• Home
  • »
  • News
  • »
  • kolkata
  • »
  • আজকের খবরের কাগজের সেরা খবর

আজকের খবরের কাগজের সেরা খবর

প্রতিদিনের ব্যস্ততায় খবর কাগজ খুঁটিয়ে পড়া সম্ভব হয় না ৷ অনেক সময় গুরুত্বপূর্ণ খবর চোখ এড়িয়ে যায় ৷

প্রতিদিনের ব্যস্ততায় খবর কাগজ খুঁটিয়ে পড়া সম্ভব হয় না ৷ অনেক সময় গুরুত্বপূর্ণ খবর চোখ এড়িয়ে যায় ৷

প্রতিদিনের ব্যস্ততায় খবর কাগজ খুঁটিয়ে পড়া সম্ভব হয় না ৷ অনেক সময় গুরুত্বপূর্ণ খবর চোখ এড়িয়ে যায় ৷

  • Pradesh18
  • Last Updated :
  • Share this:

    প্রতিদিনের ব্যস্ততায় খবর কাগজ খুঁটিয়ে পড়া সম্ভব হয় না ৷ অনেক সময় গুরুত্বপূর্ণ খবর চোখ এড়িয়ে যায় ৷ তাছাড়া একাধিক কাগজও পড়ার মতো সময় কারোর হাতেই নেই ৷ তাই আসুন এক নজরে, একজায়গায় দেখে নিন কলকাতার বিভিন্ন কাগজের সেরা খবর গুলি ৷ রবিবারের গুরুত্বপূর্ণ খবরগুলি হল-

    anandabazar11

    ১) কালীপুজোর রাতে শব্দদৈত্যকে বোতলবন্দি করে রাখা গেল না প্রথমে ফাটলো একটা চকলেট বোমা। ঠিক তার পরেই ‘শেল’-এর বিস্ফোরণের পিলে চমকানো শব্দ। বেন্টিঙ্ক স্ট্রিটের দিক থেকে। তখন শনিবার সন্ধে সাতটা। যেটা পরী‌ক্ষা শুরুর ঘণ্টা পড়ার সময়। কালীপুজোর রাতে শব্দদৈত্যকে বোতলবন্দি করে রাখা গেল কি না, বা সে বেরোলেও কতটা তাণ্ডব চালাতে পারল, তার পরীক্ষা। যাতে পরীক্ষার্থী পুলিশ-প্রশাসন। তত ক্ষণে গড়িয়া, হরিদেবপুর, পশ্চিম পুটিয়ারি, পণ্ডিতিয়া রোড, রাসবিহারী মোড়ের আশপাশ ও কালীঘাট এলাকার কিছু বস্তি, ক্রিস্টোফার রোড থেকে চকলেট বোমা, দোদমা ফাটতে শুরু করেছে। ডিজি কন্ট্রোলে অভিযোগ আসছে চুঁচুড়া ও আশপাশের তল্লাট থেকেও। সাঁতরাগাছি স্টেশন লাগোয়া কোনা এক্সপ্রেসওয়ে বরাবর এলাকাগুলোও কেঁপে কেঁপে উঠছে। অভিযোগ আসছে যাদবপুর, টালিগঞ্জ, চারু মার্কেট থেকেও।

    ২)চাঁদার অঙ্ক কুড়ি হাজার টাকা! শিশুর তোয়াক্কা না করে ভাঙল জানলার কাচ কোথাও চাঁদার অঙ্ক কুড়ি হাজার টাকা। এবং সেই টাকা চাওয়া হল খোদ পুলিশের বাড়ির লোকের কাছেই। আপত্তি করায় ঢিল মেরে ভেঙে দেওয়া হল কাচ। বাড়িতে যে একটি শিশু রয়েছে, তোয়াক্কা করা হল না সে সবও। কোথাও আবার দাবি মতো চাঁদা না পেয়ে মারধরের অভিযোগও উঠল। কালীপুজোর মুখে এমনই জুলুমবাজি অব্যাহত উত্তর থেকে দক্ষিণ, বঙ্গের সর্বত্র। আলিপুরদুয়ারে যেমন গভীর রাতে শিক্ষিকার বাড়িতে ভাঙচুর চালানোর অভিযোগ উঠেছে। বৃহস্পতিবার রাতে ঘটনাটি ঘটে আলিপুরদুয়ার শহরের বাবুপাড়া এলাকায়। তিন বছরের মেয়ে ও অসুস্থ বাবাকে নিয়ে আতঙ্কে রয়েছেন প্রাথমিক স্কুলের ওই শিক্ষিকা টুম্পা সাহা।

    ৩) দীপাবলির রোশনাই আনতে সরকারের সবেধন নীলমণি রাষ্ট্রায়ত্ত সংস্থা অচ্ছে দিনের আশ্বাস দিয়ে ক্ষমতায় আসা নরেন্দ্র মোদী সরকারের আড়াই বছর পরে শিল্পমহলের অভিযোগ, গর্ব করার মতো নতুন বিনিয়োগ এখনও অধরা। হোঁচট খাচ্ছে কারখানার উৎপাদন বাড়ার সূচক। আর্থিক সংস্কারের হাত ধরে ব্যবসার পথ সহজ করার দাবি অনেকটাই ঢাক পেটানো। এই পরিপ্রেক্ষিতে অর্থনীতিতে দীপাবলির রোশনাই আনতে সরকারের সবেধন নীলমণি সেই রাষ্ট্রায়ত্ত সংস্থা। রাষ্ট্রায়ত্ত সংস্থার হাতে জমে থাকা বিপুল অর্থ লগ্নি করে অর্থনীতির চাকায় গতি আনতে কেন্দ্রীয় সরকারের সচিবদের নির্দেশ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী। না-পারলে নিদেনপক্ষে বাড়তি হারে ডিভিডেন্ড দিতে হবে সরকারকে। দু’দিন আগেই বিভিন্ন মন্ত্রকের সচিবদের সঙ্গে বৈঠক করেছেন মোদী।

    ৪) ভারতীয় জওয়ানের মাথা কাটা দেহ উদ্ধার, বদলা চেয়ে ফুটছে সেনা তিন বছর আগের স্মৃতি ফিরে এল। নিয়ন্ত্রণরেখায় দু’দেশের গুলিযুদ্ধে নিহত ভারতীয় জওয়ানের মাথা কাটা দেহ উদ্ধার হল। এই ঘটনার বদলা চেয়ে সরব হয়েছেন ভারতীয় সেনা এবং ওই জওয়ানের পরিবারের সদস্যেরা। মাথা কাটার ঘটনায় পাক সেনার মদতে পুষ্ট জঙ্গিদের দিকেই আঙুল উঠেছে। ক্ষুব্ধ সেনার তরফে বলা হয়েছে, যথাসময়ে এই ঘটনার উপযুক্ত প্রতিশোধ নেওয়া হবে। নিহত মনজিৎ সিংহ ১৭ শিখ লাইট ইনফ্র্যান্টি বাহিনীর জওয়ান। সেনা জানায়, শুক্রবার কাশ্মীরের কুপওয়ারা জেলার মাচিল সেক্টরে নিয়ন্ত্রণরেখা পেরিয়ে জঙ্গিরা ভারতে ঢোকার চেষ্টা করলে বাধা দেন জওয়ানেরা। গুলিযুদ্ধে এক জঙ্গি ছাড়াও মারা যান মনজিৎ।

    bartaman_big11

    ১) কালীপুজোর রাতে আলোর, রোশনাইয়ে ভেসে গেল রাজ্য সন্ধ্যায় বাজি পোড়াতে হবে। তাই দুপুর থেকেই কালীঠাকুর দেখতে ভিড় নামল রাস্তায়। স্থানীয়রা তো রয়েইছেন, দর্শনার্থীদের ভিড়ে ছিলেন জেলা থেকে আসা মানুষরাও। অনেকেই আবার এসেছেন সপরিবারে। কালীপুজো ঘিরে শনিবার প্রায় দিনভরই জমজমাট ছিল আমহার্স্ট স্ট্রিট, কেশবচন্দ্র সেন স্ট্রিট। বড় পুজোর পাশাপাশি ‘সার্জিক্যাল স্ট্রাইক’-এর রোমাঞ্চে ঠাসা ভিড় ছিল কিশোর মিলনের পুজো চত্বরেও। রাস্তার দু’ধারে বসা মেলা ঘিরে বেজায় উৎসাহ ছিল দর্শনার্থীদের। আর তাতেই রংবাহারি আলোয় ঢাকা ফুটপাতে মলিন বিছানা পেতে বসে থাকা প্রমোদ, মোহন, সেলিমদের মুখ ক্রমেই উজ্বল হয়েছে সময় গড়ানোর সঙ্গে সঙ্গে। শুধু কলকাতাই নয়, শক্তি আরাধনায় মেতেছে লাগোয়া দুই শহরতলি থেকে বিভিন্ন জেলা সদর, দূর-দূরান্তের প্রান্তিক গ্রামগুলিও। যে যাঁর সাধ্যমতো মায়ের পুজোর আয়োজন করেছেন। ধনী-দরিদ্র নির্বিশেষে সপরিবারে, সবান্ধবে মেতেছেন আনন্দে, আতশবাজির উৎসবে। ছোট-বড় পুজো দেখতে আর আলোকসজ্জার আনন্দ নিতে বিভিন্ন জায়গায় ভিড়ও ছিল চোখে পড়ার মতো। বৃষ্টি নিয়ে ঘূর্ণিঝড় ‘কায়ান্ত’-এর অসময়ে আগমনে কালীপুজোর আকাশে দুর্যোগের ইঙ্গিত মিলেছিল। কিন্তু এদিন তেমনটা হয়নি। অন্তত শহর কলকাতায়। সকালের ঝলমলে আকাশ যেন আভাস দিয়েছিল ঠাসা ভিড়েরই।

    ২)পাক গুপ্তচররা পৌঁছে গিয়েছে সংসদে, গ্রেপ্তার সমাজবাদী পার্টির এমপি’র সচিব পাকিস্তানের গুপ্তচর সংস্থা আইএসআই-এর গুপ্তচররা তাহলে ভারতের সংসদেও পৌঁছে গিয়েছে। গতকাল উত্তরপ্রদেশের মুলায়ম সিং যাদবের দল সমাজবাদী পার্টির রাজ্যসভার এমপি মুনাবর সালিমের ব্যক্তিগত সচিব ফারহাত আখতারকে দিল্লি পুলিশের ক্রাইম ব্রাঞ্চ গ্রেপ্তার করেছে। ফারহাত আখতার আজ থেকে নয়, ১৫ বছর ধরে পাকিস্তানের চর হিসাবে কাজ করেছে। এই ১৫ বছরে সংসদে পেশ হওয়ার আগেই ভারতের সামরিক সুরক্ষা, প্রতিরক্ষা ও বিজ্ঞান প্রযুক্তির নয়া প্রকল্প সম্পর্কে গোপন নথিপত্র আখতার নিয়ম করে দিল্লির পাকিস্তান হাই কমিশনে থাকা আইএসআই স্পাই চক্রের হোতার কাছে পৌঁছে দিয়েছে। সবথেকে গুরুত্বপূর্ণ যে গোপন নথি এই সমাজবাদী পার্টির কর্মী তথা খোদ এমপির ব্যক্তিগত সচিব আইএসআইকে হস্তান্তর করেছে তা হল বিদেশমন্ত্রক, জাহাজ মন্ত্রক এবং প্রতিরক্ষা মন্ত্রক সংক্রান্ত বিভিন্ন স্ট্যান্ডিং কমিটির বৈঠকে আলোচ্যসূচি, রেকর্ড, রিপোর্ট এবং সংসদে সরকারের প্রদান করা রিপোর্ট।

    ৩) তথ্যমন্ত্রীকে বরখাস্ত করলেন নওয়াজ শরিফ সরকারের সংবেদনশীল তথ্য ফাঁসের দায়ে বরখাস্ত করা হল পাক তথ্যমন্ত্রী পারভেজ রশিদকে। পাক প্রধানমন্ত্রী নওয়াজ শরিফের অত্যন্ত ঘনিষ্ঠ মন্ত্রী রশিদ। প্রধানমন্ত্রীর মুখপাত্র মুসাদিক মালিক জানিয়েছেন, জাতীয় নিরাপত্তার মতো গুরুত্বপূর্ণ ও সংবেদনশীল বিষয় ফাঁস করে দেওয়ার ঘটনায় যে তদন্ত হয়েছিল, তার প্রাথমিক প্রমাণ রশিদের বিরুদ্ধে গিয়েছে। ডন পত্রিকার সাংবাদিক সিরিল আলমেইডাকে ওই খবর কে দিয়েছিলেন, তার চূড়ান্ত রিপোর্ট দু’একদিনের মধ্যেই পাওয়া যাবে বলে জানিয়েছেন মালিক। প্রসঙ্গত, জঙ্গিদের মদত দেওয়া নিয়ে সামরিক বাহিনী ও পাক সরকারের মধ্যে মতভেদ রয়েছে বলে ডন পত্রিকায় রিপোর্ট লিখেছিলেন ওই বিশিষ্ট সাংবাদিক। পাক সরকারের রোষের মুখেও ডন পত্রিকা ওই সাংবাদিকের সপক্ষে দাঁড়িয়ে জানিয়ে দেয়, খবরের সত্যতা বেশ কয়েকবার খতিয়ে দেখা হয়েছে। এরপরেই কে ওই খবর ফাঁস করল, তা খতিয়ে দেখতে কমিটি গঠন করা হয়। কমিটির রিপোর্টে এও বলা হয়েছে শরিফের সম্মতি ছাড়া রশিদ ওই সেনাবিরোধী তথ্য ফাঁস করতে পারেন না।

    ৪) ১০ পাক সেনার মুণ্ড চায় মনদীপের গ্রাম সারা দেশ যখন দীপাবলির আনন্দে মশগুল, তখন শোকের ছায়া হরিয়ানার কুরুক্ষেত্রের এই প্রান্তিক গ্রামে। তবে মনদীপ সিংয়ের দেহ গ্রামে পৌঁছাতেই শোক বদলে গেল ক্রোধে। দাবি উঠল, মনদীপের মাথার বিনিময়ে ১০ পাক সেনার মুণ্ড চাই। সেই স্বাধীনতা দেওয়া হোক সেনাবাহিনীকে। গতকাল রাতে কুপওয়ারা জেলায় মাচিল সেক্টরে লাইন অব কন্ট্রোলে জঙ্গিদের হাতে খুন হন সেনা জওয়ান মনদীপ সিং। পাক রেঞ্জার্সের গুলি চালনার সুযোগ নিয়ে ভারতীয় ভূখণ্ডে ঢুকে মনদীপকে খুন করে তাঁর মাথা কেটে নিয়ে যায় জঙ্গিরা। যা অত্যন্ত নৃশংস বলেই জানিয়েছে প্রাক্তন সেনা আধিকারিক থেকে শুরু করে রাজনৈতিক নেতারাও। ‘কিন্তু যা গিয়েছে, তা আমাদের গিয়েছে। একজন সেনার পরিবার ছাড়া এই বিষয়টি কেউ উপলব্ধি করতে পারবে না’, মনদীপের মায়ের বুকফাটা আর্তনাদে তখন রাগে ফুঁসছে গোটা গ্রাম।

    First published: