• Home
  • »
  • News
  • »
  • kolkata
  • »
  • WEST BENGAL STATE ASSEMBLY SPEAKER SUMMONS OFFICERS OF ED AND CBI DMG

Biman Banerjee summons ED And CBI: নারদে মন্ত্রীদের চার্জশিট, পাল্টা ইডি- সিবিআই কর্তাদের তলব করলেন বিধানসভার অধ্যক্ষ

ইডি- সিবিআইকে পাল্টা সমন পাঠালেন বিধানসভার স্পিকার৷

নারদ মামলার তদন্তে নেমে ইতিমধ্যেই রাজ্যের দুই মন্ত্রী ফিরহাদ হাকিম ও সুব্রত মুখোপাধ্যায়ের বিরুদ্ধে চার্জশিট জমা দিয়েছে ইডি ও সিবিআই (Biman Banerjee summons ED And CBI)৷

  • Share this:

#কলকাতা: নারদ মামলায় রাজ্যের দুই মন্ত্রী ও এক বিধায়ককে চার্জশিট দিতে গিয়ে বিধিভঙ্গ করেছে ইডি ও সিবিআই৷ এই অভিযোগেই দুই কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থার কর্তাদের ডেকে পাঠালেন রাজ্য বিধানসভার অধ্যক্ষ বিমান বন্দ্যোপাধ্যায়৷ আগামী ২২ সেপ্টেম্বর বেলা একটায় সিবিআই ও ইডি-র আধিকারিকদের বিধানসভায় স্পিকারের সামনে হাজিরা দিতে বলা হয়েছে৷

নারদ মামলার তদন্তে নেমে ইতিমধ্যেই রাজ্যের দুই মন্ত্রী ফিরহাদ হাকিম ও সুব্রত মুখোপাধ্যায়ের বিরুদ্ধে চার্জশিট জমা দিয়েছে ইডি ও সিবিআই৷

কী দাবি অধ্যক্ষের? 

বিধানসভার অধ্যক্ষের দাবি, মন্ত্রী ও বিধায়কদের বিরুদ্ধে চার্জশিট জমা পড়লেও সে বিষয়ে অধ্যক্ষকে কিছুই জানানো হয়নি৷ এ ভাবে অধ্যক্ষকে এড়িয়ে বিধানসভার কোনও সদস্যের বিরুদ্ধে চার্জশিট জমা দেওয়া যায় না বলেও দাবি করেছেন বিমান বন্দ্যোপাধ্যায়৷ ফলে দুই কেন্দ্রীয় সংস্থার বিরুদ্ধে ক্ষুব্ধ অধ্যক্ষ৷ দুর্নীতি প্রতিরোধ আইনের ১ নম্বর ধারাকে অস্ত্র করেই ইডি এবং সিবিআই-এর সংশ্লিষ্ট আধিকারিকদের আগামী ২২ সেপ্টেম্বর বিধানসভায় বেলা ১টায় উপস্থিত হওয়ার নির্দেশ দিয়েছেন স্পিকার৷

আরও পড়ুন: নারদ কাণ্ডে চার্জশিট জমা দিল ইডি, নাম রয়েছে ফিরহাদ-সুব্রত-শোভন-মদনের

কেন এ ভাবে অধ্যক্ষকে এড়িয়ে চার্জশিট জমা দেওয়া হল, কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থার কর্তাদের কাছে তার কৈফিয়ত তলব করা হবে৷ অধ্যক্ষের আরও দাবি, রাজ্যের কোন মন্ত্রী বা বিধায়কের বিরুদ্ধে চার্জশিট দিতে গেলে, বিধানসভায় অধ্যক্ষ্য ও কেন্দ্রীয় মন্ত্রী হলে, সংসদের স্পিকারের থেকে অনুমতি নিতে হয়। এক্ষেত্রে তা মানা হয়নি। ফলে ইডি এবং সিবিআই যা করেছে তা বেআইনি এবং বিধিভঙ্গের সামিল বলেই মনে করেন বিমান বন্দ্যোপাধ্যায়৷

কী বলছে  বিজেপি

স্বভাবতই অধ্যক্ষের এই দাবি মানতে নারাজ বিজেপি৷ বিজেপি নেতা শমীক ভট্টাচার্য বলেন, 'আদালতের নির্দেশে তদন্ত করছে সিবিআই, ইডি। এক্ষেত্রে তদন্তের স্বার্থে স্পিকারের উচিত তাকে সহযোগিতা করা। অনুমতি নয়, তদন্তের বিষয়ে স্পিকারকে অবহিত করাই নিয়ম৷'

এদিকে, আগামী ১৫ সেপ্টেম্বর বিধানসভার অধ্যক্ষদের সর্বভারতীয় সম্মেলনে এই বিষয়টিকে তুলে কেন্দ্রের বিরুদ্ধে সরব হবার ইঙ্গিত দিয়েছেন স্পিকার। সম্প্রতি, দিল্লির স্পিকারের রাজ্য বিধানসভা সফরের সময় এ বিষয়ে দেশের অ- বিজেপি শাসিত রাজ্যের স্পিকারদের পাশে পেতে আলোচনা হয়েছে বিমান বন্দ্যোপাধ্যায়ের সঙ্গে।

রাজনৈতিক মহলের বক্তব্য

রাজনৈতিক মহলের মতে, রাজ্যে শাসক দলের একাধিক নেতা, মন্ত্রীদের বিরুদ্ধে কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থা সক্রিয় হতেই, বিধানসভার অধ্যক্ষ্যকে দিয়ে সিবিআই, ইডির মতো তদন্তকারী সংস্থাগুলির উপরে পাল্টা চাপ তৈরির কৌশল নিল রাজ্য।

Published by:Debamoy Ghosh
First published: