• Home
  • »
  • News
  • »
  • life-style
  • »
  • HOW TO BUILD YOUR CHILDRENS SOCIAL SKILLS AND NURTURE THEIR EMOTIONAL HEALTH TC DC

বাড়াতে হবে সামাজিক দক্ষতা, মানসিক ভাবে রাখতে হবে সুস্থ; কী ভাবে বড় করবেন সন্তানকে?

বাড়াতে হবে সামাজিক দক্ষতা, মানসিক ভাবে রাখতে হবে সুস্থ; কী ভাবে বড় করবেন সন্তানকে?

এবিষয়ে বিস্তারিত তথ্য নিয়ে সম্প্রতি একটি বই প্রকাশ করেছেন মুম্বইয়ের এক লেখিকা অমৃতা অশ্বিনী (Amrita Aswani)।

  • Share this:

#কলকাতা: আমার সন্তান যেন থাকে দুধে ভাতে! প্রতিটি বাবা-মায়ের এই একটাই ইচ্ছা থাকে। কিন্তু বর্তমান সময়ে আপনার সন্তনকে শুধু দুধেভাতে রাখলে তো আর হবে না। বেশ কিছু বিষয়ে জেনে রাখতে হবে। শিখে রাখতে হবে সামাজিক বেশ কিছু নিয়ম, আদর্শ। মানসিক ভাবে প্রতিটি সন্তান যেন শক্তিশালী হয় সে দিকে নজর রাখাটা কর্তব্য। এবিষয়ে বিস্তারিত তথ্য নিয়ে সম্প্রতি একটি বই প্রকাশ করেছেন মুম্বইয়ের এক লেখিকা অমৃতা অশ্বিনী (Amrita Aswani)। ওঁর লেখা বইয়ের নাম, ‘A to Z Affirmation & Wellness book for kids’। ওই বইয়ে তিনি লিখেছেন কী ভাবে প্রতিটি শিশুর মধ্যে সঠিক অভ্যাস তৈরি করা সম্ভব। এবং কীভাবে আত্মবিশ্বাস বাড়ানো সম্ভব সে বিষয়েও ওই বইয়ে লিখেছেন।

প্রতিটি শিশুকে তাঁর বাবা-মা যে ভাবে স্নেহ দেন, ভালোবাসেন, সাপোর্ট করেন এবং উৎসাহ দেন তা সত্যিই প্রশংসনীয়। কিন্তু এর সঙ্গে প্রতিটি বাবা ও মায়ের কর্তব্য তাঁর সন্তানের মধ্যে আত্মবিশ্বাস বাড়ানো। শিশুরা মূলত আশেপাশের বিভিন্ন কাজকর্ম এবং পরিবেশ দেখে শেখে। কোন জিনিস কী ভাবে করতে হয় তা অন্য কারও দেখে শিশুরা সেটা করতে চেষ্টা করে। তাই বাবা-মায়ের কর্তব্য তাঁরা যেন এমন কিছু করেন যাতে করে তাঁদের সন্তানের মধ্যে আত্মনির্ভরশীলতা বাড়ে। সব কিছুতেই উৎসাহ দিতে হবে।

সন্তানদের সব সময় পজিটিভ বলা অভ্যাস করতে হবে। শিশুরা অনেক সময় একটা কথা শুনে শুনে অভ্যস্ত হয়ে যায় যে, ‘তোমার দ্বারা কিছু হবে না।’ বা ‘তুমি কিছু পারবে না।’ এগুলো শুনে শিশুরা খুব একটা রিঅ্যাক্ট না করলেও তাদের মনের মধ্যে প্রভাব পড়ে। তারা ভেবে নেয় সত্যিই হয় তো তারা কিছু পারবে না। বা তাদের দ্বারা কিছু হবে না। কিন্তু প্রতিটি বাবা-মায়ের কর্তব্য হওয়া উচিত তার সন্তানদের উৎসাহ দেওয়া। সন্তানদের বোঝানো যে তারা সব কিছুই করতে পারে। তাদের মধ্যে সেই ক্ষমতা রয়েছে। যখন বাবা-মা এটাই বার বার বলতে থাকবে তখন সন্তানরা বুঝবে সত্যিই তারা পারবে। তাদের মধ্যে সেই ক্ষমতা রয়েছে।

প্রতিটি মানুষ যেমন তাঁর সম্পর্কে প্রশংসা শুনতে পছন্দ করে, তেমনি শিশুরাও প্রশংসা শুনতে পছন্দ করে। শিশুরা কোনও একটি ভালো করলেও তার প্রশংসা করা দরকার। হয় তো কাজটি বড়দের কাছে খুবই সামান্য, কিন্তু তার প্রশংসা করলে সেই ভালো কাজটি করার প্রবণতা বাড়ে।

Published by:Dolon Chattopadhyay
First published: