Remdesivir: উদ্ধার ১০ বাক্স রেমডেসিভির, শিয়ালদহ স্টেশনে আটক ২

Representational Image

মঙ্গলবার শিয়ালদহ স্টেশনে রেমডেসিভির হাতে ধরা পড়ে দু’জন ৷

  • Share this:

    কলকাতা: দেশজুড়ে এখন ভয়ঙ্কর আকার ধারণ করেছে করোনা ৷ প্রতিদিন বেড়েই চলেছে আক্রান্তের সংখ্যা ৷ বাড়ছে মৃত্যুও ৷ অক্সিজেন সমস্যা, হাসপাতালে বেডের অভাব ৷ সাধারণ মানুষের সমস্যার শেষ নেই ৷ এর মধ্যেই দেশের বিভিন্ন জায়গায় রেমডেসিভিরের কালোবাজারির খবর পাওয়া গিয়েছে ৷ মঙ্গলবার শিয়ালদহ স্টেশনে রেমডেসিভির হাতে ধরা পড়ল দু’জন ৷

    এদিন দুপুর ১টা নাগাদ শিয়ালদহ স্টেশনের ৯ নম্বর প্ল্যাটফর্মে বেশ কিছু সময় ধরে ২ জন যুবককে ঘোরাফেরা করতে দেখা যায় ৷ তাদের গতিবিধির দিকে নজর রাখছিল পুলিশ ৷ এরপর ওই দুই যুবককে আটক করে তাদের কাছ থেকে রেমডেসিভির ইঞ্জেকশনের ১০টি ভায়াল উদ্ধার করে পুলিশ ৷ সেগুলি বাংলাদেশে তৈরি বলে জানা গিয়েছে ৷ করোনা রোগীদের চিকিৎসার কাজে ব্যবহৃত রেমডেসিভিরের চাহিদা এখন তুঙ্গে ৷ যার সুযোগ নিচ্ছেন সমাজের বেশ কিছু অসাধু মানুষ ৷ চলছে ওষুধের কালোবাজারি ৷ শিয়ালদহ স্টেশনে এদিন সন্দেহজনকভাবে ঘোরাফেরা করতে দেখা যাওয়া ওই দুই ব্যক্তিকে আটক করে তাদের জিজ্ঞাসাবাদ করতেই সত্যিটা সামনে আসে ৷

    করোনা সুনামিতে কাবু দেশ। ওঠানামা করছে করোনার গ্রাফ। কখনও একটু স্বস্তি তো পর মুহূর্তেই অস্বস্তি। করোনার দ্বিতীয় ঢেউয়ে ইতিমধ্যেই বেসামাল দেশের বিভিন্ন রাজ্য। যা নিয়ে স্বাস্থ্য ভবনের উদ্বেগ বাড়ছে। টানা পাঁচদিন পর দেশে দৈনিক করোনা সংক্রমণ চার লক্ষের নীচে নেমেছে। রবিবারের মতো সোমবারও দেশে একদিনে সংক্রমিতের সংখ্যা কমেছে। গত এক দিনে নতুন করে করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন ৩ লক্ষ ২৯ হাজার ৪৯১ জন। এই বৃদ্ধির জেরে করোনায় আক্রান্তের মোট সংখ্যা গিয়ে দাঁড়িয়েছে ২ কোটি ২৯ লক্ষ ৯২ হাজার ৩৯ জন। বিশ্বে করোনা আক্রান্তের সংখ্যায় দ্বিতীয় স্থানে ভারত। প্রথম স্থানে রয়েছে আমেরিকা।

    গত বছরের তুলনায় এ বছর আরও ভয়ঙ্কর রুপ নিয়েছে করোনা। করোনার দ্বিতীয় ঢেউ দেশের দৈনিক মৃত্যুর সংখ্যাকেও বাড়িয়ে দিয়েছে। যা ভারতে উদ্বেগ বাড়াচ্ছে। ২৪ ঘণ্টায় করোনায় আক্রান্ত হয়ে মৃত্যু হয়েছে ৩,৮৭৯ জনের। দেশে এখনও পর্যন্ত করোনায় মৃত্যু হয়েছে ২ লক্ষ ৫০ হাজার ২৭ জনের। তবে স্বস্তির খবর, দেশে কোভিড আক্রান্তদের মধ্যে সুস্থ হয়েছেন ১ কোটি ৯০ লক্ষ ৭১ হাজার ৩১৩ জন।

    Published by:Siddhartha Sarkar
    First published: