Home /News /life-style /
Time Management : ঘরে বাইরে সামলাতে গিয়ে নাস্তানাবুদ? ব্যক্তিগত ও পেশাদার জীবনের মধ্যে ভারসাম্য রাখুন এভাবেই

Time Management : ঘরে বাইরে সামলাতে গিয়ে নাস্তানাবুদ? ব্যক্তিগত ও পেশাদার জীবনের মধ্যে ভারসাম্য রাখুন এভাবেই

balance between personal and professional life

balance between personal and professional life

পেশাদার দুনিয়া এবং সংসার ম্যানেজ করার টিপস খুঁজতে গিয়ে নাজেহাল হয়ে যান অধিকাংশ মহিলা৷(Tips to balance between personal and professional life)

  • Share this:

    বয়সের সঙ্গে সঙ্গে অভিজ্ঞতার পাশাপাশি পাল্লা দিয়ে বাড়তে থাকে দায়িত্বভারও৷ আচমকাই একদিন আমরা নিজেকে আবিষ্কার করি অন্তহীন কাজের সমুদ্রে৷ শেষ অবধি নিজেদের জন্যই কোনও সময় বরাদ্দ থাকে না৷ বিশেষ করে কর্মরতা মেয়েরা ঘরে বাইরে সামলাতে গিয়ে এই সমস্যায় আরও বেশি করে পড়েন৷ পেশার জগতে কর্মদক্ষতা দেখাতে গিয়ে অবহেলিত হয় সংসার৷ আবার সংসারের দায়িত্ব পালন করতে গিয়ে মিস অফিসের ডেডলাইন৷ পেশাদার দুনিয়া এবং সংসার ম্যানেজ করার টিপস খুঁজতে গিয়ে নাজেহাল হয়ে যান অধিকাংশ মহিলা৷(Tips to balance between personal and professional life)

    ভারসাম্য প্রয়োজন-

    দায়িত্ববান হিসেবে ব্যক্তিগত এবং পেশাদার দুনিয়ার মধ্যে ভারসাম্য রক্ষা করা প্রয়োজন৷ এই দুই জগতকে ভিন্ন মেরুতে রাখতে পারে সবথেকে ভাল৷ কিন্তু গত দু’ বছরে ওয়ার্ক ফ্রম হোমের নতুন জীবনচর্চায় সেটা হয়তো সম্ভব নয়৷ তবুও যতটা সম্ভব সীমারেখা বজায় রাখতে হবে৷ দুই ভিন্ন বিশ্ব মিলিয়ে ফেললে চলবে না৷ আবার কোনও জায়গা থেকে নিজেকে সম্পূর্ণ সরিয়ে ফেললেও চলবে না৷ নিজে একান্তই সমাধান করতে না পারলে কথা বলুন ঘনিষ্ঠ কারওর সঙ্গে৷ সমস্যা এবং কাজের দায়িত্ব ভাগ করে নিন৷ সমাধানসূত্র পাবেন, সেইসঙ্গে লাঘব হবে মনের ভারও৷

    আরও পড়ুন : সুস্থতার জন্য এই খাবারগুলি রাখতেই হবে ডায়েটে

    কাজের সূচি-

    কাজের সূচি তৈরি করে নিন৷ রাতে ঘুমোতে যাওয়ার আগে লিখে রাখুন পরের দিন কখন কোনটা করবেন৷ তাহলে উদ্বেগমুক্ত হয়ে সুষ্ঠু হয়ে সব কাজ করতে পারবেন৷ পরিবারের বাকিদের কাজের সঙ্গে মিলিয়ে সূচি তৈরি করুন৷ তাহলে সব কাজের মধ্যেও শৃঙ্খলা থাকবে৷

    আরও পড়ুন : আপনার স্কুলপড়ুয়া সন্তান কি মাঝে মাঝেই রাতে বিছানা ভিজিয়ে ফেলে? জানুন এই সমস্যার কারণ

    যোগাযোগ-

    অধিকাংশ সমস্যার মূল সমাধান হল যোগাযোগ৷ পরিবার এবং কাজের জায়গায়, আপনার চারপাশে যাঁরা আছেন তাদের সঙ্গে নিয়মিত কথা বলুন৷ গঠনমূলক আলোচনায় সমাধান হয় না এমন সমস্যা বিরল৷ বরং যোগাযোগের অভাবে জীবন আরও জটিল হয়ে ওঠে৷ ঘরে ও বাইরে, দু’ জায়গাতেই ক্ষতিগ্রস্ত হয় আপনার কর্মদক্ষতা৷

    আরও পড়ুন : শুধু উপভোগ্যই নয়, প্রিয়জনের সঙ্গে একই শয্যায় সুনিদ্রার সুফলও বহু

    যে মুহূর্তে যেটা গুরুত্বপূর্ণ, সেটা করুন-

    কোন মুহূর্তে কোন কাজটা বেশি গুরুত্বপূর্ণ সেটা আপনাকেই ঠিক করতে হবে৷ যাকে বলে প্রয়ারটাইজ করা, সেটা করতেই হবে৷ তাহলে ঘরে বাইরে সব কাজের মধ্যে সামঞ্জস্য রাখতে পারবেন৷ সময়মতো সব কাজ হয়েও যাবে৷ বাদ পড়বে না কোনও কাজ৷ জীবন মসৃণ হবে, সাশ্রয় হবে অর্থও৷

    Published by:Arpita Roy Chowdhury
    First published:

    Tags: Lifestyle, Time Management

    পরবর্তী খবর