Home /News /life-style /
Skin Care: ত্বকের জেল্লা ফিরিয়ে আনুন এক মিনিটে! জেনে নিন ভেষজ টোটকা! অবাক হবেন নিজেই

Skin Care: ত্বকের জেল্লা ফিরিয়ে আনুন এক মিনিটে! জেনে নিন ভেষজ টোটকা! অবাক হবেন নিজেই

Skin Care: আয়ুর্বেদ অনুযায়ী স্বাস্থ্যকর ও উজ্জ্বল ত্বকের জন্য সহজলভ্য উপাদান থেকে তৈরি পাঁচটি প্রাকৃতিক প্রতিকার এখানে দেওয়া হল।

  • Share this:

#নয়াদিল্লি: স্বাস্থ্যকর ত্বক আকাশ থেকে পড়ে না। সামগ্রিক জীবনযাত্রারই প্রতিফলন ঘটে ত্বকে। এমনই মনে করে আয়ুর্বেদ। দূষণ, বিভিন্ন কসমেটিকসের ব্যবহারের মতো বাহ্যিক কারণ এবং পুষ্টিকর খাওয়াদাওয়া, পর্যাপ্ত ঘুম-জলপানের মতো অভ্যন্তরীন কারণগুলি ত্বকের গঠনকে প্রভাবিত করে। ত্বক হয় শুষ্ক, খসখসে কিংবা প্রাণবন্ত, উজ্জ্বল।

আয়ুর্বেদ অনুসারে শরীরের ভারসাম্য রক্ষা করে বাত, পিত্ত এবং কফ- এই ত্রিদোষ। সে ত্বক, চুল বা শরীরের যে কোনও অঙ্গপ্রত্যঙ্গই হোক না কেন! আয়ুর্বেদ দাবি করে, বাত দোষের বৃদ্ধির কারণে ত্বক শুষ্ক হয়ে যায় এবং কোষের ক্ষতি করে। যার ফলে চামড়ায় রক্ষ এবং ফ্ল্যাকি টেক্সচারযুক্ত দাগ দেখা যায়। অত্যধিক পরিশ্রম এবং অপর্যাপ্ত বিশ্রাম এই সমস্যাকে আরও বাড়িয়ে দেয়। আয়ুর্বেদ অনুযায়ী স্বাস্থ্যকর ও উজ্জ্বল ত্বকের জন্য সহজলভ্য উপাদান থেকে তৈরি পাঁচটি প্রাকৃতিক প্রতিকার এখানে দেওয়া হল।

মধু: এতে অ্যান্টিসেপটিক এবং অ্যান্টিব্যাকটেরিয়াল বৈশিষ্ট্য রয়েছে, যা ব্রন-প্রবণ ত্বকের জন্য আদর্শ। মধু ত্বককে হাইড্রেটেড রাখে, ব্ল্যাকহেডস অপসারণ করে এবং ত্বককে করে তোলে মখমলের মতো কোমল। এক্ষেত্রে ত্বকে শুধু কাঁচা মধু লাগানো যায়। ১০ মিনিট পর ধুয়ে ফেলতে হবে। এতে ত্বক হাইড্রেটেড থাকবে এবং মোলায়েম হবে। এছাড়া ১ চা চামচ লেবুর রস, ১ চা চামচ বেকিং সোডা এবং ১ চা চামচ মধু মিশিয়ে ফেস প্যাক তৈরি করে মুখে লাগালেও ভালো কাজ দেবে। ২০ মিনিট পর গরম জলে মুখ ধুয়ে ফেলতে হবে।

লেবু এবং চিনি: লেবু এবং চিনি ত্বকের মৃত কোষ অপসারণ এবং ত্বককে এক্সফোলিয়েট করার জন্য একটি দুর্দান্ত কম্বো। এটা প্রাকৃতিক ব্লিচিং এজেন্ট হিসেবে কাজ করে। ত্বককে ঝলমলে করে তুলতে এর জুড়ি নেই। ২ টেবিল চামচ চিনি এবং ২ টেবিল চামচ লেবুর রস দিয়ে একটা মিশ্রণ তৈরি করতে হবে। তারপর সেটা আলতো হাতে বৃত্তাকারে স্ক্রাব করতে হবে মুখে ঘাড়ে। মিনিট দশেক পর কুসুম গরম জলে ধুয়ে ফেলতে হবে মুখ। সপ্তাহে ২ বার করলেই হাতেনাতে ফল মিলবে।

অ্যালোভেরা, হলুদ এবং বেসন: অ্যালোভেরাতে আছে অ্যান্টিব্যাকটেরিয়াল বৈশিষ্ট যা ত্বককে ঠান্ডা রাখে এবং পুষ্টি যোগায়। হলুদের অ্যান্টি-ইনফ্লেমেটরি এবং অ্যান্টি-অক্সিডেন্ট গুণাবলী ত্বকের ফ্রি র‍্যাডিক্যাল অপসারণ করতে সাহায্য করে। কোলাজেন উৎপাদনকেও বাড়িয়ে দেয়। অন্যদিকে বেসন ত্বককে উজ্জ্বল এবং পরিষ্কার করে। এক টেবিল চামচ বেসন (বেসন), এক টেবিল চামচ হলুদ এবং দুই টেবিল চামচ অ্যালোভেরা মিশিয়ে একটি ঘন পেস্ট তৈরি করতে হবে। সেটা লাগাতে হবে মুখে, ঘাড়ে। শুকনোর জন্য ১৫ মিনিট অপেক্ষা করে ধুয়ে ফেলতে হবে ঠান্ডা জলে।

আরও পড়ুন:  কেন বাংলা ছবি থেকে বাদ গেল রূপঙ্করের গান? কেরিয়ার কী শেষ? রয়েছে অন্য কারণ

নারকেল তেল: নারকেল তেল একটি কার্যকর ময়েশ্চারাইজার যা অ্যান্টিব্যাকটেরিয়াল বৈশিষ্ট্য সমৃদ্ধ। এটা নিবিড়ভাবে ত্বককে পুষ্ট করে এবং মসৃণ এবং সিল্কি টেক্সচার এনে দেয়। নারকেল তেলে থাকা মাঝারি-চেইন ফ্যাটি অ্যাসিডের অ্যান্টিমাইক্রোবিয়াল বৈশিষ্ট্যগুলি ত্বকের স্বাস্থ্যের জন্য অপরিহার্য। রাতে শোবার আগে ২ টেবিল চামচ নারকেল তেল গরম করে আলতো হাতে বৃত্তাকারে মুখে মাসাজ করতে হবে। শোবার আগে এটা প্রতিদিন করা যেতে পারে। এছাড়া নেরকেল তেলে অল্প চিনি মিশিয়ে সপ্তাহে একবার বা দুবার এক্সফোলিয়েট করতে স্ক্রাব হিসেবেও ব্যবহার করা যায়।

Published by:Piya Banerjee
First published:

Tags: Ayurveda, Skin Care

পরবর্তী খবর