সঙ্গমের তীব্র শীৎকারে কান ঝালাপালা প্রতিবেশীদের ! যুবককে চিঠি, তারপর...

photo source collected

এই ঘটনায় ওই যুবক বেশ লজ্জিত। জানা গিয়েছে নিজের প্রেমিকার সঙ্গেই এই বাড়িতে থাকেন স্টিফেন।

  • Share this:

    #স্কটল্যান্ড:  আমাদের দেশে হলে এতক্ষণে মানুষ রাস্তায় প্লাকার্ড হাতে নেমে পড়তেন। সঙ্গম, তাতে আওয়াজ, আবার তাও নাকি পৌঁছাচ্ছে প্রতিবেশির কানে। ভাবুন তো ! যদিও ঠিক এমন একটিই ঘটনা বেশ কয়েক বছর আগে ঘটেছিল। তেমনই একটি ঘটনায় ফের চমকে উঠল নেট নাগরিকরা। সম্প্রতি ট্যুইটারে স্টিফেন কানিংহাম নামে ২৬ বছর বয়সি স্কটল্যান্ডের (Scotland) এক যুবক একটি পোস্ট শেয়ার করেছেন। একটি চিঠি। সেই চিঠি নিয়েই জল্পনা শুরু হয়েছে।

    গ্লাসগোয় একটি আবাসনে থাকেন স্টিফেন। কয়েকমাস আগেই তিনি সেখানে এসেছেন। কিন্তু কয়েকদিন আগে একটি চিঠি হাতে পান তিনি। সেখানে তাঁকে উদ্দেশ্য করে লেখা, এই বাড়ির দেওয়াল খুবই পাতলা। তাই এক ঘরের আওয়াজ অন্য ঘরে সহজেই চলে আসে। রাত বিরেতে আপনার সঙ্গমের আওয়াজও তাই আমরা স্পষ্ট শুনতে পাই। দয়া করে আওয়াজ যেন একটু আস্তে হয়, সেই খেয়াল রাখুন। আমরা খুব বিরক্ত বোধ করছি। এই প্রসঙ্গে স্টিফেন বলেন, “আমারই কোনও প্রতিবেশি হয়তো এই চিঠিটি লিখেছেন। তবে তিনি কে? সেটা বুঝতে পারছি না। অবশ্য চিঠিটি দেখার পর আমি খুবই হেসেছিলাম। লজ্জাও লাগে।” স্টিফেন বলেন তাঁর প্রতিবেশীরা খুবই ভদ্র। তাই তাঁরা এভাবে চিঠি দিয়ে তাঁকে সচেতন করেছেন। কেউ তাঁকে অপমান করেনি।

    কিন্তু এই ঘটনায় ওই যুবক বেশ লজ্জিত। জানা গিয়েছে নিজের প্রেমিকার সঙ্গেই এই বাড়িতে থাকেন স্টিফেন। রাতে তাঁদের সঙ্গমের আওয়াজ ঘুম কাড়ছে প্রতিবেশীদের। তবে স্টিফেন জানিয়েছেন, ভবিষ্যতে এই বিষয়টি তিনি মাথায় রাখবেন। ওদিকে ট্যুইটারে এই চিঠি শেয়ার করা মাত্রই নেট নাগরিকরা বিস্ময় প্রকাশ করেছেন। অনেকেই হেসেওছেন বিষয়টি। তবে সকলেই প্রতিবেশীদের উদার মানসিকতার প্রশংসা করেছেন। তবে এমন একটি ঘটনা বেশ কয়েক বছর আগে ইউকেতেও ঘটেছিল। তবে চিঠি দিয়ে নয় মহিলাকে সামনে ডেকে বলেছিলেন প্রতিবেশীরা।

    Published by:Piya Banerjee
    First published: