Home /News /life-style /
Covid Risk In Children: ৫ বছরের কম বয়সী বাচ্চাদের মাস্ক পরানো জরুরি? কেন্দ্র জারি করেছে নতুন নিয়ম

Covid Risk In Children: ৫ বছরের কম বয়সী বাচ্চাদের মাস্ক পরানো জরুরি? কেন্দ্র জারি করেছে নতুন নিয়ম

৫ বছর বয়সী এবং তার কম বয়সী বাচ্চাদের জন্য মাস্ক লাগানো তেমন জরুরি নয়

  • Share this:

#নয়াদিল্লি: কেন্দ্রীয় সরকার বৃহস্পতিবার জানিয়েছে যে ১৮ বছর বয়সের কম বয়সী রোগীদের জন্য অ্যান্টিভাইরাল (Antivirals) এবং মোনোক্লোনাল অ্যান্টিবডিজের (Monoclonal Antibodies) কোনও দরকার নেই। কেন্দ্র জানিয়েছে যে করোনা সংক্রমণের গম্ভীরতার মধ্যেও যদি বেশি করে স্টেরয়েডের প্রয়োগ করা হয়, তাহলে ১০ থেকে ১৪ দিনের মধ্যে তা কম করা দরকার। ১৮ বছর বয়সের কম বয়সীদের করোনা মহামারী থেকে বাঁচানোর জন্য, কেন্দ্রীয় সরকার যে নতুন গাইডলাইন জারি করেছে সেখানে বলা হয়েছে ৫ বছর বয়সী এবং তার কম বয়সী বাচ্চাদের জন্য মাস্ক লাগানো তেমন জরুরি নয়। ভারতের স্বাস্থ্যমন্ত্রকও একই নির্দেশ দিয়েছে।

আরও পড়ুন: সুস্থ থাকতে, বাড়তি ওজন ঝরাতে কোন খাবার কতখানি খাবে ঠিক করুন আজই

কেন্দ্রীয় সরকারের গাইডলাইনে বলা হয়েছে যে, ৬ বছর থেকে ১১ বছর বয়সের বাচ্চারা নিজেদের সুরক্ষার জন্য মাস্ক ব্যাবহার করতে পারে, যার ওপরে তাদের অভিভাবকদের নজর রাখা দরকার। ১২ বছর বয়সের বেশি এবং তার কম বয়সীদের নিজেদের সুরক্ষার জন্য মাস্ক ব্যবহার করা উচিত। ভারতে করোনা মহামারীর নতুন ভ্যারিয়ান্ট ওমিক্রনের (Omicron) প্রভাবের জন্য কেন্দ্রীয় সরকার স্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞদের সঙ্গে আলোচনা করে এই নতুন গাইডলাইন জারি করেছে।

লক্ষণের ওপরে ভিত্তি করে ওষুধ খাওয়ার নির্দেশ

অন্যান্য দেশের ডেটার ওপর ভিত্তি করে জানা গিয়েছে যে ওমিক্রনের প্রভাবে রোগের ভয়াবহতা কম হয়ে গিয়েছে। কিন্তু এখনও করোনার নতুন ভ্যারিয়ান্ট ওমিক্রনের প্রভাব থাকায় এর ওপরে বিশেষ নজর রাখার দরকার রয়েছে। ওমিক্রনের প্রভাবে কোনও ধরনের লক্ষণ ছাড়া, হালকা, মধ্যম এবং গুরুতর অসুস্থ রোগীর ওপরে নজর রাখা হচ্ছে। কেন্দ্রীয় সরকারের নতুন গাইডলাইন অনুযায়ী করোনার নতুন ভ্যারিয়ান্ট ওমিক্রন হল একটি ভাইরাল ইনফেকশন এবং অ্যান্টিমাইক্রোবাইলস। করোনার নতুন ভ্যারিয়ান্ট ওমিক্রন জটিল রোগের বিস্তার করতে সক্ষম নয়।

আরও পড়ুন: এই তিন সুপার ড্রিঙ্ক মন্ত্রের মত কাজ করে! ওজন কমিয়ে চাবুকের মত শরীর উপহার দেবে

কেন্দ্রীয় সরকার জানিয়েছে যে ভারতে করোনার নতুন ভ্যারিয়ান্ট ওমিক্রনের প্রভাবে বিনা লক্ষণ এবং হালকা লক্ষণের রোগীর সংখ্যা বেশি। এর ফলে কেন্দ্রীয় সরকার স্বাস্থ্যমন্ত্রকের সঙ্গে পরামর্শ করে জানিয়েছে যে এমন অবস্থায় সকলের উচিত তাদের রোগের লক্ষণের ওপরে ভিত্তি করে ওষুধ খাওয়া দরকার। এই বিষয়ে ডাক্তারের পরামর্শ খুবই গুরুত্বপূর্ণ। ডাক্তারের পরামর্শ ছাড়া ওষুধ খেতে থাকলে উপকারের বদলে ক্ষতি হওয়ার সম্ভাবনা বেশি। কেন্দ্রীয় সরকার জানিয়েছে যে ১২ থেকে ১৪ বছর বয়সীদের করোনার টিকা দেওয়ার ব্যাপারটি গবেষণার প্রমাণের ওপরে ভিত্তি করে সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে। গবেষকদের মতামতের ভিত্তিতেই শুরু করা হবে টিকাকরণ।

Published by:Rukmini Mazumder
First published:

Tags: Face mask, Kids

পরবর্তী খবর