corona virus btn
corona virus btn
Loading

শিক্ষামন্ত্রীর ক্ষোভের মুখে উপাচার্যরা ! অধ্যক্ষ উপাচার্যদের নিয়ে বৃহস্পতিবার বৈঠক শিক্ষামন্ত্রীর

শিক্ষামন্ত্রীর ক্ষোভের মুখে উপাচার্যরা ! অধ্যক্ষ উপাচার্যদের নিয়ে বৃহস্পতিবার বৈঠক শিক্ষামন্ত্রীর

"রাজ্যপালের সঙ্গে আমার কোনো সংঘাত নেই"। বৃহস্পতিবার উপাচার্য ও অধ্যক্ষ দের নিয়ে করা বৈঠকে এমনই জানালেন শিক্ষা মন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়

  • Share this:

#কলকাতা: শিলিগুড়ির পর এবার কলকাতাতেও অধ্যক্ষ ও উপাচার্যদের নিয়ে বৈঠক করলেন শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়। বৃহস্পতিবারের বৈঠকে উপাচার্য কেন বিশ্ববিদ্যালয়ের এক্সিকিউটিভ কাউন্সিলের বৈঠক ডাকা থেকে শুরু করে কেন কোনও নিয়ম মানছে না তা নিয়ে সরব হন। এ দিনের বৈঠকে সরকারের আনা নয়া বিধির কথাও উপাচার্যদের মনে করিয়ে দেন শিক্ষামন্ত্রী। বিশ্ববিদ্যালয়গুলির নিয়োগের শিথিলতা নিয়েও উপাচার্যদের ভূমিকা নিয়ে সরব হন শিক্ষামন্ত্রী। তবে বৈঠকে উপাচার্যদের জানিয়ে দেওয়া হয়েছে বিশ্ববিদ্যালয় ও কলেজের অধ্যাপক করা সব রকমের সংগঠন করতে পারবেন।

শিলিগুড়ির বৈঠকের পর বৃহস্পতিবার এর উপাচার্য ও অধ্যক্ষ দের নিয়ে করা বৈঠকে  চয়েস বেসড ক্রেডিট সিস্টেম নিয়েই আলোচনা হল।মূলত বৈঠক থেকে অনেক পক্ষই এই পদ্ধতির কার্যকারিতা নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন। যাকে ঘিরে শিক্ষা মন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায় ও পড়ুয়াদের মূল্যায়নের জন্য তৈরি করা এই নয়া পদ্ধতি নিয়ে উপাচার্যদের  রিপোর্ট দিতে বলেছেন। এ প্রসঙ্গে শিক্ষা মন্ত্রী বলেন "সিবিসিএস এর কার্যকারিতা কি হচ্ছে তা আমাদেরও ভাবাচ্ছে। উপাচার্যদের রিপোর্ট দিতে বলেছি। তারপরই বিষয়টি নিয়ে দেখবো।" এ দিনের বৈঠকে উঠে আসে আচার্যের রাজ্যপাল হিসেবে বিশ্ববিদ্যালয়গুলির ভূমিকা প্রসঙ্গ ও। তা নিয়ে অবশ্য শিক্ষা মন্ত্রী কোন মন্তব্য না করলেও বৈঠকে রাজ্যপালের সঙ্গে তার কোনো সংঘাত নেই বলেই জানান। শুধু তাই নয় রাজ্যপালের প্রসঙ্গ নিয়ে রাজ্যের উচ্চশিক্ষা দফতর যা করার করবে বলেও বৈঠক থেকেই জানান শিক্ষামন্ত্রী।

এ দিনের বৈঠকে ছাত্র আন্দোলনের প্রসঙ্গ ও ওঠে। বৈঠকে শিক্ষা মন্ত্রী উপাচার্যদের জানিয়েছেন ঘনঘন এভাবে ছাত্র আন্দোলন যেন মেনে না নেওয়া হয়। এ প্রসঙ্গে শিক্ষামন্ত্রী জানান "আমি খুব শীঘ্রই ছাত্রদের নিয়ে আলোচনায় বসবো। বারবার এইভাবে ছাত্র আন্দোলনকে সমর্থন করাা যায় না। আলোচনার মাধ্যমে সমস্যার সমাধান করতে হবে।" বৃহস্পতিবারের বৈঠকে নিয়োগের শিথিলতা নিয়েও ক্ষোভ প্রকাশ করেন শিক্ষা মন্ত্রী। পড়ে থাকা শূন্য পদ গুলিতেও দ্রুত নিয়োগের নির্দেশ দেন তিনি।

সোমরাজ বন্দোপাধ্যায়

First published: February 27, 2020, 10:51 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर