Home /News /kolkata /

ভোট পরবর্তী অশান্তি মামলায় এবার রাজ্য ছুটল হাইকোর্টে, কেন? 

ভোট পরবর্তী অশান্তি মামলায় এবার রাজ্য ছুটল হাইকোর্টে, কেন? 

রাজ্য আবারও হাইকোর্ট ৫ বিচারপতির বেঞ্চের দ্বারস্থ।

  • Share this:

#কলকাতা:

শুক্রবার হাইকোর্টের পাঁচ বিচারপতির বৃহত্তর বেঞ্চের নির্দেশ ছিল, রাজ্যের যাবতীয় ভোট পরবর্তী অশান্তির অভিযোগ খতিয়ে দেখবে জাতীয় মানবাধিকার কমিশন নিযুক্ত বিশেষ কমিটি। অশান্তি অভিযোগের বিশদ রিপোর্ট হাইকোর্টে পেশ করবে কমিশন ৩০ জুন। নির্দেশ দিতে না দিতেই নয়া মোড়। রাজ্য আবারও হাইকোর্ট ৫ বিচারপতির বেঞ্চের দ্বারস্থ। রাজ্য শুক্রবার বৃহত্তর বেঞ্চের নির্দেশের পুনর্বিবেচনার আবেদন রেখেছে। সোমবার হাইকোর্টে তার শুনানির সম্ভাবনা রয়েছে। কেন এখন রাজ্যের আবেদন?  রাজ্যের যুক্তি, স্টেট লিগাল সার্ভিস অথরিটির পাঠানো অভিযোগ পেয়ে তা খতিয়ে দেখে পদক্ষেপ করার মত পর্যাপ্ত সুযোগই দেওয়া হয়নি।  শুক্রবার ভারপ্রাপ্ত প্রধান বিচারপতি রাজেশ বিন্দাল, বিচারপতি ইন্দ্র প্রসন্ন মুখার্জি, হরিশ ট্যান্ডন, সৌমেন সেন এবং বিচারপতি সুব্রত তালুকদার বেঞ্চ যে নির্দেশ জারি করেছে তাতে উল্লেখিত, 'স্টেট লিগাল সার্ভিস অথরিটি অভিযোগ জানানোর পরও কোনও পদক্ষেপ করেনি ভোট পরবর্তী অশান্তি মোকাবিলায়। রাজ্যে অশান্তি যে আছে তা স্টেট লিগাল সার্ভিস অথরিটি পাঠানো অভিযোগেই কার্যত প্রমাণিত।'

কী ছিল স্টেট লিগাল সার্ভিস অথরিটি পাঠানো অভিযোগে? ৩০০০-এর বেশি অভিযোগ পাঠায় তারা। তার মধ্যে ঘর ভাঙা, কাজে যোগ দিতে না দেওয়া, মারধর, হিংসার মতো একাধিক অভিযোগ রয়েছে। প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, ৯ জনস্বার্থ মামলার একযোগে শুনানির পর শুক্রবার ভারপ্রাপ্ত প্রধান বিচারপতি নেতৃত্বাধীন বৃহত্তর বেঞ্চ ভোট পরবর্তী অশান্তি মোকাবিলায় জাতীয় মানবাধিকার কমিশনের চেয়ারপার্সনকে কমিটি গড়ে অশান্তি অভিযোগের তদন্ত করতে বলে। জনস্বার্থ মামলাকারী আইনজীবী প্রিয়াঙ্কা টিবরেওয়াল জানান, "এন্টালির ঘটনাতেই স্পষ্ট হয়েছে রাজ্যে ভোট পরবর্তী অশান্তি হয়েছে। তবে রাজ্য বারবার তা অস্বীকার করে। এন্টালি দেখানো পথে গোটা রাজ্যেই শান্তি ফেরাতে চায় হাইকোর্ট।"

আইনজীবী উদয়শংকর চট্টোপাধ্যায়, রবিশঙ্কর চট্টোপাধ্যায় এবং আইনজীবী অনিন্দ্য সুন্দর দাস জানান, "৭ মে প্রথম আমরা জনস্বার্থ মামলা করি রাজ্যে ভোট পরবর্তী অশান্তি বন্ধ চেয়ে। স্বরাষ্ট্র সচিব রিপোর্ট তলব, ডিজিপি ইমেইল আইডি-তে অভিযোগ জানানোর পর কোনও পরিস্থিতি বদল না হওয়াতেই কড়া নির্দেশ দিতে বাধ্য হয়েছে লার্জার বেঞ্চ।" তাঁরা আরও জানান, প্রয়োজনে রাজ্যের নির্দেশ পুনর্বিবেচনার আবেদনের বিরোধিতা করবো আমরা।

Published by:Suman Majumder
First published:

Tags: After Election Violence, Calcutta High Court, Political Violence, West Bengal Assemblly Election

পরবর্তী খবর