Home /News /kolkata /
নম্বরে পরিবর্তনের অভিযোগ ! ফের সর্তক করে স্কুলগুলিকে চিঠি দিতে চলেছে মধ্যশিক্ষা পর্ষদ

নম্বরে পরিবর্তনের অভিযোগ ! ফের সর্তক করে স্কুলগুলিকে চিঠি দিতে চলেছে মধ্যশিক্ষা পর্ষদ

এবার নম্বর পরিবর্তনের বড়সড় অভিযোগ মধ্যশিক্ষা পর্ষদের কাছে।

  • Share this:

#কলকাতা: এবার নম্বর পরিবর্তনের বড়সড় অভিযোগ মধ্যশিক্ষা পর্ষদের কাছে। মূলত মাধ্যমিকের মূল্যায়নের নবম শ্রেণীর নম্বর এবং দশম শ্রেণীর ইন্টার্নাল ইভ্যালুয়েশন নিরিখেই মূল্যায়ন করা হবে ছাত্র-ছাত্রীদের এমনটাই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। তার জন্য রাজ্যের মধ্য শিক্ষা পর্ষদ অনুমোদিত স্কুলগুলির থেকে নবম শ্রেণির বার্ষিক পরীক্ষার নম্বরও চাওয়া হয়েছে। এবার স্কুল থেকে পাঠানো নম্বরের ক্ষেত্রেই দেখা যাচ্ছে নম্বর পরিবর্তন করা হয়েছে। তা করা হয়েছে স্কুলগুলির তরফেই। ইতিমধ্যেই এই সংক্রান্ত বেশ কিছু তথ্য মধ্যশিক্ষা পর্ষদের হাতে ধরা পড়েছে। যার জেরে মধ্যশিক্ষা পর্ষদ সতর্ক করে স্কুলগুলি কে চিঠি দিতে চলেছে বলেই পর্ষদ সূত্রের খবর। মূলত নবম শ্রেণীর নম্বর পাঠানোর ক্ষেত্রে যাতে কোনরকম নম্বর পরিবর্তন না করে তার সতর্ক করে ফের স্কুল গুলিকে করার চিঠি দিতে পারে পর্ষদ বলেই সূত্রের খবর।

গত সপ্তাহেই মধ্যশিক্ষা পর্ষদের তরফে বিভিন্ন স্কুলের থেকে নবম শ্রেণির বার্ষিক পরীক্ষার নম্বর চাওয়া হয়েছে। শুধু তাই নয় স্কুল গুলিকে পাঠানো নির্দেশিকা স্পষ্টভাবেই জানানো হয়েছিল যদি কোন স্কুল নম্বর পরিবর্তন করেন বা নম্বর দেওয়ার ক্ষেত্রে গাফিলতি হয় তাহলে সেই স্কুলের বিরুদ্ধে আইনানুগ পদক্ষেপ নেবে পর্ষদ। সেই মোতাবেক এবার কলকাতা সংলগ্ন একটি স্কুলের বিরুদ্ধে পদক্ষেপ নিতে চলেছে মধ্যশিক্ষা পর্ষদ বলেই সূত্রের খবর। অভিযোগ একটি নির্দিষ্ট স্কুল বেশকিছু ছাত্র-ছাত্রীদের নম্বর বাড়িয়ে তথ্য পাঠিয়েছিল। মধ্যশিক্ষা পর্ষদ সেই তথ্য পাঠানো মাত্রই আধিকারিকদের সন্দেহ হয়। সংশ্লিষ্ট সেই স্কুলের থেকে ইতিমধ্যেই তথ্য চাওয়া হয়েছে বলেই জানা গেছে।

অন্যদিকে মধ্যশিক্ষা পর্ষদের তরফে ইতিমধ্যেই নির্দিষ্ট ওয়েবসাইট দিয়ে দেওয়া হয়েছে স্কুল গুলিকে নবম শ্রেণির পরীক্ষার নম্বর দেওয়ার জন্য। পর্ষদ সূত্রে জানা গেছে ৭৮৮২ টি স্কুল ইতিমধ্যেই পর্ষদের দেওয়া ওয়েবসাইটে লগইন করে তথ্য জমা দেওয়ার প্রক্রিয়া শুরু করেছে। যার মধ্যে প্রায় ৪ লক্ষ ২৮ হাজার ছাত্র-ছাত্রীর নম্বর জমা পড়েছে নবম শ্রেণির বার্ষিক পরীক্ষার। আগামী ২৪ শে জুন পর্যন্ত সময় সীমা রয়েছে পর্ষদের ওয়েবসাইট মারফত নম্বর আপলোড করার। অন্যদিকে পর্ষদের ধারণা নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে স্কুলগুলি নম্বর জমা দিয়ে দিলে জুলাই মাসের শেষের দিকে মাধ্যমিকের ফলাফল বের করা সম্ভব।

সোমরাজ বন্দ্যোপাধ্যায়

Published by:Piya Banerjee
First published:

Tags: School, The Board of Secondary Education, West bengal