Home /News /life-style /

Viral Video : কঙ্কালসার সিংহকে দেখে ক্ষুব্ধ নেটিজেনরা, করাচি পশুশালা কর্তৃপক্ষের দাবি খাদ্যাভাব নেই

Viral Video : কঙ্কালসার সিংহকে দেখে ক্ষুব্ধ নেটিজেনরা, করাচি পশুশালা কর্তৃপক্ষের দাবি খাদ্যাভাব নেই

Viral:দেখা গিয়েছে একটি অতি দুর্বল সিংহ খাঁচায় ধুঁকছে

Viral:দেখা গিয়েছে একটি অতি দুর্বল সিংহ খাঁচায় ধুঁকছে

Viral Video : অনলাইনে ছড়িয়ে পড়েছে করাচি পশুশালার (Karachi Zoo) এই ভিডিও৷ তার পরই প্রাচীন এই চিড়িয়াখানার বিরুদ্ধে তোপ দেগেছেন পশুপ্রেমীরা৷

  • Share this:

    করাচি : অসহায় ভাবে ধুঁকছে কঙ্কালসার সিংহ (weak lion)৷ অনলাইনে ছড়িয়ে পড়েছে ‘করাচি পশুশালার’ (Karachi Zoo) এই ভিডিও৷ তার পরই প্রাচীন এই চিড়িয়াখানার বিরুদ্ধে তোপ দেগেছেন পশুপ্রেমীরা৷ পাকিস্তানের এক নামী টিভি চ্যানেলে সম্প্রচারিত প্রতিবেদনে দাবি করা হয়েছে, করাচি পশুশালায় যাঁরা খাবার সরবরাহ করেন, তাঁরা সোমবার কাজ করেননি৷ অভিযোগ, তাঁদের প্রাপ্য অর্থ দীর্ঘ কয়েক মাস ধরে বকেয়া হয়ে পড়ে আছে৷

    পশুদের খাদ্য সরবরাহকারী সংস্থার ঠিকাদার আমজাদ মাহমুদের অভিযোগ, ‘‘এ বছরের ফেব্রুয়ারি মাস থেকে কর্তৃপক্ষ আমাদের কোনও অর্থ মেটাননি৷’’ অবশ্য পরে তিনি এও জানান, চিড়িয়াখানা কর্তৃপক্ষের সঙ্গে সব ঝামেলা মিটে গিয়েছে৷ তাঁকে আশ্বাস দেওয়া হয়েছে, চলতি বছরের ডিসেম্বরের মধ্যে সব বকেয়া মিটিয়ে দেওয়া হবে৷ চিড়িয়াখানাটি করাচি মেট্রোপলিটন কর্পোরেশন বা কেএমসি-র তত্ত্বাবধানে আছে৷

    বিতর্কিত প্রসঙ্গ প্রকাশ্যে আসে সাংবাদিক কাটরিনা হোসেনের দৌলতে৷ তিনি একটি ভিডিও শেয়ার করেন৷ সেখানে দেখা গিয়েছে একটি অতি দুর্বল সিংহ খাঁচায় ধুঁকছে৷ ভিডিও শেয়ার করে তিনি লেখেন, ‘করাচি চিড়িয়াখানা খাদ্য সরবরাহকারীদের টাকা দিতে ব্যর্থ...জীবজন্তুদের চেহারা এখন ভয়াবহ৷’’ এই ভিডিওটি সামাজিক মাধ্যমে কয়েকশো বার শেয়ার করা হয়েছে৷ নেটিজেনদের অনেকেই চিড়িয়াখানা কর্তৃপক্ষের বিরুদ্ধে কঠোর শাস্তির দবি তুলেছেন৷

    অন্যদিকে করাচি মেট্রোপলিটন কর্পোরেশনের মুখপাত্র  আলি হাসান সাজিদের দাবি, সামাজিক মাধ্যমে যে ছবি ঘুরছে, সেগুলি পুরনো৷ তাঁর দাবি, চিড়িয়াখানা কর্তৃপক্ষের ভাবমূর্তি নষ্ট করতেই এই কাজ করা হয়েছে৷ তিনি আরও জানান, খাবার সরবরাহ বন্ধ হয়ে গেলেও চিড়িয়াখানা কর্তৃপক্ষের কাছে অন্তত এক সপ্তাহের খাদ্য মজুত আছে৷

    করাচি চিড়িয়াখানার সিনিয়র ডিরেক্টর খালিদ হসমিও ইন্টানেটে ঘুরতে থাকা সব অভিযোগ নস্যাৎ করেছেন৷ তিনি জানান, চিড়িয়াখানায় খাবারের কোনও অভাব নেই৷ রুটিন মেনে জীবজন্তুদের খাওয়ানো হয়েছে বলে দাবি করেন তিনি৷ সাধারণ মানুষকে চিড়িয়াখানায় এসে জীবজন্তুদের দেখে যেতেও আমন্ত্রণ জানিয়েছেন তিনি৷

    খালিদ হসমি যে ভিডিও শেয়ার করেছেন সেখানে অন্যান্য জীবজন্তুরা থাকলেও সেই দুর্বল সিংহটি নেই! এই মর্মেও জানতে চেয়েছেন নেটিজেনরা৷ প্রশ্ন করেছেন স্বয়ং সাংবাদিক কাটরিনা হোসেনও৷

    প্রসঙ্গত করাচি চিড়িয়াখানা পাকিস্তানের মধ্যে বৃহত্তম এবং প্রাচীনত্বের দিক থেকে লাহোরের পরেই এর স্থান৷

    Published by:Arpita Roy Chowdhury
    First published:

    Tags: Karachi Zoo, Viral Video

    পরবর্তী খবর