লাইফস্টাইল

corona virus btn
corona virus btn
Loading

লেপার্ড না জাগুয়ার? পার্থক্য করতে নাজেহাল নেটিজেনদের একাংশ! আপনি পারছেন কি?

লেপার্ড না জাগুয়ার? পার্থক্য করতে নাজেহাল নেটিজেনদের একাংশ! আপনি পারছেন কি?
photo source twitter

উত্তর দিতে গিয়ে অনেকেই বিভ্রান্ত হয়ে গিয়েছে। কেউ উলটোটাও বলেছেন। কেউ আবার দু'টোকেই জাগুয়ার বলেছেন।

  • Share this:

জাগুয়ার পছন্দ অনেকেরই। তীক্ষ্ণ বুদ্ধি, দারুণ চেহারা, দৌড়ের গতি বা শিকারের অঙ্গভঙ্গিতে অনেকেই অনেক পশুর থেকে শ্রেষ্ঠত্বে এগিয়ে রাখেন একে। কিন্তু টিভিতে বা YouTube-এ যাকে দেখে জাগুয়ার মনে হচ্ছে, সে আসল জাগুয়ারই তো? চিতা নয় তো? ওয়ার্ল্ড জাগুয়ার ডে-তে (World Jaguar Day) লেপার্ড (Leopard) আর জাগুয়ারের (Jaguar) দু'টো ছবি কোলাজ করে দিয়ে ওই 'দেখো তো চিনতে পার কি না'-র ভঙ্গিতে প্রশ্ন করে বসলেন ভারতীয় ফরেস্ট অফিসার পরভিন কাসওয়ান।

একটি ট্যুইট করে ছবিটির নিচে লিখলেন, দেখি কে সঠিক ভাবে চিনতে পারে কোনটা জাগুয়ার (Jaguar) আর কোনটা চিতা! উত্তর দিতে গিয়ে অনেকেই বিভ্রান্ত হয়ে গিয়েছে। কেউ উলটোটাও বলেছেন। কেউ আবার দু'টোকেই জাগুয়ার বলেছেন।

ট্যুইটটি করার সঙ্গে সঙ্গেই তাতে প্রায় ৬ হাজার লাইক পড়ে। নেটিজেনদের একাংশ অনুমান করতে শুরু করেন। অনেকেই বলতে থাকে চিতা (Cheetah), জাগুয়ার (Jaguar), প্যান্থার (Panther), লেপার্ড (Leopard) সবই একরকম দেখতে লাগে।

আসলে বিড়াল প্রজাতির এই দুই পশুকেই কিছুটা একই রকম দেখতে। এদের গায়ে যে ধরণের দাগ বা ছোপ রয়েছে, তা-ও প্রায় এক ইরকম এবং রঙেরও তেমন পার্থক্য নেই। দুই পশুর শিকারের ধরনও প্রায় এক। ফলে দুই পশুকে আলাদা করা খুবই সমস্যার বিষয়।

তবে, গবেষণা বলছে, জাগুয়ার (Jaguar) মধ্য ও দক্ষিণ আমেরিকায় রয়েছে। তাদের এলাকায় তারাই সব চেয়ে বড় বিড়াল প্রজাতির প্রাণী। আর অন্য দিকে লেপার্ড (Leopard) পাওয়া যায় এশিয়া ও আফ্রিকায়। তাদের এলাকায় তারা সব চেয়ে ছোট বিড়াল প্রজাতির প্রাণী। ন্যাশনাল জিওগ্রাফিক (National Geographic)-এর মতে, জাগুয়াররা অনেক বেশি বড় ও একটু মোটাসোটা হয়। তাদের ওজন ১১৫ কেজি পর্যন্ত হতে পারে। এ দিকে লেপার্ডরা (Leopard) তার থেকে কম হয়। তাদের ওজন ৭৯ কেজি পর্যন্ত হতে পারে। গঠনেও পার্থক্য দেখা যায়।

ন্যাশনাল জিওগ্রাফিক (National Geographic)-এ প্রকাশিত রিপোর্ট বলছে, বড় বিড়াল প্রজাতি নিয়ে গবেষণারত বুন স্মিথের মতে, জাগুয়ার (Jaguar)-দের থুতনি অনেক বেশি বড় হয়। দাঁত বা কামড়ানোর ক্ষমতাও লেপার্ডের থেকে বেশি হয়। এ বিষয়ে পোর্টল্যান্ড চিড়িয়াখানার ডিরেক্টর ডন মুর বলেন, চেহারায় পরিবর্তন ও থুতনিতে পরিবর্তন- লেপার্ড (Leopard) ও জাগুয়ারের (Jaguar) ক্ষেত্রে বিষয়টা আলাদা হয় তাদের বিচরণের এলাকার উপর নির্ভর করে। অর্থাৎ তারা যে এলাকায় থাকে তার জন্য, সেই পরিবেশের জন্য এই পরিবর্তন হয়।

রিপোর্টে আরও বলা হয়, জাগুয়াররা (Jaguar) সাঁতার কাটতে ভালোবাসে এবং অ্যানাকোন্ডার উপরে বেশি আক্রমণ করে। এ দিকে লেপার্ডরা (Leopard) জল এড়িয়ে চলে এবং স্তন্যপায়ী প্রাণী ও হরিণ শিকার বেশি করে।

Published by: Piya Banerjee
First published: December 2, 2020, 8:16 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर