টালিগঞ্জের ঘটনায় ফের বিতর্ক, প্রশ্নের মুখে পুলিশের ভূমিকা

এখনও অধরা মূল অভিযুক্তরা।

Bangla Editor | News18 Bangla
Updated:Aug 14, 2019 02:45 PM IST
টালিগঞ্জের ঘটনায় ফের বিতর্ক, প্রশ্নের মুখে পুলিশের ভূমিকা
Photo- Video Grab
Bangla Editor | News18 Bangla
Updated:Aug 14, 2019 02:45 PM IST

#কলকাতা: ফের প্রশ্নের মুখে কলকাতা পুলিশ। টালিগঞ্জ থানায় ঢুকে পুলিশকে মারধরে অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে সরকারি কর্মীকে মারধরের ধারা যুক্তই হল না। শুধু কাজে বাধা দেওয়ার ধারা যুক্ত হয়েছে। যদিও ফুটেজে মারধরের ঘটনা স্পষ্ট। দুই মহিলাসহ গ্রেফতার চার। এখনও অধরা মূল অভিযুক্তরা।

ছবিতে স্পষ্ট পুলিশকে মারধর, তারপরেও কেন ৩৩২ ধারা নয়?রবিবার রাতে টালিগঞ্জ থানায় পুলিশকে বেধড়ক মার ৷ দু'দুবার পুলিশের উপর হামলা হয় ৷ ফুটেজে স্পষ্ট অভিযুক্তদের ছবি।তারপরও প্রায় ১০ ঘণ্টা পরে মামলা দায়ের। তাও পুলিশের উচ্চপদস্থ কর্তাদের নির্দেশ আসার পর।অভিযুক্তদের গ্রেফতার করতেও প্রায় ২৪ ঘণ্টা সময় লেগে গেল। সোমবার রাতে চেতলার মাটালিবাগান বস্তি থেকে গ্রেফতার করা হয় দীপক অধিকারী ও ছোটকা দলুইকে। এখনও অধরা ২ মূল অভিযুক্ত।

অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে গোলমাল পাকানো, অবৈধ জমায়েত, প্রাণঘাতী অস্ত্রের ব্যবহারের অভিযোগে ১৩৭, ১৪৮, ১৪৯ ধারায় মামলা দায়ের হয়। প্রত্যেকটাই জামিন যোগ্য ধারা। তবে সরকারি কর্মীকে মারধরে ৩৩২ ধারা প্রয়োগ করা হয়নি। শুধুমাত্র সরকারি কর্মীর কাজে বাধা দেওয়ার অভিযোগে ৩৫৩ ধারা দেওয়া হয়েছে।

পুলিশকে মারতে মারতে টেনে নিয়ে যাওয়ার ফুটেজে যাদের দেখা গেছে মূল অভিযুক্ত সেই আকাশ দাস ও গুল্লু এখনও গ্রেফতার হয়নি।

First published: 02:39:47 PM Aug 14, 2019
পুরো খবর পড়ুন
Loading...
अगली ख़बर