যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়ে প্রবেশিকা পরীক্ষা প্রত্যাহারের সিদ্ধান্ত, উপাচার্যকে বেরতে বাধা ছাত্রদের

যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়ে প্রবেশিকা পরীক্ষা প্রত্যাহারের সিদ্ধান্ত, উপাচার্যকে বেরতে বাধা ছাত্রদের

File Photo

  • Share this:

    #কলকাতা: যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয় থেকে উঠে গেল প্রবেশিকা পরীক্ষা ৷ চলতি বছরে স্নাতকস্তরে কোনও প্রবেশিকা পরীক্ষা নেওয়া হবে না বলে সিদ্ধান্ত কর্তৃপক্ষের ৷ উচ্চমাধ্যমিক বা তার সমতুল পরীক্ষায় প্রাপ্ত নম্বরের ভিত্তিতেই এবছর স্নাতকস্তরে যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়ে চলবে ভর্তি প্রক্রিয়া ৷

    মঙ্গলবারই প্রবেশিকা পরীক্ষার সিদ্ধান্ত হয় ইসি-র বৈঠকে ৷ এদিন ইসি-র সেই সিদ্ধান্ত প্রত্যাহার করে প্রবেশিকা পরীক্ষা বাতিলের সিদ্ধান্ত জানিয়ে দেয় কর্তৃপক্ষ ৷ একইসঙ্গে প্রবেশিকা পরীক্ষা প্রত্যাহার সিদ্ধান্তের পিছনে কর্তৃপক্ষের সাফাই, পরীক্ষা বিতর্কে বহু ছাত্র ফর্ম তোলেননি ৷ তাই এবছর প্রবেশিকা পরীক্ষা নেওয়া হবে না ৷ ফর্ম তোলার সময়সীমাও বাড়াল বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ ৷ বুধবার ফের অ্যাডমিশন কমিটির বৈঠক ৷

    স্নাতকস্তরে কলা বিভাগে প্রবেশিকা পরীক্ষার দিন ঘোষণা হয়ে যাওয়ার পর প্রবেশিকা প্রত্যাহারের সিদ্ধান্তে ক্ষুব্ধ ছাত্র-ছাত্রীদের একাংশ ৷ এদিন ফের যাদবপুরের উপাচার্যকে বিশ্ববিদ্যালয় চত্বর ছেড়ে বেরোতে বাধা দেয় কলা বিভাগের ছাত্র সংসদ প্রতিনিধিরা ৷ প্রবেশিকা প্রত্যাহারের এমন সিদ্ধান্তের তীব্র প্রতিবাদ জানান তারা ৷ পড়ুয়াদের সঙ্গে বাক-বিতণ্ডায় জড়িয়ে পড়েন ইসি ও উপাচার্য ৷

    আরও পড়ুন 

    এবার থেকে সন্তানের ১৮ বছর হওয়া পর্যন্ত কর্মচারীদের ৬ মাসের সবেতন ছুটি দেবে সরকার

    বিশ্ববিদ্যালয়ের সিদ্ধান্তে পড়ুয়াদের এমন বিরোধিতায় ক্ষুব্ধ যাদবপুরের রেজিস্ট্রার চিরঞ্জীব ভট্টাচার্য ৷ তিনি বলেন, ‘যাদবপুরে ইসি-র উপর বারবার এই আঘাত মেনে নেওয়া যায় না ৷ উপাচার্যকে যেভাবে ঘেরাও রাখা হয়েছে ৷ বিশ্ববিদ্যালয়ে এগুলো চলতে পারে না ৷ বিশ্ববিদ্যালয়ে ছাত্র ভর্তিতে হস্তক্ষেপ করতে পারবেন না ছাত্ররা ৷’

    আরও পড়ুন 

    সুখবর, রথে ঘুরতে যাওয়ার জন্য ১৮৪টি বিশেষ ট্রেন চালাবে ভারতীয় রেল

    সব মিলিয়ে রাজ্য স্নাতকস্তরে ভর্তি নিয়ে ক্রমশ জটিল পরিস্থিতি ৷ ছাত্র ভর্তিতে তোলাবাজি রুখতে মঙ্গলবারই নিয়ম পরিবর্তনের কথা ঘোষণা করেন শিক্ষামন্ত্রী ৷ ভর্তির আগে পড়ুয়া ও অভিভাবকদের হয়রানি ঠেকাতে কাউন্সেলিং প্রথাই তুলে দেওয়ার সিদ্ধান্ত শিক্ষা দফতরের। সেই সঙ্গে তোলাবাজির বীজ উপড়ে ফেলা হল ভর্তির পরে ভেরিফিকেশনের ঘোষণা করেন পার্থ চট্টোপাধ্যায়।

    First published:

    লেটেস্ট খবর