• Home
  • »
  • News
  • »
  • life-style
  • »
  • সাইনাসের সমস্যা? উপশম পেতে কাজ দেবে এই ঘরোয়া টোটকাগুলোই!

সাইনাসের সমস্যা? উপশম পেতে কাজ দেবে এই ঘরোয়া টোটকাগুলোই!

photo source collected

photo source collected

বিশেষ করে ঋতু পরিবর্তন বা শীত পড়ার সময়ে এই সমস্যা বেশি হয়। এর থেকে মুক্তি পেতে বাড়িতেই কিছু নিয়ম মেনে চলা যেতে পারে।

  • Share this:

সাইনাস (Sinus) শরীরে একটি গুরুত্বপূর্ণ অঙ্গ, যা বায়ু চলাচলে সাহায্য করে। নাকের দুই পাশে ও চোখের তলার হাড়ে ও চোখের উপরের দুই অংশ জুড়ে এটি থাকে। সাইনাস হল ফাঁকা গহ্বর বা গর্ত। এটি ভিতর থেকে মিউকাস মেমব্রেন (Mucous Membrane) বা শ্লেষ্মা ঝিল্লি নামে একটি চামড়ার সঙ্গে যুক্ত থাকে। এই শ্লেষ্মা ঝিল্লিতে বিভিন্ন সময়ে ইনফেকশন হয় বা এতে অ্যালার্জি হয়ে সাইনাস ব্লকেজ (Sinus Blockages) তৈরি করে।

এ বার ব্লকেজ তৈরি হলে যখন সাইনাসে বায়ু চলাচল করতে পারে না, তখন এটি ভিতর থেকে চাপ দিতে শুরু করে এবং যার ফলে মাথা যন্ত্রণা, চোখের তলার অংশে যন্ত্রণা হয়ে থাকে।এই সমস্যা অনেকেরই হয়। বিশেষ করে ঋতু পরিবর্তন বা শীত পড়ার সময়ে এই সমস্যা বেশি হয়। এর থেকে মুক্তি পেতে বাড়িতেই কিছু নিয়ম মেনে চলা যেতে পারে।

১. ন্যাজাল ফ্লাশিং (Nasal Flushing) সাইনাসের এই ব্যথা থেকে উপশম পেতে সাইনাসের ব্লকেজগুলো পরিষ্কার করা প্রয়োজন। এর জন্য এক নাক থেকে জল টেনে অন্য নাক থেকে বের করলে শ্লেষ্মা ঝিল্লি বা মিউকাস মেমব্রেনস আর্দ্র থাকে এবং এই সমস্যা হয় না। এই পদ্ধতি প্রয়োগে শ্বাসযন্ত্রের সমস্যাকেও দূর করা যায়। ন্যাজাল ফ্লাশিং-এর জন্য একটি পাত্রে গরম জল একটু ঠাণ্ডা করে রাখতে হবে। পাত্রের মুখ সরু থাকলে ভালো। এ বার মাথাটা সিঙ্কের কাছে নিয়ে গিয়ে বাঁ-দিকে হেলাতে হবে। পাত্রের সরু মুখটি ডান নাকের কাছে নিয়ে এসে নাকের ভিতরে জল ঢোকাতে হবে। আরেকটি নাক থেকে সেটি বের করে দিতে হবে। নাক পরিষ্কার হয়ে যাবে এবং মাথা যন্ত্রণা বা সাইনাসের অন্যান্য সমস্যাও দূর হবে।

২. ভাপ নেওয়া (Steam Inhalation) সাইনাসের অংশ শুকিয়ে গেলে সাইনাসের যন্ত্রণা শুরু হয়। তাই সাইনাসকে আর্দ্র রাখতে ভাপ নেওয়া যেতে পারে। আর তা সহজেই বাড়িতে করা যায়। ভাপ নিতে একটি পাত্রে গরম জল নিয়ে নিতে হবে। তার কিছুটা উপরে মুখ রেখে, মাথা ও পাত্র পর্দার মতো করে একটি মোটা কাপড় দিয়ে ঢেকে দিতে হবে। একটি নাক থেকে শ্বাস নিয়ে অপরটি দিয়ে ছাড়তে হবে। এমন ২-৩ মিনিট ধরে করলে সাইনাস আর্দ্র হয়ে যাবে।

৩. বিশ্রাম নেওয়া (Resting) যদি খুব বেশি ব্যথা হয়, মাথা তুলতে না পারা যায়, তা হলে শুধু ভালো করে বিশ্রাম নিলে ব্যথা সেরে যেতে পারে। এ ক্ষেত্রে ভালো করে ঘুমালেও কাজ দেয়।

৪. শরীর আর্দ্র রাখা (Hydration) শরীর শুকিয়ে গেলে সাইনাস শুকিয়ে যাবে। তাই শরীরকে আর্দ্র রাখা জরুরি। সারা দিনে নির্দিষ্ট পরিমাণ জল খেলে এই সমস্যা সমাধান সম্ভব। আর এ ক্ষেত্রে একটু ঈষৎ উষ্ম জল খেলে আরও ভালো। এটি ন্যাজাল মিউকাস ভেলোসিটি (Nasal Mucus Velocity) বাড়িয়ে সাইনাস বের করতে সাহায্য করে।

৫. মাথা উঁচুতে রেখে ঘুমানো (Head Elevation) ঘুমানোর সময় একটু বেশি উঁচুতে মাথা রেখে শুলে সাইনাস পরিষ্কার হতে সুবিধা হয়।

৬. যোগ অভ্যাস ও অন্যান্য শরীরচর্চা যোগ অভ্যাস, ধ্যান করা বা শ্বাস-প্রশ্বাসের ব্যায়াম শরীরকে চিন্তামুক্ত করে। এই ধরনের শরীরচর্চা প্রতি দিন করলে ব্যথা থেকে মুক্তি মিলতে পারে। পাশাপাশি শ্বাস নিতেও কোনও রকম সমস্যা হবে না।

৭. ফেসিয়াল মাসাজ (Facial Massage) অনেক সমীক্ষা দাবি করছে, ফেসিয়াল মাসাজে এর থেকে উপশম পাওয়া যেতে পারে।

Published by:Piya Banerjee
First published: