কী কী লক্ষণ দেখে বোঝা যাবে নির্দিষ্ট চাকরি ছেড়ে দেওয়া উচিত!

বেতন, কাজের পরিবেশ, সংস্থার অবস্থা সহ একাধিক কারণ থাকে চাকরি ছাড়ার পিছনে।

বেতন, কাজের পরিবেশ, সংস্থার অবস্থা সহ একাধিক কারণ থাকে চাকরি ছাড়ার পিছনে।

  • Share this:

#কলকাতা: অনেকেই আছেন যাঁরা কোনও একটি সংস্থায় বছরের পর বছর কাজ করে কাটিয়েছেন, আবার অনেকেই আছেন কোনও একটি সংস্থায় এক মাসও কাটাতে পারেননি। বেতন, কাজের পরিবেশ, সংস্থার অবস্থা সহ একাধিক কারণ থাকে চাকরি ছাড়ার পিছনে। কোনও একটি সংস্থার সঙ্গে নিজেকে খাপ খাওয়াতে না পারলে সেই সংস্থা ত্যাগ করা শ্রেয়। তাহলে কখন কোনও একটি সংস্থা ছেড়ে দেওয়া উচিত? বুঝে নিন এই কারণগুলি দেখে-

সবাই চান নিজের প্যাশনকে প্রফেশনে পরিণত করতে। অনেকে সে সুযোগ পেলেও অধিকাংশই তা পাননা। যখন কারোর মনে হবে সেই সংস্থায় চাকরি করে তিনি তাঁর প্যাশন থেকে দূরে সরে যাচ্ছেন তাহলে সেই সংস্থা ত্যাগ করা উচিত।

কর্মক্ষেত্রের পরিবেশ যদি অস্বাস্থ্যকর হয় তাহলে সেই সংস্থা ছেড়ে দেওয়া প্রয়োজন। অনেক সময়ই সহকর্মীদের সামনেই অনেককে অপমানিত হতে হয়। যা মানসিক চাপ তৈরি করে। কাজের পরিবেশ সঠিক না হলে কাজ যেমন শান্তিতে করা সম্ভব হয় না তেমনই মানসিক হতাশায় ভুগতে হয়।

কোনও সংস্থার কর্মী তাঁর কর্মদক্ষতা সঠিকভাবে না ব্যবহার করতে পারেন তাহলে সেই সংস্থার ছেড়ে দেওয়া উচিত। কারণ যদি নিজের স্কিল সঠিকভাবে না ব্যবহার করা হয় তাহলে অন্য সংস্থার কাছে গ্রহণযোগ্যতা কমে। এছাড়াও দক্ষতা দিনের পর দিন কমতে থাকে।

যদি দেখা যায় কোনও সংস্থার ব্যবসায় লাভ হচ্ছে না বা সংস্থা ভালো অবস্থায় নেই তাহলে সেই সংস্থা ছেড়ে দেওয়া প্রয়োজন। কারণ সংস্থা লাভজনক অবস্থায় না থাকলে যে কোনও সময় তা বন্ধ হয়ে যেতে পারে। সেসময় সমস্যা পড়ার সম্ভাবনা বেশি। তাই সেক্ষেত্রে সুযোগ বুঝে কর্মক্ষেত্র ত্যাগ করাই প্রয়োজন।

অনেক সংস্থা আছে যাঁরা কাজের তুলনায় অনেক কম বেতন দেয়। এমনকী অতিরিক্ত সময় কাজ করিয়েও তার জন্য প্রাপ্য টাকা দিতে চায়না। এই ধরনের সংস্থা থেকে ছেড়ে যাওয়া উচিত। কারণ, কাজের বদলে বেতন প্রাপ্য। কিন্তু প্রাপ্য টাকা না দিলে তা সম্পূর্ণ অনুচিত কাজ।

যদি কোনও সংস্থার কালচারের সঙ্গে কোনও কর্মী না খাপ খাওয়াতে পারেন তাহলে সেই সংস্থা ছেড়ে দেওয়া উচিত। অনেক সংস্থা আছে যেখানে গভীর রাত পর্যন্ত কাজ চলে অথবা খুব সকাল থেকে কাজ শুরু হয়। অনেকেরই এই কালচারে সমস্যা হতে পারে। সেক্ষেত্রে তাঁদের উচিত অন্য কোনও সংস্থায় নিজেকে প্রতিষ্ঠা করা।

Published by:Dolon Chattopadhyay
First published: