভার বিভিন্ন ওয়ার্ডে। আর কামারহাটির এই ঘটনায় আতঙ্কিত হয়ে পড়েছেন সাধারণ মানুষ। তাদের মতে পৌরসভার জল থেকেই যদি এমন অবস্থা হয় তাহলে কোন জল ব্যবহার করবে সেই প্রশ্নে দিন কাটাচ্ছে তারা। এখন দেখার কবে এই সমস্যা থেকে সমাধানে ফিরবে কামারহাটি পৌরসভা।

    Published by:Ananya Chakraborty
    First published: