Vaccination in Kolkata: কলকাতার ১৪৪টি হেলথ সেন্টারে গেলেই টিকা! কখন কাদের, জানিয়ে দিলেন ফিরহাদ

বদলে গেল টিকাকরণের সময়

Vaccination in Kolkata: শহরের ১৪৪টি হেলথ সেন্টারে কোভিড টিকাদানের (COVID-19 Vaccination) সময়সূচি পরিবর্তন করেছে কলকাতা পুরসভা।

  • Share this:

    কলকাতা: শুক্রবারই কলকাতা হাইকোর্টের নির্দেশে কেটেছিল গৃহবন্দি দশা কেটেছিল ফিরহাদ হাকিমের (Firhad Hakim)৷ আর শনিবার সকাল থেকেই কলকাতা পুরসভায় গিয়ে পুরোদমে কাজ শুরু করে দিয়েছেন তিনি। শনিবার থেকে ফের পুরনো মেজাজেই পাওয়া গিয়েছে কলকাতা পুরসভার প্রশাসক বোর্ডের প্রধান এবং রাজ্যের পরিবহণমন্ত্রীকে৷ আর শনিবার গিয়েই কলকাতার টিকাকরণ নিয়ে গুরুত্বপূর্ণ ঘোষণা করেছেন তিনি। শহরের ১৪৪টি হেলথ সেন্টারে কোভিড টিকাদানের (COVID-19 Vaccination) সময়সূচি পরিবর্তন করেছে কলকাতা পুরসভা।

    শনিবার বিকেলে পুরসভার কোভিড বৈঠকে করোনার টিকাকরণ, অক্সিজেন পার্লার ও সেফ হোম চালু নিয়ে একগুচ্ছ সিদ্ধান্ত নেওয়ার পাশাপাশি ফিরহাদ জানান, পুরসভার ১৪৪টি হেলথ সেন্টার থেকে সকাল ৯টা থেকে দুপুর ১টা পর্যন্ত ৬০ ঊর্দ্ধরা ব্যক্তিরা এলেই প্রথম ডোজ দেওয়া হবে। ৮৩৩৫৯ ৯৯০০০ নম্বরে হোয়াটসঅ্যাপের মাধ্যমে যাঁরা স্লট বুকিং করবেন, তাঁদের টিকা দেওয়া হবে দুপুর ১টা থেকে বিকেল ৪টা পর্যন্ত। আর দ্বিতীয় ডোজ দেওয়া হবে কেবলমাত্র সকাল ৯টা থেকে দুপুর ১ টা পর্যন্ত। আর মেগা সেন্টারে হকার, পরিবহণকর্মী, শিক্ষকদের মতো সুপার স্প্রেডাররা সকাল দশটা থেকে বিকেল চারটে পর্যন্ত টিকা পাবেন।'

    ফিরহাদ জানিয়েছেন, কলকাতার তুলনামূলকভাবে বেশ কিছুটা কমেছে করোনার সংক্রমণ। তাই সেফ হোমগুলির অনেক বেডই ফাঁকা। পুরসভা পর্যাপ্ত অক্সিজেন সিলিন্ডার ও কনসেনট্রেটর সংগ্রহ করেছে। কলকাতার প্রতিটি বরোতেই রয়েছে অক্সিজেন পার্লার। কলকাতার প্রতিটি মানুষকে যাতে টিকা দেওয়া যায়, সেটা নিশ্চিত করাই তাঁর লক্ষ্য বলে জানিয়েছেন ফিরহাদ৷ একই সঙ্গে তিনি জানিয়েছেন, কলকাতায় যে সমস্ত বাড়িতে স্থায়ী ভাবে পরিচারক-পরিচারিকারা থাকেন, তাঁদেরও টিকাকরণের ব্যবস্থা করা চেষ্টা করা হচ্ছে৷

    গ্রেফতারির পর নিম্ন আদালতে প্রথমে জামিন পেলেও পরে কলকাতা হাইকোর্টের নির্দেশে গৃহবন্দি থাকতে হচ্ছিল ফিরহাদদের৷ তাই বাড়িতে থেকেই ভার্চুয়াল মাধ্যমে পুরসভার কাজকর্মের উপর নজর রাখছিলেন ফিরহাদ৷ কলকাতায় ইয়াস ঘূর্ণিঝড়ের মোকাবিলায় কী প্রস্তুতি নেওয়া হবে, তার তদারকিও বাড়িতেই বসেই সারতে হয় তাঁকে৷ এ দিন অবশ্য ফিরহাদ বলেন, 'বাড়িতে থাকলেও আমার হৃদয়টা পুরসভাতেই পড়েছিল৷'

    Published by:Suman Biswas
    First published: