Home /News /life-style /
Hariyali Teej 2021: শিব-পার্বতীর এই বিশেষ আরাধনার দিনে ষোল শৃঙ্গার অবশ্য কর্তব্য, কীভাবে সাজিয়ে তুলবেন নিজেকে?

Hariyali Teej 2021: শিব-পার্বতীর এই বিশেষ আরাধনার দিনে ষোল শৃঙ্গার অবশ্য কর্তব্য, কীভাবে সাজিয়ে তুলবেন নিজেকে?

Hariyali Teej 2021: শিব-পার্বতীর এই বিশেষ আরাধনার দিনে ষোল শৃঙ্গার অবশ্য কর্তব্য, কী ভাবে সাজিয়ে তুলবেন নিজেকে?

Hariyali Teej 2021: শিব-পার্বতীর এই বিশেষ আরাধনার দিনে ষোল শৃঙ্গার অবশ্য কর্তব্য, কী ভাবে সাজিয়ে তুলবেন নিজেকে?

Hariyali Teej: দেখে নেওয়া যাক এক এক করে এই ষোলটি শৃঙ্গার কী আর এর তাৎপর্যই বা কোথায় নিহিত!

  • Share this:

Hariyali Teej 2021: তীজ শব্দটি এসেছে সংস্কৃত তৃতীয়া থেকে। তৃতীয়া তিথিতে উদযাপিত হয় যে উৎসব, তাকেই বলা হয় তীজ। মনোমত স্বামীলাভের জন্য অবিবাহিতারা যেমন এই ব্রত পালন করে থাকেন, তেমনই আবার বিবাহিতারাও এই ব্রত পালন করেন স্বামীর দীর্ঘায়ু এবং সার্বিক মঙ্গলকামনায়। বছরে বেশ কয়েকবার এই ব্রত পালন করা হয়ে থাকে, তার মধ্যে শ্রাবণ মাসের শুক্লপক্ষের তীজ সর্বাধিক গুরুত্বপূর্ণ।

সৌভাগ্যের লক্ষণ হিসাবে এই দিনে বিবাহিতারা ষোলটি শৃঙ্গারের সাজধারণ করেন, সেই কথা মাথায় রেখে একে শৃঙ্গার তীজ নামেও ডাকা হয়ে থাকে। বাদলধারা যেহেতু পরিবেশে শ্যামলিমা সঞ্চার করে, সেই অনুষঙ্গে উৎসবটি পেয়েছে হরিয়ালি তীজ নাম!

বলা হয়, এই হরিয়ালি তীজ তিথিতেই সালঙ্কারা পার্বতীকে বধূরূপে স্বাগত জানিয়েছিলেন ভগবান শিব, সার্থক হয়েছিল তাঁর দেবাদিদেবকে পতিরূপে লাভ করার তপস্যা। এই কারণেই বিবাহিতা এবং অবিবাহিতা রমণীরা হরিয়ালি তীজ ব্রত পালন করেন। সালঙ্কারা দেবীর মতো সৌভাগ্যলাভের বাসনায় বিবাহিতারা ষোল শৃঙ্গারে সাজিয়ে তোলেন নিজেদের। দেখে নেওয়া যাক এক এক করে এই ষোলটি শৃঙ্গার কী আর এর তাৎপর্যই বা কোথায় নিহিত!

পুষ্প শৃঙ্গার - ভারতীয় ধারায় ফুলের সাজ হল শুভ। ফুলের ঘ্রাণ সতেজতা প্রদান করে। তাই ফুল দিয়ে চুল সাজাতে হবে।

কপালে টিপ - কপালে সিঁদুরের টিপ ইতিবাচক শক্তির সঙ্কেত দেয়। এটি মানসিক প্রশান্তিও দেয়। এই দিনে চন্দনের টিপও পরা হয়।

মেহন্দি - হরিয়ালি তীজে মেহন্দি লাগানোর ঐতিহ্য আছে। মহিলারা এই দিনে হাতে-পায়ে মেহন্দি লাগান। এটি ষোল শৃঙ্গারের মধ্যে অন্যতম। মেহন্দি ত্বক সংক্রান্ত রোগ দূর করে।

সিঁথিতে সিঁদুর - সিঁদুর পরা এক পতিব্রতা নারীর কর্তব্য। বিশ্বাস করা হয় যে সিঁদুর পরলে শরীরের বৈদ্যুতিক শক্তি নিয়ন্ত্রিত হয়।

গলায় মঙ্গলসূত্র - মুক্তা এবং স্বর্ণের সমন্বয়ে গাঁথা একটি মঙ্গলসূত্র পরলে গ্রহর নেতিবাচক শক্তি দূর হয়। একই সঙ্গে এটি রোগপ্রতিরোধ ক্ষমতাও বাড়ায়। বলা হয় গলায় স্বর্ণালঙ্কার পরলে হৃদরোগ হয় না। হৃদস্পন্দন নিয়ন্ত্রিত হয়। মুক্তাগুলি চাঁদের প্রতিনিধিত্ব করে। এতে মন অস্থির হয় না।

কানের দুল - কানে দুল পরলে মানসিক চাপ হয় না। মাথাব্যথা কমাতেও এটি সহায়ক।

মাথায় সোনার টিকলি - সোনার টিকলি নারীর সৌন্দর্য বৃদ্ধি করে। একই সঙ্গে মস্তিষ্কের স্নায়ুতন্ত্রও এতে ভালো থাকে।

ব্রেসলেট বা চুড়ি - হাতে ব্রেসলেট বা চুড়ি পরলে রক্ত সঞ্চালন ঠিক থাকে। এছাড়াও, এটি হরমোনের অতিরিক্ত ক্ষয় হতে দেয় না।

বাজুবন্ধ - এটি পরলে বাহুতে রক্ত সঞ্চালন ঠিক থাকে।

কোমরবন্ধ - এটি পরলে পেট সংক্রান্ত সমস্যা কমে। অনেক রোগপ্রতিরোধ করা সম্ভব হয়।

নূপুর - এটি পায়ের সৌন্দর্য বাড়িয়ে দেয়। বলা হয়ে থাকে যে রুপোর নূপুর পায়ের হাড়কে শক্তিশালী করে।

পায়ের আংটি - এর ব্যবহার পায়ের সৌন্দর্যের মধ্যে সীমাবদ্ধ নয়। এটি স্নায়ুতন্ত্র এবং পেশী শক্তিশালী রাখতেও সহায়ক।

নাকের নথ - নথ মুখের সৌন্দর্য বাড়িয়ে দেয়। নাকে সোনার গয়না পরলে মহিলাদের ব্যথা সহ্য করার ক্ষমতা বৃদ্ধি পায়।

আংটি - আংটি পরলে শরীরে রক্ত সঞ্চালন ঠিক থাকে। এটি পরলে অলসতা কমে যায়।

কাজল - কাজল চোখের সৌন্দর্য বৃদ্ধি করে। এটি চোখের রোগ নিরাময় করে।

প্রসাধন - সাজগোজ করলে সৌন্দর্য বৃদ্ধি পায়। একই সঙ্গে এটি নারীদের আত্মবিশ্বাস বাড়ায়।

Published by:Ananya Chakraborty
First published:

Tags: Hariyali Teej

পরবর্তী খবর